কাল থেকে দৈনিক ৪ লক্ষ টিকা, ঘোষণা মুখ্যমন্ত্রীর, ১২ বছর পর্যন্ত বাচ্চার মায়েদের অগ্রাধিকার

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest

এখনও পর্যন্ত ভ্যাকসিনের ২ কোটি ডোজ দিয়েছে রাজ্য সরকার। বৃহস্পতিবার থেকে দৈনিক ৪ লক্ষ করে টিকা দেওয়া হবে। নবান্নে ঘোষণা মুখ্যমন্ত্রীর। পাশাপাশি জানালেন, টিকাকরণে অগ্রাধিকার দেওয়া হবে ১২ বছর পর্যন্ত বাচ্চাদের মায়েদের।নবান্নে এমনটাই জানালেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।তিনি জানান, অনেক পড়ুয়া ভারত বায়োটেকের কোভাক্সিন নিয়ে দেশের বাইরে যেতে সমস্যায় পড়ছে। কোভাক্সিনকে যাতে সব দেশ মান্যতা দেয় সে জন্য প্রধানমন্ত্রীকে লিখবেন বলেও জানিয়েছেন মমতা ব্যানার্জি। মুখ্যমন্ত্রী জানান, এখনও পর্যন্ত ২ কোটি ডোজ করোনার টিকা দেওয়া হয়েছে। বৃহস্পতিবার থেকে দৈনিক ৪ লক্ষ টিকা দেবে স্বাস্থ্য দফতর বলেও জানান তিনি।

আরও পড়ুন : এক সপ্তাহে তিনবার !ফের পাওয়ার-হাউসে পিকে, বাড়ছে জল্পনা, ২০২৪ এর ‘কি-পয়েন্ট’ খুঁজছে টিম শরদ ?

এদিন মমতা বলেন, ‘করোনা ভ্যাকসিনের ২ কোটি ডোজ দিয়েছে রাজ্য সরকার। ৩৩ লক্ষ সুপার স্প্রেডারকে ভ্যাকসিন দেওয়া হয়েছে।’মুখ্যমন্ত্রী মনে করিয়ে দেন, কেন্দ্র থেকে পর্যাপ্ত পরিমাণ ভ্যাকসিন পেলে, বেসরকারি ক্ষেত্রগুলিকে বেশি ভ্যাকসিন দেওয়া যেত। তিনি বলেন, ‘আমরা ৩ কোটি ভ্যাকসিন চেয়েছিলাম, কিন্তু পাইনি। ৩ কোটি ভ্যাকসিন পেলে আমরা ২ কোটি টিকা নিতাম, ১ কোটি ভ্যাকসিন বেসরকারি ক্ষেত্রে দেওয়া হত।’

মমতা বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী কোভ্যাক্সিন নেওয়ার কথা বলেছিলেন। অনেক পড়ুয়া কোভ্যাক্সিন নিয়েছেন, কিন্তু বিদেশে যেতে পারছেন না। কোভ্যাক্সিনকে যাতে সারা পৃথিবী গ্রাহ্য করে, সেই দিকটি দেখুক কেন্দ্র।’এর আগে, মুখ্যসচিব জানান, দ্বিতীয় ঢেউ এখন অনেকটাই নিয়ন্ত্রণে। তিনি বলেন, ‘রাজ্যজুড়ে ২৫০টি মাইক্রো কনটেনমেন্ট জোন করা হয়েছে। কেন্দ্রীয় সরকার নীতি বদলানোয় ভ্যাকসিনের জোগান কমেছিল।

তিনি জানিয়ে দেন, তৃতীয় ঢেউ আসার আগে শিশুদের চিকিত্‍সায় আরও জোর দেওয়া হচ্ছে। বললেন, ‘জুলাইয়ের মধ্যে শিশুদের জন্য বেডের সংখ্যা বাড়ানোর লক্ষ্য। জুলাইয়ের মধ্যে শিশুদের জন্য ১৩০০ আইসিইউ হবে। অক্সিজেন সরবরাহ বাড়ানোর জন্য চেষ্টা চালিয়ে যাওয়া হচ্ছে।’করোনা আবহে উপ-নির্বাচন নিয়েও অবস্থান স্পষ্ট করেন মুখ্যমন্ত্রী। বলেন, ‘এখন করোনা পরিস্থিতি অনেকটাই নিয়ন্ত্রণে। এখন উপনির্বাচন করতে পারলে ভাল। প্রচারের জন্য ৭ দিন দিলেই হবে।

এই প্রেক্ষিতে দীর্ঘ বিধানসভা ভোটের কারণেই যে রাজ্যে করোনা সংক্রমণ বৃদ্ধি পেয়েছে, সেই দাবিতে নিয়ে ফের একবার সরব হন মুখ্যমন্ত্রী। বলেন, ’৮ দফায় ভোটের সময় সব থেকে বেশি সংক্রমণ রাজ্যে। বিধানসভা ভোটের সময় ৩৩ শতাংশ সংক্রমণ বৃদ্ধি রাজ্যে।’

আরও পড়ুন :  আপনার আওয়াজ শুনেই এবার চার্জ হবে স্মার্টফোন, Xiaomi-র অভাবনীয় প্রযুক্তি!

 

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest