ভোট মিটতেই টানা ৩ দিন কলকাতা-সহ দেশের ৪ বড় শহরে বাড়ল পেট্রল, ডিজেলের দাম

কলকাতায় পেট্রলের দাম বেড়ে হয়েছে লিটার প্রতি ৯১ টাকা ১৪ পয়সা।
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest

টানা ৩ দিন বাড়ল পেট্রল ও ডিজেলের দাম। দেশের ৪ বড় শহর কলকাতা, দিল্লি, মুম্বই ও চেন্নাইয়ে ক্রমাগত বেড়েই চলেছে জ্বালানি তেলের দাম।

বৃহস্পতিবার প্রতি লিটারে প্রায় ৩০ পয়সা করে বেড়েছে পেট্রল, ডিজেলের দাম। কলকাতায় পেট্রলের দাম বেড়ে হয়েছে লিটার প্রতি ৯১ টাকা ১৪ পয়সা। অন্য দিকে, ডিজেলের দাম প্রতি লিটারে বেড়ে হয়েছে ৮৪ টাকা ২৬ পয়সা। রাজধানী দিল্লিতে প্রতি লিটার পেট্রলের দাম ৯০ টাকা ৯৯ পয়সা। ডিজেলের দাম বেড়ে হয়েছে লিটার প্রতি ৮১ টাকা ৪২ পয়সা।

বাণিজ্য নগরী মুম্বইয়ে পেট্রলের দাম সবচেয়ে বেশি। সেখানে পেট্রলের দাম লিটার প্রতি ৯৭ টাকা ৩৪ পয়সা। মুম্বইয়ে লিটার প্রতি ডিজেলের দামও সর্বাধিক, ৮৮ টাকা ৪৯ পয়সা।

আরও পড়ুন: ‘দিদি, ও দিদি’ কটাক্ষের যোগ্য জবাব, BJP-কে কটাক্ষ শরদ-অখিলেশ-হার্দিকের

চেন্নাইয়েও পেট্রলের দাম ৯০ টাকার বেশি। দক্ষিণের এই শহরে লিটার প্রতি পেট্রলের দাম ৯২ টাকা ১৪ পয়সা। সেখানে ডিজেলের দাম ৮৪ টাকা ২৬ পয়সা প্রতি লিটার।

দেশে জ্বালানি তেলের মূল্য নির্ধারণ করে ইন্ডিয়ান অয়েল কর্পোরেশন, ভারত পেট্রোলিয়াম, হিন্দুস্তান পেট্রোলিয়ামের মতো সংস্থা। আন্তর্জাতিক বাজারে তেলের দামের হিসাবে দেশেও পেট্রল-ডিজেলের দাম পরিবর্তিত হয়। মাঝে বেশ কিছু দিন স্থিতিশীল ছিল জ্বালানি তেলের দাম। কিন্তু গত ৩ দিন ধরে তা ফের বাড়তে শুরু করেছে।

আংশিক লকডাউনে দেশে এক মাসেই কর্মহীন হয়ে পড়েছেন ৭৫ লক্ষ মানুষ। খাদ্যপণ্য ও জিনিসপত্রের দাম ফের বাড়ছে। এই অবস্থায় অনেক বিশেষজ্ঞ বলছেন, জুনে আন্তর্জাতিক বাজারে অপরিশোধিত তেলের দাম ব্যারেল প্রতি ৭০ মার্কিন ডলার পেরিয়ে যাবে। ফলে, ভারতেও স্বাভাবিক ভাবেই পেট্রল, ডিজেলের দাম আরও বাড়বে এবং তাতে পরিবহণ খরচ ও মূল্যবৃদ্ধি ঘটে সাধারণ মানুষের সঙ্কট যে তীব্রতর হবে, তাতে কোনও সন্দেহ নেই। পাশাপাশি, ডিজেলের লাগামছাড়া দাম বৃদ্ধি ঘটলে কলকারখানার উৎপাদন ফের নিম্নগামী হওয়ার আশঙ্কা থেকেই যাচ্ছে।

এই পরিস্থিতিতে তেলের দাম নিয়ন্ত্রণে থাকতে পারে, যদি কেন্দ্র ও বিভিন্ন রাজ্য সরকার পেট্রল, ডিজেলের উপর করের হার কমায়। কিন্তু, করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ের জেরে উদ্ভূত সঙ্কটে অন্যান্য উৎস থেকে কেন্দ্র ও রাজ্য সরকারগুলির রাজস্ব কমে যাওয়ায় পেট্রল, ডিজেলের উপর কর আপাতত ছাঁটাইয়ের সম্ভাবনা প্রায় নেই বললেই চলে।

আরও পড়ুন: সরকারি তথ্যেই অভাব স্পষ্ট, দেশ জুড়ে ক্রমেই কমছে টিকাকরণ, আরও কমার আশঙ্কা

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest