জেলে যাওয়ার পরই অসুস্থ মদন-শোভন, ভরতি SSKM-এ, দিতে হল অক্সিজেন সাপোর্ট

সুব্রতকে হাসপাতালে আনা হলেও পরে তাঁকে জেলে ফিরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে বলে জানা গিয়েছে।
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest

নিজাম প্যালেস থেকে সোমবার রাত ১ টার পর প্রেসিডেন্সি জেলে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল নারদা কাণ্ডে গ্রেফতার হওয়া ফিরহাদ হাকিম, সুব্রত মুখোপাধ্যায়, মদন মিত্র এবং শোভন চট্টোপাধ্যায়কে। রাত সাড়ে ৩টে নাগাদ জেলের মধ্যেই অসুস্থ হয়ে পড়েন মদন এবং শোভন। তার পর তাঁদের ভর্তি করা হয় এসএসকেএম হাসপাতালের উডবার্ন ওয়ার্ডে। ওই দু’জনেই এখন হাসপাতালে ভর্তি। সুব্রতকে হাসপাতালে আনা হলেও পরে তাঁকে জেলে ফিরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে বলে জানা গিয়েছে।

দলীয় সূত্রে খবর, রাত সাড়ে তিনটে নাগাদ হঠাৎ শ্বাসকষ্ট শুরু হয় মদনের। তখনই তাঁকে নিয়ে আসা হয় হাসপাতালে। এখন তিনি উডবার্ন ওয়ার্ডের ১০৩ নম্বর ঘরে ভর্তি রয়েছেন। হাসপাতাল সূত্রে জানা গিয়েছে, অক্সিজেনের মাত্রা কমে গিয়েছিল মদনের শরীরে। তাঁকে অক্সিজেন দেওয়া হয়েছে। জেলে যাওয়ার পর শোভনও অসুস্থ বোধ করেন। উডবার্ন ওয়ার্ডের ১০৬ নম্বর ঘরে তিনি ভর্তি রয়েছেন বলে জানা গিয়েছে।

আরও পড়ুন: Narada Scam: নিজাম প্যালেসের বাইরে তৃণমূল কর্মী ও কেন্দ্রীয় বাহিনীর মধ্যে ধস্তাধস্তি, বাহিনীর দিকে ইটবৃষ্টি

দিনকয়েক আগেই করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছিলেন মদন। সদ্য করোনা-মুক্ত হয়েছেন। পরিবারের দাবি, করোনা-পরবর্তী বিভিন্ন সমস্যা আছে তাঁর। একটি সূত্রের দাবি, সোমবার সারাক্ষণ নিজাম প্যালেসে থাকার ফলে সেই সমস্যা আরও বাড়তে থাকে। অসুস্থ বোধ করতে থাকেন মদন। সংশোধনাগারে নিয়ে যাওয়ার পর মদনের অসুস্থতা আরও বাড়ে। প্রেসিডেন্সি সংশোধনাগারে হাসপাতালে ভরতির দেখা যায়, তাঁর শরীরে অক্সিজেনের মাত্রা কমে গিয়েছে। শ্বাসকষ্টজনিত সমস্যা হচ্ছে শোভনেরও। তাই দু’জনকেই অক্সিজেন সাপোর্টে রাখা হয়েছে। আপাতত দু’জনেরই শারীরিক অবস্থা স্থিতিশীল।

প্রসঙ্গত, নারদা মামলায় সোমবার সকালে ওই চারজনকে গ্রেফতার করে নিজাম প্যালেসে নিয়ে যান সিবিআই আধিকারিকেরা। গ্রেফতারির প্রতিবাদ করে সেখানে গিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও। প্রায় ছ’ঘণ্টা ছিলেন তিনি। সন্ধ্যায় সিবিআই-এর বিশেষ আদালত অন্তর্বর্তীকালীন জামিন দেয় ওই চার জনকে। কিন্তু রাতে ওই জামিনের নির্দেশ খারিজ করে দেয় কলকাতা হাই কোর্ট। তার পরই প্রেসিডেন্সি জেলে আনা হয়েছিল রাজ্যের চার হেভিওয়েট নেতাকে।

আরও পড়ুন: জামিন পাচ্ছেন না ববি-সুব্রত-মদন-শোভন,বুধবারে শুনানির আগে ঠাঁই প্রেসিডেন্সি জেলে

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest