‘আমন্ত্রণ না জানানোয়’ বিজেপির মিছিলে যাচ্ছেন না বৈশাখী, শোভন কি যাবেন? নাজেহাল বিজেপি

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest

না আঁচালে বিশ্বাস নেই। সোমবারের বাইক র‌্যালি নিয়ে রবিবার এমনই মন্তব্য করেছিলেন শোভন-জায়া রত্না চট্টোপাধ্যায়। সোমবার শোভন-বৈশাখীর নির্ধারিত বাইক র‌্যালি শুরু হওয়ার আগে রত্নার আশঙ্কা হাড়ে হাড়ে টের পেলেন রাজ্য বিজেপি নেতৃত্ব। শেষ পর্যন্ত বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়ের মানভঞ্জন করা যায়নি। প্রস্তাবিত মিছিলে যাচ্ছেন না বৈশাখী। তিনি তা প্রকাশ্যে জানিয়েও দিয়েছেন। তিনি জানিয়েছেন, মিছিলে তিনি ‘আমন্ত্রিত’ নন। সূত্রের খবর, বৈশাখীর গোসার খেসারত দিতে হতে পারে রাজ্য বিজেপি-র এক যুবনেতাকে।

বৈশাখীর ঘনিষ্ঠ মহল সূত্রে খবর, মঙ্গলবার সকালে রাজ্য বিজেপির তরফে শোভনের বান্ধবীর কাছে ফোন এসেছিল। তাতে নাকি জানানো হয়েছে, মিছিল হতে চলেছে পুরোপুরি শোভনের। তাই সোমবারের মিছিলে বিজেপির কলকাতা জোনের সহ-আহ্বায়ক বৈশাখীর যোগ দেওয়ার প্রয়োজন নেই। তারপরেই বৈশাখী মিছিলে না যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বলে সূত্রের খবর।

যদিও বিজেপির একাংশের দাবি, বৈশাখীকে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছিল। বিজেপি নেতা রাকেশ দাবি করেন, রবিবার গভীর রাত পর্যন্ত গোলপার্কে শোভনের বাড়িতে ছিলেন। যেখানে ছিলেন শঙ্কুদেব পণ্ডা, দেবজিত্‍ সরকাররা। সেখানেও বৈশাখীকে মিছিলে আসার কথা বলা হয়েছিল। রাজ্যে বিজেপির দায়িত্বপ্রাপ্ত কেন্দ্রীয় পর্যবেক্ষক কৈলাস বিজয়বর্গীয়ও নাকি তাঁকে মিছিলে থাকতে বলেছিলেন। রাকেশের প্রশ্ন, ‘কীভাবে আমন্ত্রণ জানানো হবে?’ কৈলাস অবশ্য নিজে সেই বিষয়ে কোনও মন্তব্য করতে চাননি। বিষয়টি জেলাস্তরের নেতারা দেখছেন বলে বৈশাখী-প্রসঙ্গ এড়িয়ে গিয়েছেন কৈলাস।

আরও পড়ুন: করোনার নতুন স্ট্রেনের হানা এরাজ্যেও, আক্রান্ত লন্ডন ফেরত যুবক, ভর্তি মেডিক্যাল কলেজে

ঘটনার সূত্রপাত বিজেপি-র কলকাতা জোনের কমিটি ঘোষণা নিয়ে। ওই কমিটিতে পর্যবেক্ষক শোভন চট্টোপাধ্যায়। আহ্বায়ক রাজ্য বিজেপি-র প্রাক্তন যুব সভাপতি দেবজিৎ সরকার। সহ-আহ্বায়ক পদে বৈশাখী। তবে বৈশাখীর পাশাপাশি যুব বিজেপি-র রাজ্য সহ-সভাপতি শঙ্কুদেব পণ্ডাকেও ওই কমিটির সহ-আহ্বায়ক করা হয়েছে। গত ২৭ ডিসেম্বর রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ ওই কমিটি ঘোষণা করেন। সেই সময়ে ব্যক্তিগত কারণে ভুবনেশ্বরে ছিলেন শোভন-বৈশাখী। কমিটি নিয়ে কোনও আপত্তিও শোনা যায়নি বৈশাখীর মুখে। কিন্তু রবিবার কলকাতায় পা রেখেই কমিটিতে একই পদে তিনি ও শঙ্কুদেব কেন, তা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন বৈশাখী।

সূত্রের খবর, বৈশাখী তখন এমনও জানান যে, শঙ্কুদেব থাকলে তিনি সোমবারের র‌্যালিতে অংশ নেবেন না। শেষ পাওয়া খবরে জানা গিয়েছে, এখনই কমিটি বদল না করা হলেও আপাতত ঠিক হয়েছে সোমবারের র‌্যালিতে অংশ নেবেন না শঙ্কুদেব। গরহাজির থাকতে পারেন দেবজিৎও। শঙ্কু-দেবজিতের সঙ্গে এখনও পর্যন্ত যোগাযোগ করা যায়নি। কিন্তু সোমবার সকালে জানিয়েছেন, বৈশাখী ওই মিছিলে যাচ্ছেন না। এমতাবস্থায় শোভন মিছিলে যাবেন কি না, তা নিয়েও একটা ‘অনিশ্চয়তা’ তৈরি হয়েছে। এই পরিস্থিতিতে বিজেপি যে ‘অস্বস্তিতে’ সেটা স্পষ্ট করেও দলের শীর্ষনেতৃত্ব এ নিয়ে আপাতত মুখ খুলতে নারাজ।

আরও পড়ুন: মুখ্যমন্ত্রী পদে সৌরভকে রাখার পরিকল্পনা বাদ? বড় ধাক্কা বিজেপি শিবিরে !

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest