বিয়ের পর পার্টনারকে সবচেয়ে বেশি চিট করে এই দেশের কাপল

স্টাডিতে এটাও জানা গিয়েছে, গোটা বিশ্বে লক ডাউন চললেও প্রেম এবং চিট করার বহু ঘটনা সামনে এসেছে।
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest

সাম্প্রতিক সমীক্ষা বলছে বিয়ের পর পার্টনারকে সবচেয়ে বেশি চিট করে আয়ারল্যান্ডের কাপলরাই। কানাডার একটি বিবাহিতদের ডেটিং সাইটের সমীক্ষায় ইঠে এসেছে এমনই তথ্য। স্টাডি বলছে, প্রতি ৫ জনের মধ্যে ১ (২০ শতাংশ) জন তাঁর সঙ্গীর সঙ্গে চিট করে।

চিট করার বিষয়ে দ্বিতীয় স্থানেই রয়েছে জার্মান কাপলরা। এ দেশের ১৩ শতাংশ মানুষ স্বীকার করেছেন তাঁরা সঙ্গীকে চিট করেন। গ্লোবাল স্টাডিতে তিন নম্বরে রয়েছে কলাম্বিয়া (৮ শতাংশ)। চতুর্থ ও পঞ্চম স্থানে রয়েছে  যথাক্রমে ফ্রান্স (৬ শতাংশ) এবং ইংল্যান্ড (৫ শতাংশ)।

এই ডেটিং অ্যাপের সার্ভেতে অনেকেই জানিয়েছেন, যদি তাঁরা পার্টনারের অ্যাফেয়ারের বিষয়ে জানতে পারেন, তা হলে তাঁদের ক্ষমা করে দেবেন। স্টাডি আরও বলছে, এ ক্ষেত্রে মহিলাদের তুলনায় পুরুষরা ক্ষমা করার বিষয়ে বেশি সম্মত হয়েছেন।

স্টাডি আরও বলছে, অ্যাফেয়ারের বিষয়ে জানার পর কোনও মহিলা তাঁর সঙ্গীকে আর আগের মতো বিশ্বাস করতে পারেন না। ৮০ শতাংশ পুরুষ এবং ৮৫ শতাংশ মহিলা তাঁদের সঙ্গীকে আগের অ্যাফেয়ারের জন্য ক্ষমা করে দিয়েছেন।

আরও পড়ুন: সকালে নাকি রাতে…কোন সময়ে যৌন সম্পর্ক সুস্বাস্থ্যের কথা বলে?

সার্ভেতে জিজ্ঞাসা করা হয়েছিল, পার্টনারকে অ্যাফেয়ারের জন্য ক্ষমা করবেন কিনা। তাতে ৮৬ শতাংশ পুরুষ হ্যআঁ বলেছেন। যেখানে ৮২ শতাংশ মহিলা না বলেছেন। এর কারণ হিসাবে মনোবিদরা বিভিন্ন কারণ উল্লেখ করেছেন।

মনোবিদরা জানাচ্ছেন, অ্যাফেয়ারের বিষয়ে জানলে পুরুষরা সাধারণত এটা জানার চেষ্টা করেন সঙ্গী শারীরিক ভাবে কতটা জড়িত রয়েছেন। যেখানে মহিলাদের জানার বিষয় ছিল, পার্টনার মানসিক ভাবে সেই মহিলার সঙ্গে কতটা জড়িয়ে রয়েছেন।

এই দুই ক্ষেত্রে জড়িত থাকলে পুরুষ এবং মহিলারা পার্টনারকে ক্ষমা করতে পারেন না। এমনটাই জানাচ্ছেন মনোবিদরা। স্টাডিতে এটাও জানা গিয়েছে, গোটা বিশ্বে লক ডাউন চললেও প্রেম এবং চিট করার বহু ঘটনা সামনে এসেছে।

সার্ভেতে অনেকে জানিয়েছে, এক মাসের মধ্যে ২ জন ব্যক্তির সঙ্গে শারারীক সম্পর্ক করেছেন। আবার অনেকে সিক্রেট পার্টনারের সঙ্গে কোনও রকম শারীরিক সম্পর্ক রাখতে চাননি। এই স্টাডি ওই সাইটের ৩০০০ সদস্যদের উপর করা হয়েছে।

আরও পড়ুন: SEX নিয়ে এই ৭ প্রশ্ন সবচেয়ে বেশি সার্চ হয় গুগলে

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest