‘১৫ দিনই যথেষ্ট’, ঘরে ফেরাতে হবে বাকি পরিযায়ীদেরও, সরকারকে সময় বেঁধে দিল সুপ্রিম কোর্ট

নয়াদিল্লি : লকডাউনে বিভিন্ন রাজ্যে আটকে পড়া পরিযায়ী শ্রমিকদের ঘরে ফেরাতে রাজ্যগুলিকে সময় বেঁধে দিল সুপ্রিম কোর্ট। আগামী ১৫ দিনের মধ্যে এই সমস্ত দুর্দশাগ্রস্ত শ্রমিকরা যাতে বাড়ি ফিরতে পারেন তার ব্যবস্থা রাজ্যগুলিকে করতে হবে বলে শুক্রবার সর্বোচ্চ আদালত নির্দেশ দিয়েছে।

আগামী মঙ্গলবার আটকে পড়া পরিযায়ী শ্রমিক ইস্যুতে রায়দান করা হবে বলেও জানিয়েছে বিচারপতি অশোক ভূষণ, বিচারপতি সঞ্জয় কিষেণ কউল ও বিচারপতি এম আর শাহকে নিয়ে গঠিত বেঞ্চ।

আরও পড়ুন: নেই মাস্ক, নেই ছ’ ফুটের দূরত্ব বিধি! স্বাস্থ্যবিধিকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে পুরীতে সম্পন্ন জগন্নাথ দেবের স্নানযাত্রা

কেন্দ্রের সমস্ত খতিয়ান দেখে তিন বিচারপতির বেঞ্চ জানায় যে, কেন্দ্র ও রাজ্যকে তারা ১৫ দিনের সর্বোচ্চ সময় দিতে চায়। এই সময়ের মধ্যেই প্রতিটি রাজ্যকে পরিযায়ীদের কর্মসংস্থান ও ত্রান দেওয়ার তালিকা প্রস্তুত করতে হবে। পাশাপাশি পরিযায়ী শ্রমিকদের রেজিস্ট্রেশন করতে হবে।

শুক্রবার শ্রমিকদের ট্রেনে রেজিস্ট্রেশনের বিষয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করে আইনজীবী কোলিন গঞ্জালভেস জানান, “দেশের শীর্ষ আদালতকে শ্রমিকদের রেজিস্ট্রেশনের বিষয়ে নজর দেওয়া প্রয়োজন পড়ছে । সঙ্গে এই পদ্ধতি আরও সহজলভ্য করে তুলতে হবে।” এভাবেই রাজ্যগুলির উপর চাপ বাড়িয়ে শ্রমিক বাড়ি ফেরার পর্বে দ্রুত ইতি টানতে চায় সুপ্রিম কোর্ট।

ক্ষুধা-তৃষ্ণায় কাতর শ্রমিকদের বাড়ি ফেরার চেষ্টা এবং একের পর এক মৃত্যুর ঘটনা গোটা দেশকে নাড়িয়ে দিয়েছে। এই বিষয়টি স্বতঃপ্রণোদিত হয়ে বিচারের জন্য গ্রহণ করেছে সুপ্রিম কোর্ট। কেন্দ্র ও রাজ্য সরকারগুলি পরিযায়ী শ্রমিকদের ঘরে ফেরাতে যথেষ্ট উদ্যোগ নেয়নি বলেও বিচারপতিরা ইতোমধ্যে উষ্মা প্রকাশ করেছেন।

 কেন্দ্রের তরফে সুপ্রিম কোর্টে জানানো হয়েছে, প্রতিটি শ্রমিককে বাড়িতে পৌঁছে দেওয়াই এই মুহূর্তে প্রাথমিক লক্ষ্য। ফলে কোয়ারিনটিন নিয়ে নতুন কোনও গাইডলাইন না দেওয়ার জন্য আদালতের কাছে আবেদন জানিয়েছে মোদী সরকার।

আরও পড়ুন: পেটে যন্ত্রণা! অস্ত্রোপচারের পর রোগীর মূত্রথলিতে মিলল চার্জারের কেবল!

Gmail