মহারাষ্ট্রে ধসে পড়ল পাঁচ তলা বাড়ি, জখম ১৫, আটকে অন্তত ৭০

একটানা ভারী বৃষ্টিতে নাজেহাল মহারাষ্ট্র। তার মধ্যেই পাঁচ তলা বাড়ি ভেঙে পড়ে বিপত্তি ঘটল সেখানে। গুরুতর জখম অবস্থায় কমপক্ষে ১৫ জনকে উদ্ধার করা হয়েছে সেখান থেকে। এখনও ধ্বংসাবশেষের নীচে তাপা পড়ে রয়েছেন কমপক্ষে ৭০ জন। জাতীয় বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনীর তিনটি দল সেখানে উদ্ধারকাজে হাত লাগিয়েছে।

সোমবার সন্ধ্যা ৬টা ৫০ মিনিট নাগাদ মহারাষ্ট্রের রায়গড় জেলার কাজলপুর এলাকায় এই ঘটনা ঘটে। আচমকাই হুড়মুড়িয়ে ভেঙে পড়ে বাড়িটি। ঘটনাস্থল থেকে যে ছবি সামনে এসেছে, তাতে দেখা গিয়েছে, বাড়িটি ভেঙে পড়ার সঙ্গে সঙ্গেই ধুলোর চাদরে ঢেকে যায় গোটা এলাকা।

আরও পড়ুন: দিনভর নাটকই সার! কংগ্রেস সভানেত্রী পদে আপাতত সনিয়া গান্ধীই

রায়গড়ের জেলা শাসক নিধি চৌধুরী জানিয়েছেন, বাড়িটির নিচে ৫০-৭০ জনের চাপা পড়ে গিয়েছে বলে প্রাথমিক ভাবে মনে করা হচ্ছে। হিন্দুস্তান টাইমসকে তিনি জানিয়েছেন যে দশ বছরের পুরনো বাড়িটিতে ৪০টি ফ্ল্যাট আছে। প্রথমে বাড়িটির ওপরে তিনটি তলা ধসে পড়ে। তখন কিছু লোক বেরিয়ে যান। এরপর পুরো বাড়িটিই বসে যায়। এখনও পর্যন্ত ১৫ জনকে উদ্ধার করা হয়েছে। আহতদের হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

পরে অবশ্য রায়গড় পুুলিশ বলে যে ৭০-৮০ জন ওই বাড়ির নিচে চাপা পড়ে গিয়েছেন বলে অনুমান। তারিক গার্ডেন ফ্ল্যাটটিতে ৪৫-৪৭টি ফ্ল্যাট আছে বলে পুলিশ জানিয়েছে। সন্ধ্যা ৬টা নাগাদ বাড়িটি ভেঙে পড়ে বলে জানিয়েছে স্থানীয়রা। পুনে থেকে তিনটি এনডিআরএফ দল ছুটে  যাচ্ছে মহড়ে উদ্ধারকাজে সাহায্য করার জন্য। আপাতত স্থানীয় প্রশাসন প্রাথমিক কাজ শুরু করেছে।

ঠিক কী কারণে এই বিপর্যয় ঘটল, তা এখনও নির্দিষ্ট ভাবে জানা যায়নি।  তবে গত কয়েক দিন ধরেই ভারী বৃষ্টি চলছে মহারাষ্ট্রে। তার জেরেই মাটি আলগা হয়ে বিপত্তি ঘটেছে বলে প্রাথমিক ভাবে মনে করা হচ্ছে।

আরও পড়ুন: টুইটের জন্য ক্ষমা চাইতে রাজি হলেন না দোষী সাব্যস্ত প্রশান্ত ভূষণ