PM Cares-এর টাকায় কেনা ভেন্টিলেটরে ব্যাপক ‘দুর্নীতির’ অভিযোগ’! ফাঁস RTI-এ

সোমবারই নবান্ন থেকে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কটাক্ষের সুরে বলেছিলেন, ‘আপনার টেক কেয়ার ফান্ডে কত জমা পড়েছে, সেটা আগে বলুন!’ আর মঙ্গলবারই প্রকাশ্যে এল প্রধানমন্ত্রীর করোনা মোকাবিলায় গঠিত পিএম কেয়ার্সে দুর্নীতির অভিযোগ।

এবার পিএম কেয়ার্স (PM CARES) তহবিলে ব্যাপক কারচুপির অভিযোগ উঠল। সম্প্রতি পিএম কেয়ার্স নিয়ে মামলা গড়িয়েছিল সুপ্রিম কোর্টে। সেই রায়ে কেন্দ্রের স্বস্তি মিললেও এবার এই তহবিলের বরাদ্দ অর্থে কেনা ভেন্টিলেটরগুলির দামে বিস্তর কারচুপির অভিযোগ উঠল!

আরও পড়ুন :মোদীর বাবার চায়ের দোকান কোথায় ছিল? কোনও তথ্য নেই রেলের কাছেই!

জুলাই মাসে সেই আরটিআইয়ের জবাব দেয় স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রক (Health and Family Welfare Ministry)। তাতে বলা হয়, ৫৮ হাজার ৮৫০টি ‘মেক ইন ইন্ডিয়া’ ভেন্টিলেটর কিনতে পিএম কেয়ার তহবিল থেকে দু’হাজার কোটি টাকা বরাদ্দ করা হয়েছে। এর মধ্যে ২৫০টি ডিআরডিও-হাসপাতালে ও তিনটি অল ইন্ডিয়া আয়ুশ ইনস্টিটিউটকে দেওয়া হয়েছে।

ওই জবাবে কোন সংস্থাকে কত টাকার বরাত দেওয়া হয়েছিল, কত দামে কোন সংস্থা থেকে ভেন্টিলেটর কেনা হয়েছে, তার বিস্তারিত তথ্য দেওয়া হয়েছে। আর তাতেই কারচুপি সামনে এসেছে বলে অভিযোগ।

আরটিআই করেছিলেন যিনি সেই অঞ্জলি ভরদ্বাজের অভিযোগ, এক-এক সংস্থা থেকে এক-এক দামে ভেন্টিলেটর কেনা হয়েছে। আরটিআইয়ের জবাব অনুযায়ী, অ্যালায়েড মেডিক্যাল সংস্থা থেকে যেখানে প্রতিটি ভেন্টিলেটর প্রায় সাড়ে আট লক্ষ টাকা দিয়ে কেনা হয়েছে। সেখানে আগভা হেলথ কেয়ার থেকে এক-একটি ভেন্টিলেটর দেড় লক্ষ টাকা দরে কেনা হয়েছে।

যে ছ’টি সংস্থা থেকে এই ভেন্টিলেটরগুলি কেনা হয়েছে অভিযোগ, তার মধ্যে তিনটিকে অনুমোদনই দেয়নি বিশেষজ্ঞের দল। অথচ করোনা পরিস্থিতিতে চিকিৎসা সামগ্রী কেনার বিষয় একটি বিশেষজ্ঞ কমিটি গঠন করা হয়েছিল। এই সংস্থাগুলির মধ্যে রয়েছে Jyoti CNV Automation এবং AMTZ Basic। তারপরেও কীভাবে ওই সংস্থাগুলি থেকে ভেন্টিলেটর কেনা হল, তা নিয়ে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে।

এর আগে ‘পিএম কেয়ার্স’ তহবিলের টাকায় ভেন্টিলেটর কেনার ক্ষেত্রে অস্বচ্ছতা রয়েছে বলে একাধিকবার অভিযোগ তুলেছিলেন কংগ্রেস নেতা রাহুল গাঁন্ধী। আরটিআই-এ সেই তথ্যটিই যেন প্রকাশ্যে এসে গেল। সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশের পরও তাই কেন্দ্রকে বিঁধছে এই অস্বচ্ছতার অভিযোগই।

আরও পড়ুন : এক মাস পিছিয়ে গেল Bigg Boss 14-র সম্প্রচার! কেন জানেন?