জাতীয় পতাকা উড়িয়ে বৃক্ষরোপণের মধ্য দিয়ে অযোধ্যায় শুরু হল মসজিদ নির্মাণের কাজ

সকাল পৌনে ৯টা নাগাদ তেরঙ্গা উড়িয়ে এই কর্মসূচির শুভ সূচনা করেন ফারুকি। নির্মাণস্থলের কাছে বৃক্ষরোপনও করা হয়।
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest

দেশের ৭২তম প্রজাতন্ত্র দিবসে তেরঙ্গা উড়িয়ে এবং বৃক্ষরোপণ কর্মসূচির মধ্য দিয়ে অযোধ্যায় মসজিদ নির্মাণের কাজ শুরু হল। মঙ্গলবার রাম জন্মভূমি থেকে ২৫ কিলোমিটার দূরে অযোধ্যার ধান্নিপুর গ্রামে পাঁচ একর প্লটের উপর মসজিদটি নির্মাণ করা হচ্ছে। ইন্দো-ইসলামিক কালচারাল ফাউন্ডেশন (আইআইসিএফ) ট্রাস্ট-এর সদস্যরা এই নির্মাণের কাজ করবেন।

মঙ্গলবার সকালেই নির্মাণস্থলে হাজির হন আইআইসিএফ-এর সদস্যরা। হাজির ছিলেন ট্রাস্টের প্রধান জাফর আহমেদ ফারুকি। সকাল পৌনে ৯টা নাগাদ তেরঙ্গা উড়িয়ে এই কর্মসূচির শুভ সূচনা করেন ফারুকি। নির্মাণস্থলের কাছে বৃক্ষরোপনও করা হয়।

সংবাদ সংস্থাকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে ফারুকি বলেন, “নির্মাণস্থলের মাটি পরীক্ষণের মধ্য দিয়েই এই কাজ শুরু করেছি। সুতরাং বলা যেতেই পারে মসজিদ নির্মাণের প্রথম পর্বের কাজটা আমরা শুরু করে দিলাম।” তিনি আরও বলেন, “মাটি পরীক্ষার রিপোর্ট চলে এলে এবং মসজিদের নকশা অনুমোদন পেলেই পাকাপাকি ভাবে নির্মাণকাজ শুরু করব।” মসজিদ নির্মাণের জন্য ইতিমধ্যেই অর্থ সংগ্রহের কাজ শুরু হয়ে গিয়েছে। সবাইকে আহ্বান করা হয়েছে মসজিদ নির্মাণের জন্য অর্থ দান করতে। অনেকেই এর মধ্যে অর্থ দান করেছেন বলে জানান ফারুকি।

তবে মসজিদের নাম কী হবে তা এখনও ঠিক হয়নি বলে জানিয়েছে আইআইসিএফ। তবে তারা এটা জানিয়েছে, কোনও রাজা বা সম্রাটের নামে মসজিদের নামকরণ করা হবে না। এই প্রকল্পের প্রথম ধাপে মসজিদের পাশাপাশি হাসপাতাল নির্মাণের বিষয়টিকে রাখা হয়েছে বলে আইআইসিএফ সূত্রে খবর।

আরও পড়ুন: মাত্র ১% মানুষের হাতে দেশের ৫৮% সম্পদ! ‘অশ্লীল’ বলে ধিক্কার জানাল অক্সফ্যাম

ট্রাস্টের সম্পাদক আথার হুসেন জানিয়েছেন, হাসপাতাল চত্বরে সকলের খাবারের বন্দোবস্তের জন্য তৈরি করা হবে রান্নাঘর। প্রতি দিন এক হাজার পুষ্টিকর খাবার পরিবেশন করা হবে। ওষুধ পরিবেষা কী ভাবে দেওয়া যায় তার জন্যও নানা পরিকল্পনা চলছে বলেও জানিয়েছেন হুসেন।

গত মাসেই মসজিদের একটা নকশা প্রকাশ করেছে আআইসিএফ। গম্বুজটি তৈরি হবে কাচ দিয়ে। থাকবে বিশাল চত্বর জুড়ে বাগান। জানা গিয়েছে, বাবরি মসজিদের সমান আয়তনের এলাকা জুড়ে তৈরি হতে চলা মসজিদটিতে একসঙ্গে ২ হাজার জন নামাজ পড়তে পারবেন। হাসপাতাল ভবনেরও সুন্দর চেহারা দেওয়া হবে বলে আইআইসিএফ সূত্রে জানানো হয়েছে।গোটাটাই হবে সৌরচালিত।

আরও পড়ুন: দিল্লিতে আংশিক বন্ধ ইন্টারনেট, মেট্রো, বিক্ষোভ বাগে আনতে হিমশিম খাচ্ছে পুলিশ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest