‘জঙ্গিদের থেকেও ভয়ংকর’ দেবাঞ্জন, কসবার ভুয়ো টিকা কাণ্ডে কড়া ব্যবস্থার নির্দেশ মুখ্যমন্ত্রীর

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest

অবশেষে ভুয়ো ভ্যাকসিন কাণ্ডে মুখ খুললেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সাফ জানিয়ে দিলেন, ‘‘যারা মানুষের ক্ষতি করে, এই সরকার তাদেরকে বরদাস্ত করে না৷’’ কসবার ভেজাল ভ্যাকসিন কাণ্ডে ধৃত দেবাঞ্জন দেবকে ‘জঙ্গির থেকেও ভয়ংকর’ আখ্যা দেওয়ার পাশাপাশি এই ঘটনায় গেরুয়া শিবিরের নানাবিধ কটাক্ষেরও জবাব দিলেন মমতা৷

তাঁর কথায়, ‘‘কারও কারও কাজই হল মানুষকে বিভ্রান্ত করা৷ ওরা সেটাই করবে৷ আমরা মানুষের কাজ করে যাব৷’’ এরপরই ভুয়ো আইএএস প্রসঙ্গে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ‘‘কিছু মানুষ দেখতে সুন্দর, সেজে গুজে থাকে। প্রতারণা করে। তাদের আমি মানুষ বলে মনে করি না। অমানুষ বলেও মনে করিনা। এদের সমাজে থাকার কোনও যৌক্তিকতা নেই।’’

আরও পড়ুন: লালকেল্লা থেকে উধাও নেতাজির টুপি! কেন্দ্রের কাছে অভিযোগ প্রপৌত্র চন্দ্র বসুর

ভুয়ো টিকা-কাণ্ডের প্রসঙ্গ উঠলে দেবাঞ্জনকে নিয়ে মুখ্যমন্ত্রীকে এ দিন জনৈক সাংবাদিকের উদ্দেশ্যে বলেন, “ওর নাম বারবার বলছেন কেন? ওকে জনপ্রিয় করার কি কোনও দরকার আছে? প্রতারক হিসেবে বলবেন। তার এত বড় সাহস, ঔদ্ধত্য, অহংকার, যে সমস্ত কিছু নকল করল। এতে সরকারের কোনও ভূমিকা নেই। সরকার তো এটা করেনি। অনেকে আছে এসে বলে, এই চিটফান্ডে টাকা রাখুন। সাধারণ মানুষ যারা সহজ-সরল হয় তাঁরা রেখে দেয়। মানুষকেও বুঝতে হবে।”

মমতা বলে চলেন, “এরকম কিছু কিছু লোক আছে যারা দেখতে সুন্দর। সেজেগুজে টিপটপ থাকে। তারা প্রতারণা করে বেড়ায়। কখনও মুখ্যমন্ত্রী বা কখনও প্রধানমন্ত্রীর সই নকল করে, কখনও সরকারের সই নকল করে। ভুলে গিয়েছেন, সংসদে যখন হামলা হয়েছিল সরকারের লালবাতি লাগানো গাড়িতে তা হয়েছিল। যারা এমন কাজ করে, এদের আমি মানুষ বলে মনে করি না। অমানুষ বলেও মনে করি না। এরা মানুষের জীবন নিয়ে খেলে, জঙ্গিদের থেকেও ভয়ঙ্কর। এবং অভিযোগ কানে আসার সঙ্গে সঙ্গে কড়া সিদ্ধান্ত নিয়েছি। সিট গঠন করেছি। আমি নিজে কমিশনারের সঙ্গে বিষয়টি নিয়ে কথা বলেছি। যে যে ব্যক্তি ওর (দেবাঞ্জনের) সঙ্গে জড়িত কাউকে রেয়াত করা হবে না। আমরা সব ধরনের কঠোর পদক্ষেপ করব।”

একই সঙ্গে মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, “পুলিশ ইতিমধ্যেই তদন্ত শুরু করেছে। যারা ওই জাল ভ্যাকসিন নিয়েছিলেন, তাঁদের স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হচ্ছে। স্বাস্থ্য ভবন একটা বিশেষজ্ঞ কমিটিও গঠন করেছে। প্রত্যেকের শরীরে নজর রাখা হচ্ছে। মিমি চক্রবর্তীর শরীর নিয়ে আপনারা যেরকম সবাই চিন্তিত, আমরাও খুব চিন্তিত। তবে আমি বলল, আমার ধিক্কার জানানোর ভাষা নেই। এই ধরনের জালিয়াতদের থেকে সাবধান থাকুন।”

আরও পড়ুন: উনি দুর্নীতিগ্রস্ত লোক, জৈন হাওয়ালা কেসের চার্জশিটে নাম ছিল’ ধনখড়কে তীব্র আক্রমণ মমতার

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest