নেতাজির লুকে প্রসেনজিতের ছবির উন্মোচন করলেন রাষ্ট্রপতি? দানা বাঁধছে বিতর্ক

শনিবার রাষ্ট্রপতি ভবনে নেতাজি সুভাষ চন্দ্র বসুর এই ছবিটি উন্মোচন করেন রামনাথ কোবিন্দ। নেটিজেনদের একাংশের দাবি এটি নাকি ‘গুমনামী’ সিনেমায় প্রসেনজিত্ চট্টোপাধ্যায়ের লুকের ছবি।
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest

নেতাজি জন্মজয়ন্তীকে ঘিরে বিতর্ক থামছে না। ভিক্টোরিয়ার অনুষ্ঠানে ‘জয় শ্রী রাম’ স্লোগান বিতর্কের এবার কেন্দ্রবিন্দুতে রাষ্ট্রপতি ভবনে উন্মোচিত ছবিকে ঘিরে। শনিবার, নেতাজির ১২৫তম জন্মবার্ষিকীকে ‘দেশনায়ক’ সুভাষচন্দ্র বসুকে শ্রদ্ধার্ঘ জানাতে রাষ্ট্রপতি ভবনে নেতাজির একটি ছবি উন্মোচন করেন রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ। সেই ছবি প্রেসিডেন্ট অফ ইন্ডিয়ার অফিসিয়্যাল টুইটার অ্যাকাউন্ট থেকে শেয়ার করা হয়।

তবে এই ছবি ঘিরেই শুরু হয় বিতর্ক। নেটিজেনদের একটা অংশ দাবি করেন, এটি নেতাজির ছবি নয়। বরং অভিনেতা প্রসেনজিত্ চট্টোপাধ্যায়ের ছবি। সৃজিত মুখোপাধ্যায়ের ‘গুমনামী’ ছবিতে নেতাজির ভূমিকাতে অভিনয় করেছিলেন বুম্বাদা। এটি নাকি সেই লুকের ছবি।

আরও পড়ুন: শারীরিক অবস্থার অবনতি, রাঁচি থেকে এইমসে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে লালু প্রসাদ যাদবকে

এই নিয়ে হইচই কাণ্ড পড়ে যায় টুইটারে। তবে সবচেয়ে চমকে দেওয়ার মতো বিষয় হল, এটি প্রসেনজিতের ছবি এমন দাবি জানিয়ে টুইট করে তৃণমূল সাংসদ মহুয়া মৈত্র। তিনি রাষ্ট্রপতি ভবনের ওই টুইট রিটুইট করে লেখেন- ‘ভগবান ভারতকে রক্ষা করুক, কারণ এই সরকার তো করতে পারবে না’।  পরে অবশ্য বিতর্কিত টুইটটি মুছে দেন মহুয়া মৈত্র।

বিশিষ্ট সাংবাদিক রবখা দত্ত পর্যন্ত টুইট বার্তায় লেখেন- ‘আমি এটা জেনে খুব চমকে গেলাম যে অভিনেতা প্রসেনজিত চট্টোপাধ্যায় যিনি ছবিতে নেতাজির চরিত্রে অভিনয় করেছেন তাঁর ছবি রাষ্ট্রপতি উন্মোচন করেছেন। আমাকে দুবার দেখতে হল এটা বিশ্বাস করবার জন্য, এটা ভীষণরকমভাবে লজ্জাজনক’। বেশ কয়েকজনও কমেন্ট বক্সেও একই কথা বলেছেন। যদিও এই প্রসঙ্গে এখনও পর্যন্ত রাষ্ট্রপতি ভবন দেখে কোনও বিবৃতি জারি করা হয়নি।

আরও পড়ুন: ধর্ষণের অভিযোগে জেল খাটতে হল ১৭ মাস, ডিএনএ টেস্ট জানাল নাবালিকার সন্তান অভিযুক্তের নয়

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest