একদিনে আক্রান্ত রেকর্ড ৭৪৬৭ জন, করোনা রোগীর সংখ্যায় এশিয়ার শীর্ষে ভারত, বিশ্বে ন’নম্বর

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest

নয়াদিল্লি: চতুর্থ দফার লকডাউন শেষ হওয়ার মুখে। প্রায় সব কিছুই এখন খুলে দেওয়া হয়েছে। অন্যদিকে করোনা রোগীর সংখ্যাও বাড়ছে লাফিয়ে লাফিয়ে। বৃহস্পতিবার দেশে করোনার ৭৪৬৭টি নয়া কেস মিলেছে। এটা এ যাবত্কালের রেকর্ড। এর সঙ্গে সঙ্গে তুরস্ককে পিছনে ফেলে এশিয়ার মধ্যে করোনা আক্রান্তের সংখ্যার নিরিখে শীর্ষস্থান পেল ভারত। 

আর করোনাভাইরাস সংক্রমিত দেশের তালিকায় বিশ্বে ন’নম্বরে চলে এল ভারত। করোনায় আক্রান্তের হিসাবে আমেরিকা, ব্রাজিল, রাশিয়া, ব্রিটেন, স্পেন, ইটালি, ফ্রান্স, জার্মানি পরই রয়েছে ভারত।

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রকের দেওয়া তথ্য অনুসারে, গত ২৪ ঘণ্টায় এ দেশে আক্রান্ত হয়েছেন সাত হাজার ৪৬৬ জন। এক দিনে এত সংখ্যক লোক এর আগে সংক্রমিত হননি। এই বৃদ্ধির জেরে করোনাভাইরাসে মোট আক্রান্ত হলেন এক লক্ষ ৬৫ হাজার ৭৯৯ জন। আক্রান্তের সংখ্যা সব থেকে বেশি মহারাষ্ট্র, তামিলনাড়ু, দিল্লি ও গুজরাত—এই চারটি রাজ্যে।

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রকের হিসেবে, গত ২৪ ঘণ্টায় এ দেশে মৃত্যু হয়েছে ১৭৫ জনের। এই নিয়ে দেশে কোভিডের কারণে মোট মৃত্যু হল চার হাজার ৭০৬ জনের। এর মধ্যে মহারাষ্ট্রেই মৃত্যু হয়েছে ১ হাজার ৯৮২ জনের। ৯৬০ জন মারা গিয়েছেন গুজরাতে। মধ্যপ্রদেশে মৃতের সংখ্যা ৩২১, পশ্চিমবঙ্গে ২৯৫। শতাধিক মৃত্যুর তালিকায় রয়েছে দিল্লি (৩১৬), উত্তরপ্রদেশ (১৯৭), রাজস্থান (১৮০) ও তামিলনাড়ু (১৪৫)।

কেরলে শুরু হয়েছিল দেশের করোনা সংক্রমণ। তার পরই শীর্ষে চলে আসে মহারাষ্ট্র। হু হু করে আক্রান্তের সংখ্যা বাড়তে থাকে সেখানে। এখনও সেই ধারা অব্যাহত। দেশের মধ্যে সংক্রমণের হারে শীর্ষে সেই মহারাষ্ট্র। গত ২৪ ঘণ্টায়, দু’হাজার ৫৯৮ জন নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন সেখানে। এ নিয়ে সে রাজ্যে মোট আক্রান্তের সংখ্যা হল ৫৯ হাজার ৫৪৬ জন। এর মধ্যে মুম্বইয়েই আক্রান্ত ৩৫ হাজারেরও বেশি।

আরও পড়ুন: এবার করোনার থাবা বাংলার মন্ত্রিসভায়, করোনা আক্রান্ত দমকলমন্ত্রী সুজিত বসু

আক্রান্তের হিসাবে রাজ্যগুলির মধ্যে দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে তামিলনাড়ু। সে রাজ্যে মোট কোভিড-১৯-এ আক্রান্ত হয়েছেন ১৯ হাজার ৩৭২ জন। এর পরে রয়েছে রাজধানী দিল্লি। সেখানে আক্রান্তের সংখ্যা ১৬ হাজার ২৮১ জন। গুরাতে আক্রান্তে সংখ্যা ১৫ হাজার ৫৬২ জন।  এর পর ক্রমান্বয়ে রয়েছে রাজস্থান (৮,০৬৭), মধ্যপ্রদেশ (৭,৪৫৩), উত্তরপ্রদেশ (৭,১৭০), পশ্চিমবঙ্গ (৪,৫৩৬), বিহার (৩,২৯৬), অন্ধ্রপ্রদেশ (৩,২৫১), কর্নাটক (২,৫৩৩), তেলঙ্গানা (২,২৫৬), পঞ্জাব (২,১৫৮), জম্মু-কাশ্মীর (২,০৩৬), ওড়িশা (১,০৬০), হরিয়ানা (১,৫০৪) ও কেরল (১,০৮৮)।

পশ্চিমবঙ্গেও বাড়ছে করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা। কলকাতার আশপাশ ছাড়িয়ে দূরের বিভিন্ন জেলাতেও বাড়তে সংক্রমিতের সংখ্যা। এই মুহূর্তে রাজ্যে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৪,৫৩৬ জন। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রকের হিসেবে, গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ৩৪৪ জন। এখনও অবধি রাজ্যে মোট মৃত্যু হয়েছে ২৯৫ জনের। রাজ্য সরকারের প্রকাশিত বুলেটিনের হিসেবে, করোনাভাইরাসের জেরে মৃতের সংখ্যা ২২৩। বাকি ৭২ জনের মৃত্যু হয়েছে কোমর্বিডিটির কারণে।

করোনাভাইরাসে যেমন মানুষ আক্রান্ত হচ্ছেন, তেমন সুস্থ হয়ে ওঠার সংখ্যাটাও নেহাত কম না। প্রতিকূল পরিস্থিতিতে এটাই যেন আশার আলো। কোভিডে আক্রান্ত হওয়ার পর এখনও অবধি সুস্থ হয়েছেন ৭১ হাজার ১০৬ জন। তার মধ্যে তিন হাজার ৪১৪ জন সুস্থ হয়েছেন গত ২৪ ঘণ্টায়।

আরও পড়ুন: পরিচারিকাকে দিয়ে আটা মাখাবেন? শ্রেণিবৈষম্যকে উসকে বিতর্কে হেমা মালিনী

Gmail 3
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest