প্রয়াত প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায়, শোকের ছায়া রাজনৈতিক মহলে

মস্তিষ্কে জমাট বাঁধা রক্ত, দোসর হয়েছিল করোনা ভাইরাস। তারপর থেকেই কোমায় চলে গিয়েছিলেন। কঠিন লড়াইয়ে শেষ পর্যন্ত হার মানতে হল। প্রয়াত দেশের প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায় (Pranab Mukherjee)। বয়স হয়েছিল ৮৪ বছর। সোমবার সন্ধেবেলা দিল্লির সেনা হাসপাতালে মৃত্যু হয় তাঁর। সোমবার বিকেল পৌনে ছ’টা নাগাদ তাঁর পুত্র অভিজিৎ মুখোপাধ্যায় টুইট করে এ খবর জানিয়েছেন। নিস্তব্ধ তাঁর গ্রাম বীরভূমের কীর্ণাহার।

সোমবার একটি টুইটবার্তায় প্রণববাবুর পুত্র অভিজিৎ মুখোপাধ্যায় বলেন, ‘দুঃখের সঙ্গে জানাচ্ছি, সেনা হাসপাতালের চিকিৎসকদের প্রাণপ্রণ প্রচেষ্টা, সারা ভারতের মানুষের প্রার্থনা, দুয়া সত্ত্বেও এইমাত্র আমার বাবা শ্রী প্রণব মুখোপাধ্যায় মারা গিয়েছেন। আমি আপনাদের সকলকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি।’

গত ৯ অগস্ট রাতে নিজের দিল্লির বাড়িতে শৌচাগারে পড়ে গিয়েছিলেন প্রণববাবু। পর দিন সকাল থেকে তাঁর স্নায়ুঘটিত কিছু সমস্যা দেখা দেয়। বাঁ হাত নাড়াচাড়া করতে সমস্যা হচ্ছিল। চিকিৎসকদের পরামর্শে দ্রুত ভর্তি করা হয় হাসপাতালে।  এমআরআই স্ক্যানে দেখা যায়, তাঁর মাথার ভিতর রক্ত জমাট বেঁধে রয়েছে। জরুরি ভিত্তিতে অস্ত্রোপচারের সিদ্ধান্ত নেন চিকিৎসকরা। কিন্তু অস্ত্রোপচারের পর অবস্থার উন্নতি হয়নি। ১৩ অগস্ট থেকে তিনি গভীর কোমায় চলে যান।

প্রণব মুখোপাধ্যায় দীর্ঘ দিন ধরে ডায়াবিটিসের রোগী। ১০ তারিখ হাসপাতালে ভর্তির পর ধরা পড়ে, তিনি কোভিড-১৯ আক্রান্তও হয়েছেন। সেই অবস্থাতেই ওই দিন রাতে দীর্ঘ অস্ত্রোপচার হয়। তার পর থেকে ভেন্টিলেশনে রাখা হয়েছিল প্রণববাবুকে।  অস্ত্রোপচারের আগে, নিজের করোনা সংক্রমিত হওয়ার খবর টুইট করে জানিয়েছিলেন তিনিই। সেটাই ছিল প্রণব মুখোপাধ্যায়ের শেষ টুইট।

অস্ত্রোপচারের পর থেকেই ভেন্টিলেশনে ছিলেন তিনি। কখনও কখনও শারীরিক অবস্থার উন্নতি খবর মিললেও কখনও কখনও প্রণববাবুর শারীরিক অবস্থা আরও জটিল হয়েছে। মূত্রাশয় সংক্রান্ত সমস্যা এবং ফুসফুসে সংক্রমণও ধরা পড়েছিল তাঁর। কিন্তু যাবতীয় লড়াই শেষে হাসপাতালে ভরতির ২২ দিনের মাথায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন প্রণববাবু।

দীর্ঘদিন ধরে রাজনৈতিক, প্রশাসনিক, সাংবিধানিক নানা দায়িত্ব পালন শেষে বিদায় নিয়েছিলেন সেসব পদ থেকে। তবু অভিভাবকের মতো আশ্রয় হয়ে ছিলেন দলমত নির্বিশেষে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতৃত্বের কাছে। কিন্তু এবার সব ছেড়ে চিরবিদায় নিলেন প্রণব মুখোপাধ্য়ায়।

আরও পড়ুন: কমপক্ষে ৫ বছর গ্রামে, চাকরি করতে হবে ডাক্তারদের!