অসংবেদনশীল নেতৃত্বের হাতে পঙ্গু ভারত, মোদী সরকারকে চাঁচাছোলা ভাষায় আক্রমণ সনিয়ার

এদিন বিধানসভা ভোটে জেতার জন্য তৃণমূলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও ডিএমকে নেতা এম কে স্ট্যালিনকে অভিনন্দন জানান তিনি।
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest

ভারতে করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ের সংক্রমণ নিয়ে শুক্রবার দলীয় সাংসদদের সঙ্গে একটি বৈঠক করলেন কংগ্রেসে সভানেত্রী সনিয়া গান্ধী। সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে আনতে একাধিক রাজ্য সরকারের পক্ষ থেকে যে যে পরামর্শ কেন্দ্রকে দেওয়া হয়েছে, নরেন্দ্র মোদী যাতে সেদিকেও নজর দেন, সেই আবেদনও জানান সনিয়া।

এদিন নরেন্দ্র মোদী সরকারকে চাঁচাছোলা ভাষায় আক্রমণ করেছেন তিনি। এ দিনের বৈঠকে সনিয়া বলেন, “এই ধরনের সঙ্কট মোকাবিলা করতে সক্ষম, ধৈর্যশীল ও দূরদর্শী নেতৃত্ব প্রয়োজন। কিন্তু দেশ বর্তমানে মোদী সরকারের উদাসীনতা এবং অক্ষমতার ভারে ডুবে যাচ্ছে। একটা বিষয় পরিষ্কার করে দিতে চাই। সিস্টেম ব্যর্থ হয়নি। ভারতে অনেক শক্তি এবং সুযোগ থাকা সত্ত্বেও মোদী সরকার সেগুলিকে ব্যবহার করতে ব্যর্থ হয়েছে। আমি আরও একটা জিনিস স্পষ্ট করে বলতে চাই, ভারত আজ এমন একটি রাজনৈতিক নেতৃত্বের হাতে পঙ্গু হয়ে গিয়েছে যার জনগণের প্রতি কোনও সহানুভূতি নেই। মোদী সরকার দেশের মানুষের প্রত্যাশা পূরণে ব্যর্থ হয়েছে।”

আরও পড়ুন: করোনা লকডাউন : এপ্রিলেই কাজ হারিয়েছেন ৭০ লক্ষ মানুষ

প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং থেকে শুরু করে রাহুল গান্ধী এবং সনিয়া নিজে কোভিড মোকাবিলার বিষয়ে নানা পরামর্শ দিয়ে একাধিক চিঠি দিয়েছে। কিন্তু কোনও পরামর্শেই কেন্দ্র কর্ণপাত করার প্রয়োজন মনে করেনি, এমনটাই জানান কংগ্রেসের শীর্ষ নেত্রী। যদিও শেষে তিনি জানান, দলগতভাবে কংগ্রেসে বিশ্বাস করে যে কোভিডের বিরুদ্ধে লড়াই সরকারের বিরুদ্ধে আমাদের লড়াই নয়। লড়াইটা আমাদের সঙ্গে করোনার। এই যুদ্ধ রাজনৈতিক গণ্ডি মানে না। গোটা দেশ হিসেবে এক হয়ে আমাদের এই যুদ্ধ জয় করতে হবে।

সেই সঙ্গে দলকে তিনি মনে করিয়ে দেন, করোনার বিরুদ্ধে লড়াইটা ঐক্যবদ্ধভাবে লড়তে হবে। এটা আমরা ওরা করার সময় নয়। চার রাজ্য ও একটি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে বিধানসভা ভোটে কংগ্রেসের হতাশাজনক ফল নিয়ে সনিয়া বলেন , ভোটে কংগ্রেসের ফলাফল খুবই হতাশাজনক। তিনি স্বীকার করেন, ফল যে এত খারাপ হবে চিন্তাই করেননি। এদিন বিধানসভা ভোটে জেতার জন্য তৃণমূলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও ডিএমকে নেতা এম কে স্ট্যালিনকে অভিনন্দন জানান তিনি। সেই সঙ্গে বলেন, ‘আমরা পরাজয় থেকে শিক্ষা নেব।’

আরও পড়ুন: দৈনিক সংক্রমণে ফের নয়া রেকর্ড, একদিনেই আক্রান্ত ৪ লক্ষ ১৪ হাজার, মৃত ৩৯১৫

 

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest