আজ ফোকাস-এ

দিল্লির হিংসা থেকে নজর ঘোরাতেই কি করোনা নিয়ে মাতামাতি করছে কেন্দ্র, প্রশ্ন তুললেন মমতা

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest

কলকাতা: দিল্লির দাঙ্গা থেকে নজর ঘোরাতেই করোনাভাইরাস সংক্রমণ নিয়ে প্রচারে মেতেছে কেন্দ্রে আসীন বিজেপি নেতৃত্বাধীন এনডিএ সরকার। বুধবার এমনই অভিযোগ করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

এ দিন দক্ষিণ মালদার এক জনসভায় মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ‘দিল্লিতে কতজন মারা গিয়েছেন, তার সঠিক হিসেব কেউ জানেন না। আর মানুষ যাতে আসল করোনা (দিল্লির দাঙ্গা) ভুলে যায়, তাই ওরা টিভি-র সাহায্যে করোনাভাইরাস নিয়ে হুজুগ তৈরি করছে। শুধু করোনা করোনা করছে। যাতে মানুষ না প্রশ্ন করে দিল্লির হিংসায় কত জন মারা গিয়েছেন এবং কী ভাবে সেখানে সুবিচার পাওয়া যাবে।’

আরও পড়ুন: ভারতে করোনা আক্রান্ত বেড়ে ২৮,আতঙ্কিত হতে নিষেধ কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রীর

বুধবার মালদহের ছোট সুজাপুরে ছিল তৃণমূলের বুথভিত্তিক কর্মিসভা। সেই সভায় যোগ দিয়ে দিল্লির সংঘর্ষ নিয়ে বিজেপিকে তোপ দাগেন মুখ্যমন্ত্রী। মমতা  বলেন, ‘‘পুরো গুজরাতের মডেল। গুজরাতে যা করেছিল, তারই পুনরাবৃত্তি হয়েছে দিল্লিতে। এটা দাঙ্গা নয়, আমি মনে করি এটা একটা গণহত্যা। জীবন্ত মানুষকে পুড়িয়ে মেরেছে। শিশুর সামনে তাঁর বাবা, মা ভাই বোনকে কেড়ে নিয়েছে। আজও মানুষ জানে না, কত জন মারা গিয়েছে। সরকারি ভাবে বলছে ৫০-৫৫। কিন্তু আমাদের কাছে খবর আছে, অনেক মানুষ নিখোঁজ রয়েছেন।’’

মঙ্গলবার থেকেই দেশে করোনা আতঙ্ক জাঁকিয়ে বসেছে। বুধবার তা আরও বেড়েছে। ইতালির একটি পর্যটক দলের ১৬ জন-সহ মোট আক্রান্তের সংখ্যা ২৫।  নরেন্দ্র মোদী, অমিত শাহেরা ঘোষণা করেছেন, হোলির উৎসবে যোগ দেবেন না। বিশেষজ্ঞরা জমায়েত-সমাবেশে যোগ দিতে নিষেধ করেছেন বলেই এই সিদ্ধান্ত, জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। কিন্তু মমতার অভিযোগ, পরিকল্পিত ভাবেই করোনা নিয়ে এত ঢাক ঢোল পেটানো হচ্ছে।

আরও পড়ুন: করোনা আতঙ্ক : সংক্রমণের আশঙ্কায় হোলি অনুষ্ঠানে যোগ দেবেন না প্রধানমন্ত্রী

করোনার প্রসঙ্গে মমতার কটাক্ষ, ‘‘করোনা বেরিয়েছে সবে। বাংলায় কেউ আক্রান্ত হয়নি। কেউ আক্রান্ত হোক, আমরা চাইও না। কিন্তু দিল্লির ঘটনা যাতে মানুষ মনে না রাখে তাই এখন করোনা করোনা বলে টিভির লোককে দিয়ে আসল ঘটনা ঘুরিয়ে দিতে চাইছে। যাতে লোকে প্রশ্ন না করে, এত লোক কী ভাবে মারা গেল।’’

এ দিনের সভায় মমতা বলেন, ‘বাংলায় কাউকে ইঁদুর কামড়ালেও ওরা সিবিআই তদন্ত চায়। আর দিল্লিতে এত জন খুন হওয়ার পরেও বিচার বিভাগীয় তদন্ত হয় না। আমরা চাই, সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতির নেতৃত্বে দিল্লির গণহত্যা নিয়ে বিচার বিভাগীয় তদন্ত হোক।সাধারণ মানুষকে সাবধান করে মমতা বলেন, ‘‘বাংলায় কোনও ভাগাভাগি নেই। কোনও দাঙ্গা নেই। যারা দাঙ্গার নামে উস্কানি দেবে, তাদের থেকে সাবধান থাকবেন। কিছু লোক বাইরে থেকে আসবে, উস্কানি দিয়ে দাঙ্গা বাধিয়ে চলে যাবে। কিন্তু আপনার ক্ষতি হলে কেউ এগিয়ে আসবে না। আমরাই পাশে থাকব।’’

ছোট সুজাপুরের সভা থেকে নাগরিকত্ব ইস্যুতেও এ দিন ফের তোপ দেগেছেন মুখ্যমন্ত্রী। তিনি বলেন, বাংলায় সিএএ (সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন), এনআরসি (জাতীয় নাগরিকপঞ্জি), এনপিআর (জাতীয় জনসংখ্যা পঞ্জি) করতে দেব না। বাংলা থেকে কোনও মানুষের অধিকার কেউ কেড়ে নিতে পারবে না। সিটিজেনশিপ তো সারা বছরই চলে। যে পায়নি সে আবেদন করে। বিজেপির নেতাদের জিজ্ঞেস করুন, তোমার সিটিজেনশিপ কোথায়?’’

     মালদহের সভায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

https://www.facebook.com/MamataBanerjeeOfficial/videos/1043509466022483/

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest