Firhad Hakim emphasized the importance of experience in the distribution of mayor in councils

KMC: ফিরহাদের হাতে অর্থ, অতীন পেলেন স্বাস্থ্য; দফতর বণ্টনে অভিজ্ঞতাকেই গুরুত্ব নয়া মেয়রের

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest

বিপুল ভোটে জিতে এবার নতুন বোর্ড গড়ে নাগরিক পরিষেবার কাজ শুরু করবে কলকাতা পুরসভা (Kolkata Municipal Corporation)। আগামী পাঁচ বছরের জন্য শহরের মেয়র হিসেবে শপথ নিয়েছেন ফিরহাদ হাকিম (Firhad Hakim)। ডেপুটি মেয়র পদে শপথগ্রহণ করেছেন অভিজ্ঞ অতীন ঘোষ (Atin Ghosh)। সেইসঙ্গে দায়িত্ব বণ্টন করে দেওয়া হয়েছে ১২ মেয়র পারিষদকে (MIC)। মূলত পুরনোদের উপরেই ভরসা রাখা হয়েছে। আগেকার বিভাগের দায়িত্বে ফেরানো হয়েছে বেশিরভাগ মেয়র পারিষদকে।

পরে বিজ্ঞপ্তি জারি করে মেয়র পারিষদদের দায়িত্বের কথা প্রশাসনিকভাবে ঘোষণা করে দেওয়া হয়েছে। মেয়র নিজের হাতে রেখেছেন জল বণ্টন, কর ও রাজস্ব, অভিযোগ, সাংস্কৃতিক বিভাগ, লাইসেন্স, কেইআইআইপি, বিল্ডিং, সেন্ট্রাল স্টোর, সম্পত্তিকর মূল্যায়ন ও আদায়, টাউন প্লানিং বিভাগ-সহ যে সমস্ত দফতরের দায়িত্ব বন্টন করা হয়নি সেগুলোও। তবে বেশকিছু দফতর মেয়র পারিষদদের কাছ থেকে নিজের হাতে নিয়ে নিয়েছেন মেয়র।

  • গত পুরবোর্ডের মতো এ বারও ডেপুটি মেয়র হয়েছেন অতীন ঘোষ। তাঁর হাতে রয়েছে স্বাস্থ্য-সহ পতঙ্গবাহিত রোগ নিয়ন্ত্রণ, জীবানুনাশক ব্যবহার, আর্কাইভ, সেন্ট্রাল মেডিক্যাল স্টোর, ভেজাল রোধ ও পুরসভার টিবি হাসপাতাল।
  • দেবব্রত মজুমদারের হাতে জঞ্জাল সাফাই ও বর্জ্য ব্যবস্থাপনা।
  • দেবাশিস কুমারের হাতে উদ্যান, খেলা, পার্কিং, বিজ্ঞাপন, হকার পুর্নবাসন স্কিম।
  • তারক সিংহের হাতে নিকাশি বিভাগ।
  •  ৫৭ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর জীবন সাহা দায়িত্ব পেয়েছেন এন্টালি ওয়ার্কশপ ও ছাপাখানা এবং গভীর নলকূপ দফতরের।
  • ৫৮ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলরসন্দীপন সাহা শিক্ষা ও তথ্য প্রযুক্তি দফতরের দায়িত্ব পেয়েছেন।

আরও পড়ুন: KMC Election 2021: নির্দল কাউন্সিলরদের আপাতত তৃণমূলে ‘নো এন্ট্রি’, জানালেন মমতা

  • স্বপন সমাদ্দারের হাতে বস্তি উন্নয়ন, পরিবেশ ও হেরিটেজ।
  • আমিরুদ্দিন ববি আগের মতোই রয়েছেন বাজার বিভাগের দায়িত্বে।
  • রাম পেয়ারে রামের হাতে ১০০ দিনের কাজের দফতর। গত পুরবোর্ডেও এই সব কাউন্সিলরেরা মেয়র পারিষদ দফতরের দায়িত্বে ছিলেন।
  • ১৩০ নম্বর ওয়ার্ড থেকে জিতে আসা বিদায়ী পুরবোর্ডের মেয়র পারিষদ অভিজিৎকে শিক্ষা বিভাগ থেকে সরিয়ে পাঠানো হয়েছে রাস্তা ও ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগে।
  • বৈশ্বানর চট্টোপাধ্যায়ের হাতে আবাসন, আইন, পিপিপি ও কর্মিবর্গ বিভাগ গিয়েছে।
  • মিতালী বন্দ্যোপাধ্যায় দায়িত্ব পেয়েছেন সামাজির সুরক্ষা বিভাগের।  ৯৯ নম্বর ওয়ার্ড থেকে জিতে আসা মিতালীকে দিয়ে কন্যাশ্রী, স্বাস্থ্যসাথী, রূপশ্রী, খাদ্যশ্রী-সহ সামাজিক প্রকল্পগুলিকে কার্যকর করা হবে।
  • নতুন মেয়র পারিষদ ৭২ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর সন্দীপরঞ্জন বক্সী পেয়েছেন আলো ও বিদ্যুৎ দফতর।
  •  তৃণমূল কাউন্সিলরদের মুখ্যসচেতক হয়েছেন ১১০ নম্বর ওয়ার্ডের দু’বারের কাউন্সিলর বাপ্পাদিত্য দাশগুপ্ত।

আরও পড়ুন: কলকাতার ইতিহাসে প্রথম ! পুরসভার লনে পারিষদ-সহ শপথ নেবেন ফিরহাদ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest