ঘর ছেড়ে রাজস্থানে আশ্রয় কাফিল খানের, নিরাপত্তার প্রতিশ্রুতি প্রিয়াঙ্কা গান্ধীর

এলাহাবাদ হাই কোর্টের হস্তক্ষেপে সদ্য মুক্তি পেয়েছেন উত্তরপ্রদেশের চিকিৎসক কাফিল খান। তবে ‘নিরাপত্তার অভাব’ ও ‘ষড়যন্ত্রের আশঙ্কা’ করছেন তিনি। যোগী রাজ্যে এমন আশংকা অত্যন্ত সঙ্গত বলে মনে করছেন অনেকেই। এমন অবস্থায় কংগ্রেস নেত্রী প্রিয়াঙ্কা গান্ধীর ‘নিরাপদ আশ্রয়য়ের প্রতিশ্রুতিতে’ ভর করে যোগীরাজ্যে ছেড়ে রাজস্থান পাড়ি দিয়েছেন কাফিল।

বৃহস্পতিবার রাজস্থান পৌঁছানোর পর জয়পুরে সাংবাদিকদের সঙ্গে দেখ করেন চিকিৎসক কফিল খান। তিনি বলেন, “জয়পুরে আমাদের নিরাপদ আশ্রয়ে থাকার ব্যবস্থা করে দেওয়ার আশ্বাস দিয়েছেন প্রিয়াঙ্কা গান্ধী। আমার মা ও স্ত্রীর সঙ্গে কথা হয়েছে তাঁর। আমারও উপর অন্য অভিযোগে ফের মামলা করা হতে পারে বলে সতর্ক করেছেন তিনি। রাজস্থান পৌঁছে নিজেকে নিরাপদ মনে হচ্ছে।”

আরও পড়ুন : বাজি কারখানায় ভয়ঙ্কর বিস্ফোরণ!‌ তামিলনাডুতে পুড়ে মৃত্যু ন’‌জনের

এলাহাবাদ হাই কোর্টের (Allahabad High Court ) নির্দেশে মঙ্গলবার মধ্যরাতে কাফিল খানকে মথুরার জেল থেকে ছাড়া হয়। গতকাল সকালেই এলাহাবাদ হাই কোর্ট জানায়, কাফিলকে আটক রাখা সম্পূর্ণ অবৈধ। তাঁর মন্তব্যে ঘৃণা বা বিদ্বেষ ছড়ানোর মতো কোনও শব্দ ছিল না।

এলাহাবাদ হাই কোর্টের (Allahabad High Court ) নির্দেশে মঙ্গলবার মধ্যরাতে কাফিল খানকে মথুরার জেল থেকে ছাড়া হয়। গতকাল সকালেই এলাহাবাদ হাই কোর্ট জানায়, কাফিলকে আটক রাখা সম্পূর্ণ অবৈধ। তাঁর মন্তব্যে ঘৃণা বা বিদ্বেষ ছড়ানোর মতো কোনও শব্দ ছিল না। উল্লেখ্য, উত্তরপ্রদেশের BRD হাসপাতালে অক্সিজেনের অভাবে ৬০ -এর বেশি শিশুর মৃত্যু হয়। নিজের চেষ্টায় অক্সিজেনের বন্দোবস্ত করেন কফিল। রোগীর পরিজনেরা জানিয়েছিল ওঁর জন্যই কিছু মৃত্যু আটকানো গিয়েছে। উনি প্রানপন চেষ্টা করেছেন।

অথচ রোগী মৃত্যুর ঘটনায় কাফিল খানকে গ্রেপ্তার করা হয়। শুধু তাই নয়, তাঁকে সাসপেন্ডও করে প্রশাসন। যদিও ওই চিকিৎসকের পরিবারের সদস্যদের অভিযোগ, হাসপাতালের ঘটনার পর থেকেই যোগীর প্রশাসন কাফিলের উপর খড়গহস্ত হয়েছিল। সেই প্রতিহিংসা চরিতার্থ করছে তারা। উল্লেখ্য, মুম্বইতে সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন (CAA) বিরোধী প্রতিবাদ-আন্দোলনে যোগ দিতে যাওয়ার সময় উত্তরপ্রদেশ পুলিশের স্পেশাল টাস্ক ফোর্স বিমানবন্দর থেকে কাফিলকে গ্রেপ্তার করেছিল। তারপর থেকেই মথুরা জেলেই বন্দি ছিলেন তিনি।

আরও পড়ুন : ফের শনিবার খোলা থাকবে ব্যাংক, সিদ্ধান্ত কার্যকর আগামীকাল থেকেই