জাকিরের বিরুদ্ধে রেড নোটিশ খারিজ ইন্টারপোলের, মুখ পড়ল মোদী সরকারের

জাকির নাইকের বিরুদ্ধে রেড নোটিশ জারি করার অনুরোধ খারিজ করল ইন্টারপোল। এই নিয়ে ভারত সরকারের তৃতীয়বারের অনুরোধ খারিজ করে দিল ইন্টারপোল।

জাকির নাইকের বিরুদ্ধে রেড নোটিশ জারি করার অনুরোধ খারিজ করল ইন্টারপোল। এই নিয়ে ভারত সরকারের তৃতীয়বারের অনুরোধ খারিজ করে দিল ইন্টারপোল। আর তাতেই প্রবল অস্বস্তিতে পড়ল নরেন্দ্র মোদীর সরকার। এই লাল নোটিশ জারি করার অনুরোধ করা হয়েছিল ইসলামিক ধর্মপ্রচারকের বিরুদ্ধে। আর্থিক দুর্নীতি এবং ঘৃণ্য মন্তব্যের জেরে এই অনুরোধ করা হয়েছিল। কিন্তু তা খারিজ হয়ে যাওয়ায় বেশ অস্বস্তিতে পড়েছে কেন্দ্রীয় সরকার।

আরও পড়ুন: প্রয়াত ‘শ্যুটার দাদি’, শোকপ্রকাশ করলেন ‘সান্ড কি আঁখ’ তারকারা

ইন্টারপোল সূত্রে খবর, ধর্মীয় শিক্ষা দিয়ে অর্থ রোজগার করা এবং তা অপ্রাসঙ্গিক জায়গায় খরচ করাকে আর্থিক দুর্নীতি বলা যায় না। এই সিদ্ধান্তে পৌঁছেছে ইন্টারপোল। আর তাই বিতর্কিত ইসলামিক ধর্মপ্রচারকের বিরুদ্ধে লাল নোটিশ জারির অনুরোধ খারিজ করা হয়েছে। এমনকী এনআইএ যে তথ্যপ্রমাণ পেশ করেছিল ইন্টারপোলের সামনে তাও ফুৎকারে উড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। আর বলা হয়েছে, ধর্মীয় বক্তব্য রাখার জন্য আর্থিক দান নেওয়াকে অপরাধ বলে গণ্য করা যায় না।

এই বিষয়ে জাকির নাইকের  আইনজীবী এস হরি হারাণ জানান, ইন্টারপোল যে সিদ্ধান্ত নিয়েছে তার কপি হাতে পেয়েছি। এই বিষয়ে অবশ্য এনআইএ’‌র মুখপাত্র কোনও প্রতিক্রিয়া জানায়নি। তবে এনআইএ সূত্রে খবর, আমরা ইন্টারপোলের পক্ষ থেকে প্রতিক্রিয়ার অপেক্ষা করছি। তারপর তা পরীক্ষা করে ফের অনুরোধ জানাবো ইন্টারপোলকে। এনআইএ’‌র সমস্ত নথি খতিয়ে দেখে ইন্টারপোলের জেনারেল সেক্রেটারিয়েট ৫ ফেব্রুয়ারি সার্টিফিকেট দিয়ে জানিয়ে দেয়, জাকির নায়েককে ইন্টারপোল নোটিশ জারি করার কোনও বিষয় দেখা যাচ্ছে না।

অনেকে বলছেন গেরুয়া শিবির মরিয়া হয়ে উঠেছে। মুসলিমদের কাঠগড়ায় তুলে সবার চোখ অন্যদিকে ঘোরাতে চাইছে মোদী সরকার। দেশজুড়ে মোদী বিরোধী একটা হাওয়া তৈরী হয়েছে। যেহেতু মোদী নিজেকে এককভাবে সরকারের সমার্থক করে তুলেছিলেন, সে কারণেই দেশবাসী তার ওপর এতটা অসন্তুষ্ট । এমন পরিস্থিতিতে মোদীর দল চেয়েছিল জাকিরকে নিয়ে অপপ্রচারচালাতে। প্রথম দফায় কেন্দ্রের মধ্যে তবলীগকে নিয়ে যেমনটা হয়েছিল। কিন্তু ইন্টারপোল এবার সে গুড়ে বালি ফেলে দিল।

আরও পড়ুন: মৌখিক পর্যবেক্ষণ যেন খবর না হয়, ‘ইমেজ’ বাঁচাতে সংবাদমাধ্যমকে বেড়ি পরাতে চায় নির্বাচন কমিশন