কৃষক বিক্ষোভের জের, পঞ্জাবের পুর নির্বাচনে বিরাট জয় কংগ্রেসের, ধুয়ে মুছে সাফ বিজেপি

সবচেয়ে তাৎপর্যপূর্ণ হল ভাতিন্ডায় কংগ্রেসের জয়। ৫৩ বছর পর এই পুরনিগমটি দখল করল হাত শিবির।

কৃষি আইন নিয়ে বিক্ষোভের প্রভাব সবচেয়ে বেশি যে রাজ্যে পড়েছে, তা হল পঞ্জাব। আর সেই পাঞ্জাবের পুর নির্বাচনে প্রত্যাশিতভাবেই বড়সড় জয় পেল কংগ্রেস (Congress)। কার্যত ধুয়ে মুছে সাফ হয়ে গেল বিজেপি-আপ-সহ অন্য বিরোধীরা। হতাশাজনক ফলাফল অকালি দলেরও।

বুধবার সকাল ন’টা থেকে রাজ্যের ১০৯ টি পুরসভা এবং আটটি পুরনিগমের ২,৩০২ ওয়ার্ডের ভোটগণনা শুরু হয়। শুধুমাত্র মোহালি পুরনিগমে বৃহস্পতিবার গণনা হবে। আপাতত পুরোপুরি দাপট দেখিয়েছে কংগ্রেস। ইতিমধ্যে ভাতিন্দা, কাপুরথালা, হোশিয়ারপুর, পাঠানকোট পুরনিগমে ইতিমধ্যে জিতে গিয়েছে ক্যাপ্টেন অমরিন্দর সিংয়ের দল। বেশিরভাগ পুরসভায় এগিয়ে আছে কংগ্রেস। বিভিন্ন জেলায় নিজেদের ভোটব্যাঙ্কও মজবুত করেছে। যে ভোটকে আগামী বছর বিধানসভা ভোটের আগে সেমিফাইনাল হিসেবে ধরা হচ্ছে।

এর মধ্যে সবচেয়ে তাৎপর্যপূর্ণ হল ভাতিন্ডায় কংগ্রেসের জয়। ৫৩ বছর পর এই পুরনিগমটি দখল করল হাত শিবির। ভাতিন্ডা এমনিতে অকালি দলের গড় হিসেবে পরিচিত। এই কেন্দ্র থেকেই সাংসদ হন প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী হরসিমরত কৌর বাদল। শুধু পুরনিগমগুলি নয়, রাজ্যের অধিকাংশ পুরসভাও দখল করার পথে হাত শিবির।

আরও পড়ুন: প্যাংগং লেকের দক্ষিণ প্রান্ত থেকে সরছে ভারত, চিনের ট্যাঙ্ক

রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের মতে, তিন কৃষি আইনের প্রতিবাদে যে বিক্ষোভ শুরু হয়েছে, তার কেন্দ্রবিন্দু পঞ্জাব। তার ফলে কেন্দ্রে নরেন্দ্র মোদী সরকারের বিরুদ্ধে যে ভাবাবেগ তৈরি হয়েছে, তার সুফল পেয়েছে কংগ্রেস। শুধু তাই নয় বিজেপি-বিরোধী হাওয়া এতটাই তীব্র ছিল যে রীতিমতো ভরাডুবির মুখে পড়তে হয়েছে গেরুয়া শিবিরকে। ভোটাররা ভোটে কার্যত নিজেদের ‘রাগ’ উগরে দিয়েছেন।

পাশাপাশি কৃষি আইন মতবিরোধের জন্য এনডিএ থেকে বেরিয়ে এসেছে শিরোমণি অকালি দল। ফলে একা লড়াই করে দাঁত ফোটানোর কোনও সুযোগ পায়নি বিজেপি। কংগ্রেসের থেকে পিছিয়ে থাকলেও দ্বিতীয় স্থানে আছে প্রাক্তন এনডিএ শরিক শিরোমণি অকালি দল। প্রত্যাশার থেকে খারাপ ফল করেছে অরবিন্দ কেজরিওয়ালের দলও। কৃষি আইন বিরোধী ভাবাবেগের পালে হাওয়া দিয়ে ভালো ফলের আশায় থাকলেও খুব একটা পাত্তা পায়নি আপ।

আরও পড়ুন: #MeToo: খারিজ এম জে আকবরের মানহানির মামলা, বেকসুর খালাস সাংবাদিক প্রিয়া রমানি