যোগী রাজ্যে মন্দিরে জল খাওয়ার জন্য মুসলিম যুবককে বেধড়ক মার, ভিডিয়ো দেখেই গ্রেফতার অভিযুক্ত

ছর কয়েক আগে মহম্মদ আকলাখকে ফ্রিজে গো মাংস রাখার ‘অপরাধে’ পিঠিয়ে মেরে ফেলা হয়েছিল এই যোগী রাজ্যের দাদরিতে।
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest

ফের বিতর্কে যোগী রাজ্য। উত্তরপ্রদেশের গাজিয়াবাদে তোলা সম্প্রতি একটি ভিডিয়ো নেটমাধ্যমে ভাইরাল হয়, সেখানে দেখা যায় এক যুবককে বেধড়ক মারছেন এক ব্যক্তি। আক্রান্ত যুবকের দোষ, তিনি মন্দিরে জল খেয়েছেন। এবং তিনি ধর্মে মুসলমান। ঘটনার ভয়াবহতায় সব মহল থেকে সমালোচনা শুরু হওয়ায় শেষে অভিযুক্ত ব্যক্তিকে গ্রেফতার করা হয়। দায়ের করা হয় অভিযোগ। বছর কয়েক আগে মহম্মদ আকলাখকে ফ্রিজে গো মাংস রাখার ‘অপরাধে’ পিঠিয়ে মেরে ফেলা হয়েছিল এই যোগী রাজ্যের দাদরিতে।

পুলিশ জানিয়েছে, অভিযুক্তের নাম শিরিং নন্দন যাদব। তিনি বিহারে বাসিন্দা। ভাগলপুরে তাঁর বাড়ি। তিনি কর্মসূত্রে উত্তরপ্রদেশে রয়েছেন। ঘটনার তদন্ত শুরু করা হয়েছে।

আরও পড়ুন: ধর্মনিরপেক্ষতা শব্দটাই দেশের সবচেয়ে বড় শত্রু, মন্তব্য যোগী আদিত্যনাথের

কী দেখা গিয়েছিল ভিডিয়োতে? দেখা যায়, স্থানীয় একটি মন্দিরে জল খেতে ঢুকেছেন ওই যুবক। তিনি বেরিয়ে আসার পর অভিযুক্ত শিরিং যুবককে তাঁর নাম জিজ্ঞাসা করেন। বাবার নামও জিজ্ঞাসা করেন। তারপর প্রশ্ন করেন, কেন তিনি মন্দিরে ঢুকেছিলেন। যুবক উত্তর দেওয়ার পরেই শুরু হয় মারধর। চড়, লাথি, ঘুসিতে কাবু আক্রান্ত যুবক বারবার ছেড়ে দেওয়ার কথা বললেও টানা মারধর চলতেই থাকে। সেই ভিডিয়ো দেখেই কেঁপে উঠেছিলেন নেটাগরিকরা। শেষ নেটমাধ্যমে তীব্র প্রতিবাদ শুরু হওয়ায় ব্যবস্থা নিতে বাধ্য হয় পুলিশ।

সোশ্যাল মিডিয়ায় ভিডিয়োটি ভাইরাল হতেই সমালোচনায় সরব হন নেটাগরিকরা। টুইটারে গাজিয়াবাদ পুলিশকে ট্যাগ করে দ্রুত পদক্ষেপের দাবিও জানান তাঁরা। এরপরই তৎপর হয় পুলিশ। ভিডিয়ো দেখে অভিযুক্তকে চিহ্নিতকরণ করা হয় ও শুক্রবারই তাঁকে গ্রেফতার করা হয়।

আরও পড়ুন: অবিশ্বাস্য সম্পদ বৃদ্ধির হার! ইলন মাস্ক, জেফ বেজসকেও টেক্কা দিলেন গৌতম আদানি

 

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest