হাসপাতালের তিনতলা থেকে মরণঝাঁপ! ঘটনাস্থলেই চিকিৎসকের মৃত্যু

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest

হাসপাতালে তিন তলা থেকে ঝাঁপ দিয়ে আত্মহত্যা করলেন চিকিৎসক। সোমবার সকালে এই ঘটনাটি ঘটেছে চেন্নাইয়ের এক সরকারি মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে। আত্মহত্যা করেন জুনিয়র চিকিৎসক।

সূত্রের খবর, ওই জুনিয়র চিকিৎসক কোভিড রোগীদের চিকিৎসার দ্বায়িত্বে ছিলেন। এই ঘটনায় কয়েকজন চিকিৎসকের তরফ থেকে জানা গিয়েছে, অতিরিক্ত কাজের চাপের জেরে অবসাদগ্রস্ত হয়ে পড়েছিলেন কান্নান।

যদিও পুলিশ পুরো বিষয়টি অস্বীকার করেছে। ঘটনার তদন্ত চলছে বলে জানিয়েছে চেন্নাই পুলিশ। যদিও তাঁর মৃত্যুর পর কোনও সুইসাইট নোট পাওয়া যায়নি।অবসাদ থেকে আত্মহত্যা? নাকি এর পিছনে অন্য কোনও কারণ রয়েছে তা নিয়ে তদন্ত করছে পুলিশ।

আরও পড়ুন : ভারতে করোনার টিকা আনার মতো সময় এখনও হয়নি : স্বাস্থ্যমন্ত্রী

ওই হাসপাতালের কয়েকজন চিকিৎসক জানিয়েছেন, খুব শান্ত স্বভাবের মানুষ ছিলেন মৃত ওই চিকিৎসক। সোমবার রাত দেড়টা পর্যন্ত তাঁকে হাসপাতালে ডিউটি করতে দেখা গিয়েছে। এর পর হস্টেলে ফিরে আসেন। ভোর চারটে নাগাদ তাঁর দেহ পড়ে থাকতে দেখা যায় হাসপাতাল চত্বরে।

হস্টেলের রুমের সোজাসুজিতেই তাঁর নিথর দেহ পড়ে থাকতে দেখেন চিকিৎসকরা। এর পর পুলিশে খবর দেওয়া হয়। প্রাথমিকভাবে পুলিশের ধারণা ঝাঁপ দিয়েই তিনি আত্মহত্যা করেছেন। আপাতত তাঁর দেহ ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে।

তাঁর পরিবারকে খবর দেওয়া হয়েছে। এই ঘটনায় ১৭৪ ধারায় অস্বাভাবিক মামলা রুজু করেছে পুলিশ। গোটা দেশজুড়ে আতঙ্ক সৃষ্টি করেছে মারণ করোনা ভাইরাস। যার ফলে চাপ সৃষ্টি হয়েছে স্বাস্থ্য পরিষেবার উপরেও।করোনাকালে চিকিৎকের আত্মহত্যায় প্রশ্নের মুখে পড়ছে হাসপাতাল।এর আগে পশ্চিমবঙ্গেও আরজিকর হাসপাতালে ছাদ থেকে ঝাঁপ দিয়ে আত্মহত্যা করেন এক জুনিয়র চিকিৎসক।

আরও পড়ুন : “জাটদের চেহারা আছে বুদ্ধি কম, সেটা আছে বাঙালিদের,” মন্তব্যে ক্ষমা চাইলেন বিপ্লব দেব

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest