এক বছরে সম্পদ দ্বিগুণ! ভারতের ধনীতম মুকেশ আম্বানি, দ্বিতীয় আদানি, তালিকায় রয়েছেন আর কে কে?

অবশ্য শুধুমাত্র ভারতেই নয়, গোটা বিশ্বজুড়েই শিল্পপতিদের সম্পত্তির বৃদ্ধি হয়েছে বলে জানিয়েছে ফোর্বস।
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest

গতবছর করোনাকালীন মন্দা দশায় যখন ধুঁকছে গোটা পৃথিবী। তখন যেন ক্রমেই ফুলেফেঁপে উঠেছে রিলায়েন্সের ভাঁড়ার। নতুন বছরেও তাতে ছেদ পড়ল। ২০২১ সালেও ভারতীয় কোটিপতিদের তালিকায় শীর্ষস্থান দখল করে রইলেন ভারতের ধনীতম শিল্পপতি রিলায়্যান্স ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের চেয়ারম্যান মুকেশ আম্বানি। সদ্য প্রকাশিত ফোর্বস তালিকায় মুকেশের পরেই দ্বিতীয় স্থানে রয়েছেন আদানি গ্রুপের চেয়ারম্যান গৌতম আদানি।

বিশ্বের বড় বড় ধনকুবেরদের তালিকায় বরাবরই উপরের দিকে থেকেছেন রিল্যায়েন্স ইন্ডাস্ট্রির চেয়ারম্যান মুকেশ আম্বানি। বর্তমানে বিশ্বের মধ্যে ৩৫ কোটিপতির তালিকায় তাঁর স্থান দশম। ফোর্বস বলছে বর্তমানে আম্বানির মোট স্থাবর-অস্থাবর সম্পত্তির পরিমাণ প্রায় ৬ লক্ষ ২৫ হাজার কোটি টাকা।  গত ১ বছরে শুধুমাত্র জিও থেকেই প্রায় ২ লক্ষ ৫৯ হাজার কোটি টাকা আয় করেছে রিলায়েন্স। খুচরো ব্যবসাতেও পা রেখেছেন রিলায়্যান্স ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের চেয়ারম্যান। ছাপ রেখেছেন ই-কমার্সেও। এমনকী ডিজিট্যাল দুনিয়াতেও তরতরিয়ে সাফল্যের মুখ দেখেছে রিলায়েন্স।

অন্য দিকে আদানির সম্পত্তির পরিমাণ ভারতীয় মুদ্রায় প্রায় ৩ লক্ষ ৭৩ হাজার কোটি টাকা। আদানির সম্পত্তি বৃদ্ধির অন্যতম কারণ তাদের মুম্বই আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের মালিকানা। ২০২০ সালে দেশের দ্বিতীয় ব্যস্ততম বিমানবন্দরের ৭৪ শতাংশ শেয়ারই আদানি গ্রুপের নামে ছিল। সম্প্রতি সংস্থার তরফে তাদের ২০ শতাংশ সম্পত্তি, যার মধ্যে অন্যতম ছিল আদানি গ্রিন এনার্জি, তা একটি ফরাসি সংস্থার কাছে বিক্রি করে দেয়।

আদানির আগে এই স্থানে ছিলেন সুপারমার্টের প্রতিষ্ঠাতা রাধাকৃষাণ দামানি। তবে দুই ভাইয়ের বিবাদে সেই স্থানে উঠে এসেছে আদানি সংস্থা। এই প্রথম ফোর্বসের তালিকায় রাধাকৃষাণ ও তাঁর ভাই গোপীকৃষাণ দামানির নাম আলাদাভাবে জায়গা পেল।

এদিকে ভারতীয় ধনকুবেরদের তালিকায় আদানির পরেই তৃতীয় স্থানে রয়েছেন শিব নাদার। এইচসিএল টেকনোলজিক-এর মালিক শিব নাদার বর্তমানে ২৩.৫ বিলিয়নের মালিক বলে জানা যাচ্ছে। তবে সম্প্রতি তিনি গ্রুপ চেয়ারম্যান পদ থেকে সরে দাঁড়িয়েছেন। মালিকানার দায়িত্ব তুলে দিয়েছেন তাঁর মেয়ে রোশনী নাদার মালহোত্রা।

আরও পড়ুন: মধ্যস্থতাকারী ভারতীয় সংস্থাকে ১০ লক্ষ ইউরো ‘উপহার’ দাসো-র! রাফাল নিয়ে ফের বিতর্ক

চতুর্থ স্থানে রয়েছেন রিটেল ও ইনভেস্টমেন্টে অন্যতম রাধাকৃষ্ণ দামানি।ইনি ১৬.৫ বিলিয়নের মালিক।

পঞ্চম স্থানে রয়েছেন কোটাক মাহিন্দ্রা ব্যাঙ্কের মালিক উদয় কোটাক। ২০২১ সালে ইনি ১৫.৯ বিলিয়নের মালিক।

লক্ষী মিত্তালের রোজগারের মূল ভিত্তি স্টিল। তিনি অবশ্য এখন থাকেন লন্ডনে। ২০২১ সালে তিনি ১৪.৯ বিলিয়নের মালিক।

কুমার বিড়লার আওতায় অনেকটাই সংস্থা রয়েছে। যার মধ্যে রয়েছে Vodafone Idea, সিমেন্ট আরও অনেক কিছু। তিনি এখন ১২.৮ বিলিয়নের মালিক।

পুনাওয়ালার নাম করোনা কালে অনেকের কাছে বেশ পরিচিত হয়ে উঠেছে। ভ্যাকসিন তৈরির সংস্থা রয়েছে পুনাওয়ালা। ২০২১ সালে ১২.৭ বিলিয়নের মালিক ইনি।

দিলীপ শাংঘাভি ভারতে ওষুধের তৈরির জগতে রয়েছে তাঁর নাম। কোম্পানির নাম Sun Pharmaceuticals। ২০২১ সালে ১০.৯ বিলিয়নের মালিক তিনি।

টেলিকম ইন্ডাস্ট্রির সুনীল মিত্তাল। দিল্লির বাসিন্দা। ২০২১ সালে তিনি ১০.৫ বিলিয়নের মালিক।

অবশ্য শুধুমাত্র ভারতেই নয়, গোটা বিশ্বজুড়েই শিল্পপতিদের সম্পত্তির বৃদ্ধি হয়েছে বলে জানিয়েছে ফোর্বস। ১ বছরে শতকোটিপতিদের তালিকা বিশ্বে ১০২ থেকে বেড়ে ১৪০ হয়েছে। তাঁদের মিলিত সম্পত্তির পরিমাণও প্রায় দ্বিগুণ বেড়ে হয়েছে ৫৯৬ বিলিয়ন ডলার যা ভারতীয় মুদ্রায় প্রায় ৪৪ লক্ষ কোটি টাকা। ভারতের ৩ ধনীতম শিল্পপতিই ১ বছরে সম্পত্তির পরিমাণ ১০০ বিলিয়ন ডলার বাড়িয়েছেন, যা ভারতীয় মুদ্রায় প্রায় ৭ লক্ষ ৪১ হাজার কোটি টাকা।

আরও পড়ুন: Puducherry Election 2021: দক্ষিণে পদ্ম ফোটাতে ভরসা সেই ব্র্যান্ড মোদী!

 

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest