করোনা চিকিৎসায় ভারতে ব্যবহার হবে Remdesivir, অনুমোদন ওষুধ নিয়ন্ত্রক সংস্থার

নয়াদিল্লি: সীমিত আপৎকালীন প্রয়োজনের জন্য অ্যান্টি-ভাইরাল ড্রাগ রেমডিসিভির ব্যবহার করার ছাড় দিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার। কোভিড চিকিৎসার জন্য মার্কিন সংস্থা গিলিয়াড সায়েন্সেসকে এই অনুমতি দেওয়া হয়েছে । 

সংবাদ মাধ্যমকে এক কর্মকর্তা জানিয়েছেন ,” দেশের করোনভাইরাস প্রাদুর্ভাবের কারণে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। রেমডিসিভির ইনজেকশন আকারে পাওয়া যাবে এবং হাসপাতালের ব্যবহারের জন্য ডাক্তারের প্রেসক্রিপশন দেখিয়েই বিক্রি করা হবে।”

আরও পড়ুন: আগামিকাল বিকেলে আছড়ে পড়বে নিসর্গ, জেনে নিন স্পিড কত

দেশে যে ভাবে কোভিড পরিস্থিতি সংকটজনক হয়ে উঠছে, তার জন্যেই জরুরি ভিত্তিতে এই ছাড়পত্র মার্কিন সংস্থাকে দেওয়া হয়েছে বলে সূত্রের খবর। যারা করোনা আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি, তাদের ক্ষেত্রে  সর্বোচ্চ পাঁচদিনের জন্য এই ওষুধ ব্যবহার করা যেতে পারে। তবে বিভিন্ন সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে এই ওষুধ ব্যবগারের ক্ষেত্রে। 

মার্কিন যুক্তরাষ্টের ফুড অ্যান্ড ড্রাগ অ্যাডমিনিস্ট্রেশন (এফডিএ) পরীক্ষাগারে পরিক্ষা করার পর, কোভিড -১৯-এ আক্রান্ত শিশু এবং বড়দের ক্ষেত্রে চিকিৎসার জন্য অ্যান্টিভাইরাল এই ড্রাগ জরুরি ব্যবহারের অনুমোদন দিয়েছে।

ইনজেকশনের মাধ্যমে শরীরে প্রবেশ করে রেমডিসিভির। এটি এখন বাজারে বিক্রির ছাড়পত্র দিয়েছে স্বাস্থ্যমন্ত্রক। কিন্তু প্লেসক্রিপশন ছাড়া মিলবে না ওষুধ। তবে দশ দিন নয়, পাঁচ দিনের জন্য সর্বোচ্চ এই ড্রাগ ব্যবহার করা যেতে পারে।

দুই ভারতীয় সংস্থা সিপলা ও হেটেরো ল্যাবস ভারতে রেমডিসিভির বানিয়ে বিক্রি করতে চায়। তাদের অবশ্য এখনও ছাড়পত্র দেওয়া হয়নি।ভারতে কোনও ড্রাগ ব্যবহারের আগে ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল করতে হয়। কিন্তু সময়ের অভাবে এখানে সেটি করা হয়নি। মহামারী বা জাতীয় বিপর্যয়ের ক্ষেত্রে আইনে সেই সুযোগ আছে। এখনও পর্যন্ত হওয়া রিসার্চে দেখা গেছে খুব অসুস্থ রোগীর ক্ষেত্রেও এই অসুধে লাভ মিলেছে। সেই কারণেই ব্যবহার করার সিদ্ধান্ত হল রেমডিসিভির। 

আরও পড়ুন: অসমের বরাক উপত্যকায় ভূমিধসে চাপা পড়ে মৃত ২০, আহত বহু

Gmail