শিশুর দুধ পৌঁছে দিতে চলন্ত ট্রেনের পিছনে দৌড় আরপিএফ কর্মীর, কুর্নিশ জানাল নেট নাগরিকরা

ভোপাল: এক হাতে সার্ভিস বন্ধুকটা ধরে, অন্য হাতে দুধের প্যাকেট নিয়ে ট্রেনের সঙ্গে ছুটছেন এক আরপিএএফ কর্মী। বুধবার এমনই এক দৃশ্যের সাক্ষী থাকল গোটা দেশ। ভিডিয়োটি ভাইরাল হতে প্রশংসার বন্যা বয়ে গিয়েছে।

জানা গিয়েছে, শ্রমিক স্পেশাল ট্রেনে চার বছরের সন্তানকে নিয়ে উত্তরপ্রদেশের গোরক্ষপুরে ফিরছিলেন সাফিয়া হাশমি। দীর্ঘ ট্রেন সফরে সন্তানকে দুধ কিনে খাওয়ানোর সুযোগ হয়নি তাঁর। সাফিয়া জানান, বাধ্য হয়ে বিস্কুট জলে ভিজিয়েই খাওয়াতে হচ্ছিল সন্তানকে। সন্ধ্যার সময় ট্রেনটি ভোপালে পৌঁছয়। কয়েক মিনিটের জন্য স্টেশনে দাঁড়িয়েছিল ট্রেনটি। সাফিয়া ভরসা করে নামতেও পারছিলেন না যদি ট্রেন ছেড়ে দেয়! কী করবেন প্ল্যাটফর্মের দিকে তাকিয়ে যখন ভাবছিলেন সাফিয়া, তখনই তাঁর নজরে আসেন এক আরপিএফ জওয়ান ইন্দ্র যাদব।

আরও পড়ুন: ভ্রমনপিপাসু বাঙালির জন্যে সু -খবর! ৮ জুন থেকে খুলতে চলেছে বাংলার পাঁচটি পর্যটন কেন্দ্র

তাঁকে বিষয়টি জানিয়ে দুধের একটা প্যাকেট কিনে দেওয়ার আর্জি জানান। এক মুহূর্ত না ভেবে ইন্দ্র দুধ কিনতে চলে যান। কিন্তু তত ক্ষণে ট্রেন প্ল্যাটফর্ম ছাড়তে শুরু করে দিয়েছিল। নিজের জীবনের ঝুঁকি নিয়েই এক হাতে সার্ভিস বন্দুকটা ধরে, অন্য হাতে দুধের প্যাকেট নিয়ে প্ল্যাটফর্মের উপর দিয়ে ট্রেনের সঙ্গে ছুটতে শুরু করেন। শেষমেশ সাফিয়ার হাতে পৌঁছে দেন দুধের প্যাকেটটি।  

ইন্দ্র যাদবের এই ভিডিয়োটি সোশ্যাল মিডিয়ায় ব্যাপক ভাইরাল হয়েছে। তাঁর প্রশংসার বন্যা বয়ে গিয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। সাফিয়া নিজে সেই ভিডিয়ো পোস্ট করে ইন্দ্রকে রিয়েল হিরো বলে বর্ণনা করেছেন। খোদ রেলমন্ত্রী পীযূষ গোয়েলও ইন্দ্রর এই ভূমিকায় আপ্লুত। তিনি টুইট করে বলেন, “চার বছরের এক শিশুর দুধের জন্য যা করলেন ইন্দ্র তা একটা নজিরবিহীন দৃষ্টান্ত হয়ে রইল।”

আরও পড়ুন: বড় বিপদ বাইরে! ফেস মাস্ক আর ফেস শিল্ড – দুটোর মধ্যে কোনটা বেশি কাজের?

Gmail