করোনা মোকাবিলার প্রস্তুতি দেখতে হাসপাতালে ‘সারপ্রাইজ ভিজিট’ মমতার, CP-কে নিয়ে শহর পরিদর্শন

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest

কলকাতা: করোনাভাইরাস সংক্রমণের চিকিৎসায় কতটা প্রস্তুত কলকাতার সরকারি মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালগুলি। দেখতে মঙ্গলবার সরেজমিনে পরিদর্শনে বেরোলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এদিন নবান্নে সাংবাদিক বৈঠকে তিনি ‘সারপ্রাইজ ভিজিটে’ বেরোবেন বলে জানান মুখ্যমন্ত্রী। এর পরই কলকাতার পুলিশ কমিশনার অনুজ শর্মাকে সঙ্গে নিয়ে একে একে আরজি কর মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতাল, কলকাতা মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতাল, নীলরতন সরকার মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপালাত ও এসএসকেএম হাসপাতাল পরিদর্শন করেন তিনি।

আরও পড়ুন: করোনার পর এবার নতুন শত্রু হানটাভাইরাস! চিনে মৃত ১

সেখানে মুখ্যমন্ত্রী হাসপাতলের চিকিৎসকদের সঙ্গে কথা বলেন। জানতচে চান করোনা পরিস্থিতির মোকাবিলা করতে ওই হাসপাতাল এবং সেখানকার চিকিৎসকরা কতটা তৈরি। সেই সঙ্গে তিনি হাসপাতালের চিকিৎসকদের কাছে জানতে চান কী কী জিনিসের অভাব রয়েছে। মুখ্যমন্ত্রী নিজেই চিকিৎসকদের জন্য হ্যান্ড স্যানিটাইজার এবং মাস্ক দেন। জানান প্রয়োজনীয় আরও মাস্ক এবং অন্যন্য সরঞ্জাম দ্রুত পৌঁছবে হাসপাতালে।

আর জি কর থেকে সোজা মুখ্যমন্ত্রী চলে যান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে। সেখানেও তিনি হাসপাতালের সুপার এবং অন্যান্য চিকিৎসকদের সঙ্গে কথা বলেন। আর জি করের মতো এখানেও চিকিৎসকদের হাতে বাক্স ভর্তি হ্যান্ড স্যানিটাইজার এবং মাস্ক দেন। দুই হাসপাতালেই তিনি খোঁজ নেন চিকিৎসক  এবং নার্সদের জন্য হাসপাতালের কাছে হোটেল বা লজে থাকার বন্দোবস্ত করা হয়েছে কী না? এ  দিন সকালেই রাজ্য স্বাস্থ্য দফতরের পক্ষ থেকে নির্দেশিকা জারি করা হয় যে সমস্ত চিকিৎসক এবং নার্স যাঁরা করোনা চিকিৎসার সঙ্গে যুক্ত তাঁদেরকে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ কাছাকাছি হোটেলে থাকার ব্যবস্থা করবে। তাঁদের হোটেল থেকে কর্মস্থলে নিয়ে যাওয়া এবং ফের হোটেলে পৌঁছে দেওয়ার ব্যবস্থা করা হবে।

আরও পড়ুন: ‘বাবুদের অসুখ’ বলে করোনাকে হ্যাটা করবেন না! আক্রান্ত হতে পারে ৩০ কোটি

মেডিক্যাল কলেজ থেকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় চলে যান এন আর এস মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে। সেখানে মুখ্যমন্ত্রী হাসপাতালের ডেপুটি সুপার এবং অন্যান্য চিকিৎসকরদের সঙ্গে কথা বলেন। খোঁজ নেন ওই হাসপাতালে করোনা আক্রান্ত সন্দেহে ভর্তি রোগীদের অবস্থা সম্পর্কে। সেখানে হাসপাতালের ডেপুটি সুপার মুখ্যমন্ত্রীকে জানিয়েছেন যে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে যে ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে তাঁর সহকর্মী এনআরএস হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন করোনাভাইরাসের উপসর্গ নিয়ে। তবে চিকিৎসকরা মুখ্যমন্ত্রীকে জানিয়েছেন যে ওই রোগীর অবস্থা স্থিতিশীল। এন আর এস থেকে এসএসকেএম হাসপাতালের দিকে রওনা দেন।

মুখ্যমন্ত্রী আজ আরও বলেন, ‘বাজারে গিয়ে ভিড় করবেন না। এতে সংক্রমণ ছড়াবে। দূরত্ব রেখে বাজারে কেনাকাটার পরামর্শ দেন তিনি। এছাড়াও অকারণে বাড়িতে জিনিস মজুতে নিষেধ করেছেন তিনি।’ লকডাউনের সময় নাগরিকদের বাড়িতে থাকার পরামর্শ দেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।এদিন নবান্নে সাংবাদিক বৈঠক থেকে আজ ‘প্রচেষ্টা’ নামের একটি প্রকল্প ঘোষণা করেন মুখ্যমন্ত্রী। এই প্রকল্পে লকডাউনে ক্ষতিগ্রস্ত দিনমজুরদের মাসে ₹১ হাজার অনুদান দেবে রাজ্য সরকার।

আরও পড়ুন: আশার আলো! করোনার কেন্দ্র চীনের উহান শহর থেকে লকডাউন উঠে যাচ্ছে ৮ই এপ্রিল

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest