বাংলায় হিংসা ছড়ানোর অভিযোগ, কঙ্গনার বিরুদ্ধে কলকাতা পুলিশে দায়ের অভিযোগ

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দলের জয়লাভ ঘোষণা হওয়ার পর তাঁকে শুভেচ্ছা জানিয়ে ট্যুইট করেছেন কঙ্গনা। কিন্তু সেই ট্যুইটেও ছিল তীব্র খোঁচা।
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest

বাংলায় হিংসা আর অশান্তি ছড়ানোর চেষ্টা করছেন কঙ্গনা রানাউত (Kangana Ranaut)। বিজেপিকে সমর্থন জানাতে গিয়ে বাংলার মানুষের মধ্যে বিভেদ তৈরির চেষ্টা করছেন বলিউড অভিনেত্রী। এমন অভিযোগ তুলেই এবার কলকাতা পুলিশের দ্বারস্থ হাই কোর্টের আইনজীবী সুমিত চৌধুরী। ই-মেল মারফত ‘ক্যুইন’ কঙ্গনার বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেছেন তিনি।

তিনি মুম্বইয়ের বাসিন্দা। পেশায় রূপোলি পর্দার অভিনেত্রী। কিন্তু আপাতত তাঁর ট্যুইটারে দেওয়াল জুড়ে শুধুই পশ্চিমবঙ্গ নির্বাচনের তরজা। কঙ্গনা রানাউত। গতকাল পশ্চিমবঙ্গে ভোটগণনা শুরু হওয়ার পর থেকেই একাধিক ট্যুইট করেছেন তিনি। তার কোনোটায় বাংলাকে কাশ্মীরের সঙ্গে তুলনা করা হয়েছে। আবার কখনও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে ‘রাবণ’ বলে কটাক্ষ করেছেন অভিনেত্রী।

একটি ট্যুইটারে তিনি লিখেছেন, ‘বাংলাদেশী আর রোহিঙ্গারাই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের আসল শক্তি। তথ্য বলছে, পশ্চিমবঙ্গে হিন্দুরা আর সংখ্যাগরিষ্ঠ নেই। আর বাঙালি মুসলিমরা হল ভারতবর্ষের মধ্যে সবচেয়ে সবচেয়ে গরীব। বাংলায় একটা কাশ্মীর তৈরি হচ্ছে।’ এখানেই থামেননি কঙ্গনা। একের পর এক ট্যুইট করে তৃণমূল কংগ্রেসকে বিঁধেছেন তিনি। আরামবাগে বিজেপির পার্টি অফিসে আগুন লাগানোর খবরের একটি ট্যুইট রিট্যুইট করে তিনি লিখেছিলেন, ‘আগামীদিনে বাংলায় রক্তস্নান হবে। সরকার হেরে যাওয়ার ভয়ে রক্ত পিপাসু হয়ে উঠবে।’ কখনও আবার অমিত শাহকে ট্যুইটারে ট্যাগ করে বাংলায় বিজেপি কর্মীদের বাঁচাবার আবেদন জানিয়েছেন কঙ্গনা।

আরও পড়ুন: বুথের মধ্যে তৃণমূলের এজেন্টের শ্লীলতাহানির অভিযোগ, BJP এজেন্ট আটক

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দলের জয়লাভ ঘোষণা হওয়ার পর তাঁকে শুভেচ্ছা জানিয়ে ট্যুইট করেছেন কঙ্গনা। কিন্তু সেই ট্যুইটেও ছিল তীব্র খোঁচা। একটি ট্যুইট করে মমতা লেখেন, ২০১৯-এ লোকসভা ভোটে ধাক্কা খাওয়ার পর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় একজন বাঘিনীর মতই লড়াই করেছেন এই বিধানসভা নির্বাচনে। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর হেলিকপ্টার নামতে দেয়নি। সিএএ, এনআরসিকে আটকেছেন। মোদীকে খেলায় আহ্বান করেছেন। একেবারে খোলাখুলি শরণার্থীদের আশ্রয় দিয়েছেন, তাঁদের ভোটার কার্ড দিয়েছেন। গণতন্ত্র এখানে রসিকতা। তবু আমি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে স্যালুট জানাচ্ছি। কারণ যদি ভিলেন হতেই হয় তাহলে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মতো হন। রাবণের মত লড়াই করুন। রাহুল গান্ধীর মত গোগো না। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের জয়ী হওয়াই উচিত।’

এই সমস্ত ট্যুইটের জেরেই আজ কলকাতা পুলিশের কাছে অভিযোগ দায়ের করেছেন আইনজীবী। তিনি বলেছেন, ‘বাঙালি এবং বাংলার বিরুদ্ধে অপমানজনক মন্তব্য করেছেন কঙ্গনা রানাউত। বিজেপি-র পক্ষ নিয়ে কথা বলতে গিয়ে অশান্তি ছড়াতে চাইছেন কঙ্গনা। বাংলার আইনশৃঙ্খলার ভারসাম্য করতে এনআরসি এবং সিএএ-র সমর্থনে কথা বলে অশান্তি ছড়ানোর চেষ্টা করছেন তিনি।’ যা বাংলার মানুষ মেনে নেবে না বলে দাবি আইনজীবী সুমিত চৌধুরীর। সেই কারণেই অভিনেত্রীর বিরুদ্ধে পুলিশের কাছে অভিযোগ দায়ের করেছেন তিনি। গোটা বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলে পুলিশ সূত্রে খবর।

আরও পড়ুন: ভোটের ফল প্রকাশের আগের দিনই রাজভবনে মিঠুন, শুরু গুঞ্জন

 

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest