আজ সন্ধ্যায় ফের জাতির উদ্দেশে ‘বার্তা’ মোদীর, তুঙ্গে কৌতূহল

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest

করোনাভাইরাস পরিস্থিতির মধ্যেই দেশের বিভিন্ন প্রান্তে উৎসবের মরশুমে ঢাকে কাঠি পড়ে গিয়েছে। তারইমধ্যে আজ (মঙ্গলবার) সন্ধ্যা ছ’টায় জাতির উদ্দেশে ভাষণ দেবেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

মঙ্গলবার দুপুর একটা নাগাদ একটি টুইটবার্তায় মোদী বলেন, ‘আজ সন্ধ্যা ছ’টায় আমার সহ-নাগরিকদের একটি বার্তা দেব। আপনারা অবশ্যই থাকবেন।’ তবে কী বিষয়ে সেই ‘বার্তা’ দেবেন, সেই রহস্য অবশ্য যথারীতি ভাঙেননি মোদী। স্বভাবতই মোদীর ‘বার্তা’ নিয়ে জল্পনা শুরু হয়েছে।

সারা দেশেই বিভিন্ন রাজ্যে উৎসবের মরসুম। সেই উৎসবে গা ভাসিয়ে করোনার সংক্রমণ যাতে লাগামছাড়া মাত্রায় বৃদ্ধি না পায় তার জন্য সাবধানতার বার্তা থাকতে পারে মোদীর বক্তব্যে। করোনাভাইরাস সংক্রান্ত সরকার নিযুক্ত প্যানেল সম্প্রতি জানিয়েছে, দেশ করোনাভাইরাসের শিখর পেরিয়ে এসেছে।

আরও পড়ুন: লকআপে আটকে রেখে ১০ দিন ধরে গণধর্ষণ! কাঠগড়ায় পাঁচ পুলিশকর্মী

সেই বার্তা পেয়ে দেশবাসী যাতে করোনার বিধিনিষেধে শিথিলতা না আনেন, এমন সব বার্তা প্রধানমন্ত্রীর ভাষণে থাকতে পারে বলেই মনে করছেন পর্যবেক্ষক মহল। যদিও অন্য কোনও বিষয়ে জরুরি ঘোষণার সম্ভাবনাও উড়িয়ে দিচ্ছেন না তাঁরা।

দেশে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ শৃঙ্খল আটকাতে জাতির উদ্দেশে ভাষণে প্রথম বার ২২ মার্চ জনতা কার্ফুর ডাক দিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী। তার পর ২৪ মার্চের ভাষণে পরের দিন থেকে দেশ্যবাপী লকডাউনের ঘোষণা হয়েছিল। ধাপে ধাপে লকডাউন বাড়িয়ে মোট ৬৮ দিন লকডাউন হয়েছে। তার পর আবার শুরু হয়েছে আনলক। এই গোটা পর্বে একাধিক বার জাতির উদ্দেশে ভাষণে কখনও থালা বাজানো-প্রদীপ জ্বালানোর কথা বলেছেন, কখনও বা ‘দো গজ দূরি, মাস্ক জরুরি’— এসব ‘জুমলা’ বলেছেন। মঙ্গলবারের ভাষণের দিকেও নজর রয়েছে দেশবাসীর।

আরও পড়ুন: গভীর রাতে হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে পর্ণ ক্লিপস শেয়ার! গোয়ার উপমুখ্যমন্ত্রীর বিরুদ্ধে দায়ের অভিযোগ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest