৭ কোটিতে তারকা কিনেছে বিজেপি! অভিযোগ শ্রীলেখার, জেলে পাঠানোর হুমকি রিমঝিমের

সোশ্যাল মিডিয়ায় আরও একবার বিস্ফোরক দাবি বামমনস্ক অভিনেত্রী শ্রীলেখা মিত্রর। বিজেপি নেত্রী তথা অভিনেত্রী রিমঝিম মিত্রের পাল্টা কমেন্ট কমেন্ট-বাণ।
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest

এক তারকাকে দলে পেতে বিজেপি ৭ কোটি টাকা দিয়েছে বলে সোমবার নেটমাধ্যমে অভিযোগ করেছেন অভিনেত্রী শ্রীলেখা মিত্র। তার পরেই শুরু হয়েছে বিতর্ক। অভিযোগের স্বপক্ষে প্রমাণ দিতে না পারলে, শ্রীলেখার বিরুদ্ধে বিজেপি আইনি পথে হাঁটবে বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন আর এক অভিনেত্রী তথা বিজেপি নেত্রী রিমঝিম মিত্র।

সোমবার নিজের ফেসবুকে একটি পোস্ট করেন শ্রীলেখা। তিনি লেখেন, “জানতে পারলাম একজন স্টারকে সাত কোটি টাকা দিয়ে বিজেপি তাদের দলে নিয়েছে।” এর পরেই শ্রীলেখার পোস্টে রিমঝিম কমেন্ট করেন, “কাকে?” রিমঝিম আরও লেখেন, “আমি জানি না তাই জিজ্ঞেস করছি। শ্রীলেখা মিত্র আমার কাছে দিদির মতো, তাই ওঁকেই জিজ্ঞাসা করছি। কারণ প্রুফ ছাড়া এরম ডায়রেক্ট অ্যালিগেশন করলে প্রবলেম হতে পারে।”

পোস্টে কোনও সেলেবের সরাসরি নাম নেননি শ্রীলেখা। তবে রিমঝিমের মন্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে পাল্টা শ্রীলেখা লেখেন, “আমি তোকে প্রুফ নিয়েই নামটা বলব”। রিমঝিমও উত্তরে ‘ওকে’ লেখেন। কিন্তু কথোপকথন শেষ হয়নি এখানেই। এর খানিক পরেই আরও একবার শ্রীলেখার কাছে প্রমাণ চেয়ে তাঁর উদ্দেশ্যে রিমঝিমের কমেন্ট-হুঁশিয়ারি, “নাম এবং প্রমাণ অবশ্যই বোলো। নয়তো লিগাল দিকে যাবে পার্টি।” পাল্টা কমেন্টে শ্রীলেখা লেখেন, “যাক জেলে পাঠাক, জেলেই তো পাঠাবে… কিনতে তো পারেনি আমায়… কী করবে বল?”

আরও পড়ুন: হুইল চেয়ারে করেই সারা বাংলায় প্রচার করব, হাসপাতাল থেকেই ‘ব্যাটল ফিল্ড’-এ ফেরার ঘোষণা মমতার

এ বিষয়ে আনন্দবাজার ডিজিটালের তরফে শ্রীলেখার সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ‘‘রিমঝিম মিত্রকে প্রমাণ দেওয়ার দায় আমার নেই। যে দল বলে, ভোটে জিতলে চিটফান্ডের টাকা ফেরত দেব, সেই দলের লোককে কোনও প্রমাণ দেওয়ার দায় আমি অনুভব করি না। আগে ওরা আইনি পদক্ষেপ নিক, তার পরে প্রমাণ দেওয়ার কথা ভাবব।’’ তাঁর দাবি, বিষয়টি কানে এসেছে বলেই, তিনি লিখেছেন। কারও নাম করেননি। ‘‘বিজেপি ভয় দেখাতেই পারে। কারণ ওদের কাছে টাকা আছে। টাকার জোরেই ওরা সাধারণ মানুষকেও ভয় দেখাতে পারে,’’—বলেন শ্রীলেখা।

এখানেই থামেননি শ্রীলেখা। তাঁর মতে, রিমঝিম যখন বিজেপি-তে যোগদান করেন, তখন বলেছিলেন, টলিউডে কাজ পাচ্ছেন না বলেই, এমন সিদ্ধান্ত। নিরাপত্তার জন্য নাকি রিমঝিম ওই দলের সঙ্গে যুক্ত হয়েছিলেন। নেটমাধ্যমে শ্রীলেখার পোস্টের তলায় রিমঝিম অবশ্য লিখেছেন, শ্রীলেখা তাঁর বড় দিদির মতো। তাই তিনি নাম জানতে চেয়েছেন। সে প্রসঙ্গে আনন্দবাজার ডিজিটালের কাছে শ্রীলেখার মন্তব্য, ‘‘কেউ কারও বড় দিদিকে এ ভাবে প্রকাশ্যে আইনি পদক্ষেপের হুমকি দেয় না।’’

রাজনৈতিক মতাদর্শ আলাদা হলেও ইন্ডাস্ট্রিতে দুই ‘মিত্র’র মিত্রতা বহুদিনের। এ দিকের ঘটনায় সেখানেও কি ধরবে চিড়? এই বিষয়ে রিমঝিম বললেন, “ব্যক্তিগত সম্পর্ক শুধু যে শ্রীলেখাদি’র সঙ্গে তা তো নয়, আমার দলকেও আমি ভালবাসি। সেটাও আমার ব্যক্তিগত জীবনের বাইরে নয়। সেই দলের নামে যদি এ সব অভিযোগ দেওয়া হয়ে থাকে সেক্ষেত্রে প্রমাণ না পেলে অবশ্যই দল ব্যবস্থা নেবে। শ্রীলেখাদি’র কাছে প্রমাণ থাকলে তা অবশ্যই সামনে আনুক।”

আরও পড়ুন: তৃণমূল ত্যাগীদের টিকিট, হেস্টিংসে বিজেপি দফতরে বিক্ষোভ, ভাঙা হল ব্যারিকেড

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest