বিজেপির ‘যশ’ লাভ! গেরুয়া শিবিরে যোগ দিলেন টলিপাড়ার আরও ৩

তৃণমূলের তারকা সাংসদ নুসরতের সঙ্গে যশের সম্পর্ক নিয়ে কিছুদিন ধরেই গুঞ্জন চলছে।

জল্পনার অবসান ঘটিয়ে গেরুয়া শিবিরে নাম লেখালেন অভিনেতা যশ দাশগুপ্ত। তাঁর পাশাপাশি বুধবার বিজেপি নেতা কৈলাস বিজয়বর্গীয় ও মুকুল রায়ের হাত থেকে বিজেপির পতাকা তুলে নিলেন পাপিয়া অধিকারী, সৌমিলি বিশ্বাস, শর্মিলা ভট্টাচার্য-সহ টলিউডের আরও ৩ অভিনেত্রী। কয়েকদিন আগে পিতৃবিয়োগ হয়েছে সৌমিলির। সেই শোক কাটিয়ে এদিন বিজেপির মঞ্চে হাজির হন তিনি।

ভোট ঘোষণার সময় যতই এগোচ্ছে, ততই সরগরম টলিপাড়া। কৌশানী মুখোপাধ্যায়, সৌরভ দাস, রণিতা দাস, সৌপ্তিক চক্রবর্তী, শ্রীতমা ভট্টাচার্যর মতো পর্দার চেনা অভিনেতারা ইতিমধ্যেই যোগ দিয়েছেন তৃণমূলে। আবার তৃণমূলকে বিদায় জানিয়ে বিজেপির হাত ধরে সক্রিয় রাজনীতিতে প্রবেশ করেছেন অভিনেতা রুদ্রনীল ঘোষ। যোগ দিয়েছেন ছোটপর্দার পরিচিত মুখ কৌশিক রায়ও। শাসকদলের মতো তারকাদের সামনে রেখেই প্রচারে ‘ট্রাম্প কার্ড’ ফেলতে চাইছে বিজেপিও। আর বুধবার সেই লক্ষ্যেই আরও একধাপ এগোল তারা।

এদিন বিজেপিতে যোগ দিয়ে যশ বলেন, “রাজনীতি মানেই খারাপ কিছু নয়। আমার মনে হয়, পরিবর্তন শুধু চাইলেই হয় না, মুখে পরিবর্তনের কথা বললেই হয় না। বৃহত্তর স্বার্থে ময়দানে নেমে কাজ করতে হয়। কোনও পদের কথা চিন্তা করে যোগ দিইনি। বিজেপির সঙ্গে আমার আদর্শ মেলে। তাই এই দলের হয়ে প্রাণ খুলে কাজ করতে পারব। যুবসমাজের সঙ্গে কাজ করতে চাই আমি।”

আরও পড়ুন: আর লড়তে চান না ভোটে, মমতার কাছে ‘ছুটি’ চাইলেন চিরঞ্জিৎ

প্রসঙ্গত, কয়েকদিন আগে রাজ্যের মন্ত্রী ব্রাত্য বসুর ছবি ডিকশনারি’র প্রিমিয়ারে দেখা গিয়েছিল যশকে। সেই ছবির মুখ্য চরিত্রে রয়েছেন নুসরত। তৃণমূলের তারকা সাংসদ নুসরতের সঙ্গে যশের সম্পর্ক নিয়ে কিছুদিন ধরেই গুঞ্জন চলছে। এই প্রেক্ষিতে একুশের ভোটের আগে গেরুয়া শিবিরে নাম লেখালেন যশ। নুসরতের বিপরীত দলে।

বিজেপির কেন্দ্রীয় পর্যবেক্ষক কৈলাস ছাড়াও এই যোগদান সভায় উপস্থিত ছিলেন বিজেপির সর্বভারতীয় সহ সভাপতি মুকুল রায়, রাজ্যসভার সাংসদ স্বপন দাশগুপ্ত প্রমুখ। মুকুল রায়ের কথায়, ‘যাত্রা, সিনেমা জগৎ জনমনে ব্যাপক প্রভাব ফেলে। আমি নিজে এটা প্রত্যক্ষ করেছি।’ স্বপন দাশগুপ্ত বলেন, ‘সংস্কৃতি জগতের মানুষের বিজেপিতে এই যোগদান দলকে আরও শক্তিশালী করল। বলেন, যে ধরনের সংস্কার, সংস্কৃতি আমরা আনতে পারি তাতে বড় অবদান থাকবে সাংস্কৃতিক জগতের এই মানুষদের।’

আরও পড়ুন: স্বাধীন ভারতে প্রথমবার কোনও মহিলার প্রাণদণ্ডের আদেশ, ফাঁসির দড়ি আসছে বক্সার থেকে