আজ ফোকাস-এ

এবার ব্যাংকের লাইসেন্সের জন্য আবেদন করতে পারেন টাটা, বিড়লা, আম্বানি

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest

বাজারে নগদের জোগান বাড়াতে বেসরকারি ব্যাংকের সংস্থা বাড়াতে চায় রিজার্ভ ব্যাংক (Reserve Bank)। সেই লক্ষ্যে টাটা, বিড়লা বা আম্বানিদের মতো বড় শিল্পপতিদের জন্য ব্যাংকের লাইসেন্স ইস্যু করার পরামর্শ দিয়েছে আরবিআইয়ের (RBI) বিশেষ কমিটি।এই ঘটার ঠিক এক দিন বাদেই ব্যাংকিং পরিষেবা চালু করার ব্যাপারে আগ্রহ দেখাল দেশের দুই বড় সংস্থা। শোনা যাচ্ছে, রিজার্ভ ব্যাংক যদি সত্যিই ব্যাংকিং পরিষেবার নিয়ম শিথিল করে, তাহলে লাইসেন্সের জন্য আবেদন করতে পারে টাটা গ্রুপ এবং বিড়লা গ্রুপ।

আরও পড়ুন: বাড়ি থেকে উদ্ধার ‘সামান্য’ গাঁজা! এনসিবির হাতে গ্রেফতার ‘কমেডি ক্যুইন’ ভারতী সিং

আসলে, কেন্দ্র বেশ কিছুদিন ধরেই রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকের সংখ্যা কমানোর চেষ্টা করছে। শোনা যাচ্ছে খুব বেশি হলে গোটা চারেক রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংক রাখা হবে। বাকিগুলিকে হয় বড় ব্যাংকগুলির সঙ্গে সংযুক্তকরণ করা হবে, নাহয় শেয়ার বিক্রি করা হবে। এখন প্রশ্ন হল, রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকের সংখ্যা কমলে বাজারে শূন্যস্থান সৃষ্টি হতে পারে।

সেই শূন্যস্থান পুরণের লক্ষ্যে শুক্রবার রিজার্ভ ব্যাংকের বিশেষ কমিটি সুপারিশ করেছে, টাটা, বিড়লা বা রিলায়েন্সের মতো বড় শিল্প সংস্থাকে এবার ব্যাংকিং পরিষেবা চালু করার অনুমতি দেওয়া যেতে পারে। রিজার্ভ ব্যাংকের ডেপুটি ডিরেক্টর পি কে মোহান্তির নেতৃত্বাধীন কমিটি বলছে, যে সমস্ত সংস্থা ব্যাংক না হওয়া সত্ত্বেও দীর্ঘদিন ধরে বাজারে ঋণ দেওয়ার ব্যবসা করছে (পড়ুন ফাইনান্স সংস্থা), তাদের এবার ব্যাংকের মর্যাদা দেওয়া যেতেই পারে।

শর্ত একটাই, যে সব ফাইনান্স সংস্থার সম্পত্তির পরিমাণ ৫০ হাজার কোটির বেশি তারাই আবেদন করতে পারবে। শুধু তাই নয়, পেটিএম, জিও, এয়ারটেলের মতো ই-ওয়ালেটগুলিকেও স্মল ফাইনান্স ব্যাংকের আওতায় আনার সুপারিশ করেছে রিজার্ভ ব্যাংকের কমিটি। যদিও, এই যাবতীয় সুপারিশ মানতে হলে কেন্দ্রকে সংসদে বিল পেশ করে ব্যাংকিং আইন বদলাতে হবে।

আরও পড়ুন: ৮ নয় এবার কাজ করতে হবে ১২ ঘণ্টা, খসড়া তৈরি করছে কেন্দ্র

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest