TRP রেটিংয়ে হেরাফেরি:BARC-এর প্রাক্তন CEO-কে লক্ষ লক্ষ টাকা দিয়েছেন অর্ণব : মুম্বই পুলিশ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest

রিপাবলিক ভারত চ্যানেলের টিআরপি কেলেঙ্কারিতে নয়া মোড়! চ্যানেলের রেটিং বাড়ানোর জন্য অনৈতিকভাবে BARC-এর প্রাক্তন CEO পার্থ দাশগুপ্তকে লক্ষ লক্ষ টাকা ঘুষ দেওয়ার অভিযোগ উঠল অর্ণব গোস্বামীর (Arnab Goswami) বিরুদ্ধে। তাও আবার একবার নয়, একাধিকবার বার্ক-প্রধান ‘ঘুষ’ নিয়েছেন বলে অভিযোগ।

সংশ্লিষ্ট মামলায় সোমবার এক ম্যাজিস্ট্রেট কোর্টে রিপাবলিক টিভির সম্পাদক অর্ণব গোস্বামীর বিরুদ্ধে ‘রিমান্ড নোট’ জমা দেয় মুম্বই পুলিশ। যে অভিযোগনামায় দাবি করা হয়েছে যে, নিজস্ব পদমর্যাদার অপব্যবহার করে পার্থ দাশগুপ্ত একাধিক চ্যানেলে টিআরপি হেরফের করেছেন।

আরও পড়ুন: ‘সৌরভের নেতৃত্বে একুশের ময়দানে ছক্কা হাঁকাবে বিজেপি’ !!!

সোমবার আদালতে নিজেদের বিবৃতিতে এমনটাই জানিয়েছে উদ্ধব সরকারের পুলিশ বাহিনী। এদিন পার্থ দাশগুপ্তের রিম্যান্ডের প্রতিলিপিতে এই দাবি করে মুম্বই পুলিশ।

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, পুলিশ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেটকে জানায়, ‘যখন দাশগুপ্ত বর্ডকাস্ট অডিয়েন্স রিসার্চ কাউন্সিলের সিইও ছিলেন তখন অর্ণব গোস্বামী এবং এই মামলার অপর অভিযুক্তরা বেআইনিভাবে রিপাবলিক ভারত (হিন্দি নিউজ চ্যানেল) ও রিপাবলিক টিভি ( ইংরাজি নিউজ চ্যানেল)-এর টিআরপি বাড়ানোর ষড়যন্ত্র রচনা করেছে। আর এই কাজ করবার জন্য একাধিক বার পার্থ দাশগুপ্তকে লক্ষ লক্ষ টাকা দিয়েছেন অর্ণব গোস্বামী, তদন্তে সেই তথ্য-প্রমাণ উঠে এসেছে’।

পার্থ দাশগুপ্তের ওয়াডালার বাড়িতে হানা দিয়ে ৫৯টি রূপোর বালা, ৬২ জোড়া কানের দুল, ৬টি আংটি, ১২টা নেকলেস উদ্ধার করেছে পুলিশ। জানা গিয়েছে এই গহনার মূল্য প্রায় ২.২২ লক্ষ টাকা। কিছু প্রপার্টিও সিল করে দেওয়া হয়েছে। এছাড়া পার্থ দাশগুপ্তের একটি ১ লাখের ঘড়ি, ল্যাপটপ ও আইপ্যাড হেফাজতে নিয়েছে পুলিশ।

গত অক্টোবরে ভুয়ো টিআরপি মামলা প্রকাশ্যে আসে। সেই সময় মুম্বই পুলিশের সর্বময় কর্তা পরমবীর সিং জানান, ব্রডকাস্ট অডিয়েন্স রিসার্চ কাউন্সিল (BARC) এর তরফে নিযুক্ত ফার্ম হানসার তরফে টেলিভিশন রেটিং পয়েন্টে কারচুপির অভিযোগ পাওয়ার পর তদন্তে নামে মুম্বই পুলিশ।

জেরায় পার্থ স্বীকার করেছেন যে, ২০১৩ সাল থেকে ২০১৯ সাল পর্যন্ত তিনি ব্রডকাস্ট অডিয়েন্স রিসার্চ কাউন্সিলের সিইও ছিলেন। এইসময় তিনি একাধিকবার অর্ণবের কাছ থেকে মোটা অঙ্কের টাকা নিয়েছেন। আগামী বুধবার অবধি পুলিশি হেফাজতে থাকবেন পার্থ।

পুলিশ জানায়, টাকা দিয়ে টিআরপি বাড়ানোর কাজে জড়িত তিনটি চ্যানেল। এই মামলায় রিপাবলিক ছাড়াও নাম জড়ায় দুটি স্থানীয় চ্যানেলের। সেই দুটি হল- ফাকত মারাঠি (Fakt Marathi) এবং বক্স সিনেমা (Box Cinema)।

আরও পড়ুন: মেলবোর্নে ইতিহাস! তারকাদের ছাড়াই অস্ট্রেলিয়া বধ, আট উইকেটে জিতল রাহানের ভারত

 

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest