নাকু লা-য় অনুপ্রবেশের চেষ্টা, ভারতীয় সেনার সঙ্গে সংঘর্ষে আহত ২০ চিনা সেনা

পূর্ব সিকিমের নাকু লা-র ঘটনাটিকে খুব বেশি গুরুত্ব না দিতেও সেনা সূত্রে আবেদন করা হয়েছে। 
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest

এতদিন ভারত-চিন উত্তেজনা চলছিল পূর্ব লাদাখে। এবার পূর্ব সেক্টরেও সেই উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ল। পাঁচ দিন আগে ভারত-চিন সেনার মধ্যে সংঘর্ষে হয়েছে সিকিমের নাকু লা-তে। তবে সরকারি ভাবে ভারতের পক্ষ থেকে এই বিষয়টিকে খুব একটা গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে না।

সেনা সূত্রে জানা গিয়েছে, গলওয়ানের কায়দাতেই গত সপ্তাহে উত্তর সিকিম সীমান্তের নাকু লা এলাকা দিয়ে ভারতে ঢোকার চেষ্টা চালিয়েছিল চিনা সেনা। সেই সময় আবহাওয়া খারাপ ছিল। সেই সুযোগে ভারতের ভূখণ্ডে প্রবেশের চেষ্টা করে লাল ফৌজ। কিন্তু ভারতীয় বাহিনী তাদের প্রবল ভাবে বাধা দেয়। দু’পক্ষের মধ্যে মারপিট বেধে যায়। চিনা ফৌজের অন্তত ২০ জন সদস্য ওই সংঘর্ষে জখম হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। তারা শেষ পর্যন্ত পিছু হঠতে বাধ্য হয়। জখম হয়েছেন ৪ ভারতীয় জওয়ানও।

কুড়ি জানুয়ারি এই হাতাহাতি হয় বলে ভারতের তরফ থেকে স্বীকার করে নেওয়া হয়েছে। তবে এটি ছোটো ঘটনা ছিল ও স্থানীয় কম্যান্ডাররাই মিটমাট করে নিয়েছে বলে জানিয়েছে ভারত। পূর্ব সিকিমের নাকু লা-র ঘটনাটিকে খুব বেশি গুরুত্ব না দিতেও সেনা সূত্রে আবেদন করা হয়েছে।

আরও পড়ুন: জোরালো বিস্ফোরণে কেঁপে উঠল কর্নাটকের শিবমোগা, নিহত কমপক্ষে ৮

ঘটনার জেরে থমথমে ওই এলাকার পরিস্থিতি। খারাপ আবহাওয়ার মধ্যেও সীমান্তে কড়া নজরদারি চালাচ্ছেন ভারতীয় জওয়ানরা। গলওয়ানের সংঘর্ষের পর নাকু লা-র ওই ঘটনায় ভারত-চিন সীমান্ত সঙ্ঘাত ফের ভিন্ন মাত্রা পেল।

এই নিয়ে পূর্ব সেক্টরে দ্বিতীয় বার এক বছরের মধ্যে হাতাহাতি হল দুই দেশের। গত বছর মে মাসে নাকু লা-তে সংঘর্ষ হয়। আহত হয় দুই পক্ষের সেনা। কিন্তু তারপরেই ফোকাস সরে যায় পূর্ব লাদাখে। সেখানে দুই দেশের সেনার মধ্যে গত দশ মাস ধরে অচলাবস্থা চলছে। এর মধ্যে ১৫ জুন গালওয়ানে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে ২০জন ভারতীয় ও অজানা সংখ্যক চিনা সেনার মৃত্যু হয়। তারপরেও এক-দুইবার সংঘর্ষ হয়েছে সেনাদের মধ্যে। বর্তমানে মারাত্মক শীত উপেক্ষা করেও লাদাখে প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখায় নিজেদের অবস্থান ধরে রেখেছে দুই দেশের সেনা। দফায় দফায় কূটনৈতিক ও সামরিক স্তরে আলোচনা করেও সমাধানসূত্র পাওয়া যায় নি।

আরও পড়ুন: পোশাক না খুলে শরীর স্পর্শ করলে যৌন নির্যাতন নয়, বিতর্ক বম্বে হাইকোর্টের রায়ে

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest