চোখের জলে, গান স্যালুটে বিদায় ফেলুদাকে, শোকবার্তা পাঠালেন শেখ হাসিনা

চল্লিশ দিন ধরে যমে-মানুষে চূড়ান্ত টানাপোড়েন। হার মানলেন সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায় (Somitra Chatterjee)। রবিবার বেলা ১২টা ১৫ নাগাদ  না ফেরার দেশে পাড়ি দিলেন ‘ফেলুদা’। চোখের জলে ভাসছেন অনুরাগীরা।

সন্ধে ৭.০৩: কেওড়াতলা মহাশ্মশানে শেষকৃত্য বর্ষীয়ান অভিনেতার।
সন্ধে ৬.৫৮: বাবাকে শেষশ্রদ্ধা জানালেন মেয়ে পৌলমী বসু। কান্নায় ভেঙে পড়লেন তিনি।
সন্ধে ৬.৪৮: রাজ্যের তরফে বর্ষীয়ান অভিনেতাকে দেওয়া হল গান স্যালুট।
সন্ধে ৬.৩৮: কেওড়াতলা মহাশ্মশানে পৌঁছল সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের দেহ। শেষ যাত্রায় হাজির বিমান বসু, সূর্যকান্ত মিশ্র-সহ বিশিষ্ট জনেরা।
বিকেল ৫.৩২: পদযাত্রায় সামিল মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।
বিকেল ৫.২৭: রবীন্দ্রসদন থেকে কেওড়াতলা মহাশ্মশানের পথে সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের দেহ।

আরও পড়ুন :  মুখ্যমন্ত্রী পদে নীতীশের নামেই শিলমোহর NDA’র, উপমুখ্যমন্ত্রী পদ নিয়ে বিহার বিজেপিতে অশান্তি

বিকেল ৫.০৯: সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়কে শেষ শ্রদ্ধা জানাতে রবীন্দ্রসদনে পৌঁছলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। পৌঁছেছিলেন দেব-রুক্মিনী-রাজ চক্রবর্তী, জুন মালিয়ারা।

বিকেল ৪.৫১: সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের মৃত্যুতে শোকস্তব্ধ পরিচালক শিবপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়। তিনি বলেন, “বাংলা সিনেমা সত্যিই অভিভাবকহীন হল। বাংলা সিনেমার শেষ লেজেন্ড চলে গেল।”
বিকেল ৪.৫০: “অভিনয় জগতে তৈরি হল বিরাট শূন্যতা”, সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের মৃত্যুতে শোকবার্তা বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার।

‘যা কিছু আমার, যা কিছু আমি… সবটাই বাঙালির দেওয়া। শেষদিন পর্যন্ত যেন এঁদের নমস্কার করে যেতে পারি’, এই কথা বারেবারে ধ্বনিত হয়েছে সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের কন্ঠে। আজ তাঁর শেষযাত্রায় এ শহর শুধুই তাঁর।

আরও পড়ুন : কলকাতার রাস্তায় এঁকে বেঁকে পথচলা চলা শুরু করল শিশুদের লাইব্রেরি, বিশ্বে বেনজির !