“পড়েছে ডাক চলেছি আমি তাই…” রবি ঠাকুরের গানে বাবাকে শেষ বিদায় জানালেন শর্মিষ্ঠা

দীর্ঘ টানাপোড়েনের পর অবশেষে ইহলোকের মায়া ত্যাগ করলেন প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায়। গত কয়েক সপ্তাহ ধরেই তিনি কোমায় ছিলেন। মাঝে একটু অবস্থার উন্নতি হলেও সোমবার সকাল থেকে তাঁর শরিরীক অবস্থার অবনতি হয়। সেপ্টিক শটে আক্রান্ত হয়েছিলেন তিনি। তারপরেই তিনি মারা যান।

তাঁর কাছে কাছেই থাকতেন প্রণব কন্যা শর্মিষ্ঠা মুখোপাধ্যায়। মায়ের মৃত্যুর পর বাবার দেখাশোনা সবটাই করতেন শর্মিষ্ঠা। তাই প্রণব মুখোপাধ্যায়ের চলে যাওয়াটা বড় ধাক্কা তাঁর কাছে।এদিন বাবার প্রিয় কবির কাছ থেকে এক লাইন ধার নিয়ে টুইট করে লিখলেন “সবারে আমি প্রনাম করে যাই।” টুইটে শর্মিষ্ঠা লিখেছেন, “তুমি তোমার সারাটা জীবন দেশের সেবায় কাটিয়েছ। তোমার মেয়ে হিসেবে আমি ধন্য।”

আরও পড়ুন: প্রাক্তন রাষ্ট্রপতির মৃত্যু: সাত দিনের রাষ্ট্রীয় শোক ঘোষণা কেন্দ্রের, মঙ্গলবার ছুটি ঘোষণা নবান্নের

রবীন্দ্রনাথের এই গানেরই একটি অংশে রয়েছে, “প্রভাত হয়ে এসেছে রাতি, নিবিয়া গেল কোণের বাতি, পড়েছে ডাক চলেছি আমি তাই- সবারে আমি প্রণাম করে যাই”

কীর্ণাহার থেকে রাইসিনা হিলস। জীবনে একাধিক চড়াই উতরাই পার করে সারা দেশকে শোকস্তব্ধ করে সেনা হাসপাতালে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করলেন প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায়।পাঁচ দশকের রাজনৈতিক অভিজ্ঞতায় তিনি দেশের অন্যতম রাজনৈতিক অভিভাবক। সালটা ১৯৬৯ একা হাতে বাই ইলেকশনে জিতিয়ে দিয়েছিলেন ভিকে কৃষ্ণ মেননকে। তারপর থেকেই ইন্দিরা ঘনিষ্ঠ প্রণব মুখোপাধ্যায়। প্রধানমন্ত্রী হওয়া নিয়ে শোরগোল হলেও নিজেই বলেছিলেন, “৭, আরসিআর কখনওই আমার গন্তব্য ছিল না।”

দীর্ঘ কর্মজীবনে একাধিক চরাই উৎরাইয়ের সম্মুখীন হয়েছেন তিনি। বিরোধীদের তো বটেই দলের মধ্যেও সমালোচনার মুখে পড়েছেন প্রণব মুখার্জি। তবে সবসময়ই সৌজন্যতার মাধ্যমে সবকিছুর মোকাবিলা করেছেন তিনি। দেশের কঠিন সময়ে রাজনীতির হাল নিজের কাঁধে তুলে নিয়েছেন তিনি। এদিন তাঁর পুত্র অভিজিৎ মুখার্জি টুইটে মৃত্যু খবর জানান। বর্ষীয়ান নেতাকে হারিয়ে শোকস্তব্ধ রাজনৈতিক মহল সহ আপামর দেশবাসী।

আরও পড়ুন: একটা যুগের অবসান, ভারতরত্ন প্রণব মুখার্জীকে শ্রদ্ধা বিনোদন ও ক্রীড়া জগতের