হাওড়ার বধূ এখন বিহারের উপমুখ্যমন্ত্রী, জেনে নিন তার শিক্ষাগত যোগ্যতা

নীতীশ কুমারের মন্ত্রিসভায় উপমুখ্যমন্ত্রী হিসাবে শপথ নিয়েছেন রেণু দেবী। বিহারের প্রথম মহিলা উপমুখ্যমন্ত্রী আদতে এ বঙ্গের বধূ। বিহারের বেতিয়ার রেণুর সঙ্গে বিয়ে হয়েছিল হাওড়ার জগাছার দুর্গাপ্রসাদের। বৈবাহিক সূত্রে তাই দীর্ঘ দিন রেণু জগাছাতেই থাকতেন। স্বামীর মৃত্যুর অনেক পরে তিনি বিহারে নিজের বাপেরবাড়ি ফিরে যান। তবে এখনও মাঝে মাঝেই সপরিবার জগাছার সেই বাড়িতে আসেন রেণু। শেষ বার এসেছিলেন দেশ জুড়ে লকডাউন চালু হওয়ার ঠিক আগেই।

রেণুর স্বামী দুর্গাপ্রসাদ ছিলেন একটি অর্থলগ্নি সংস্থার ফিল্ড অফিসার। জগাছার এই বাড়িতেই তাঁদের সন্তান জন্ম নেয়। ১৯৭৯-তে দুর্গাপ্রসাদ মারা যান। এর পর ওই অর্থলগ্নি সংস্থার ফিল্ড অফিরারের লাইসেন্স রেণু নিজের নামে ট্রান্সফার করে নেন। কাজ শুরু করেন জোরকদমে। দীর্ঘ দিন সে কাজ করেন। কিন্তু হঠাৎ করে ওই সংস্থা বন্ধ হয়ে যাওয়ায় সমস্যায় পড়েন তিনি। এর পর ১৯৮৯ সাল নাগাদ রেণু বিহারে বাপেরবাড়ি চলে যান। সেখানে গিয়ে রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত হন। মাঝে মধ্যে সপরিবার হাওড়ার বাড়িতে আসেন রেণু।

আরও পড়ুন: সপ্তমবারের জন্য মুখ্যমন্ত্রী পদে শপথ নিলেন ‘শক্তিহীন’ নীতীশ, জোড়া উপমুখ্যমন্ত্রী বিহারে

রেনু দেবী এই নিয়ে মোট ৪বার বিধায়ক হয়েছেন। রেণু দেবী ১৮৭৭ সালে মুজাফফরপুর বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইন্টার পাস করেন।  তাঁর মা সংঘ পরিবারের সাথে যুক্ত ছিলেন। সেক্ষেত্রে ছোট থেকেই বিজেপি এবং সংঘের সঙ্গে যোগাযোগ তৈরি হয় তাঁর। ৬২ বছর বয়সী রেনু দেবীর পরিবারে একটি ছেলে ও মেয়ে রয়েছে। রাজনৈতিক জীবনে তিনি ২০০৫ থেকে ২০০৯ পর্যন্ত বিহারের ক্রীড়া, শিল্প ও সংস্কৃতি মন্ত্রীও ছিলেন।

রেনু দেবী বিজেপিতে অনেক গুরুদায়িত্ব সামলেছেন। কেন্দ্রীয় ও রাজ্যস্তরে অনেক উঁচু পদের দায়িত্ব সামলেছেন। এর সঙ্গে মহিলা মোর্চারও দায়িত্ব তিনি নিয়েছিলেন।

আরও পড়ুন: Snowfall in Kashmir: মরসুমের প্রথম তুষারপাত, বরফের চাদরে ঢাকল কাশ্মীর