এবার নির্ভয়াকাণ্ডের ছায়া মধ্যপ্রদেশে, গণধর্ষণের পর গোপনাঙ্গে ঢোকানো হল রড

বিজেপি শাসিত রাজ্যে মহিলাদের নিরাপত্তার লজ্জানক চিত্র ফের বেআব্রু হয়ে পড়ল। যোগী রাজ্যের পরে এবার নির্ভয়া কাণ্ডের ভয়াবহ স্মৃতি উস্কে ভয়ঙ্কর গণধর্ষণের ঘটনা ঘটল মধ্যপ্রদেশে। রাজ্যের সিধি জেলার অভিলিয়া থানা এলাকায় এক মহিলাকে গণধর্ষণের পরে তাঁর গোপনাঙ্গে রড ঢুকিয়ে দিল তিন যুবক। সঞ্জয় গান্ধি হাসপাতালে মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছেন নির্যাতিতা। ওই ভয়ঙ্কর ঘটনার কথা প্রকাশ্যে আসার পরেই শোরগোল পড়ে গিয়েছে। বিজেপি শাসিত রাজ্যে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির ‘বেটি বাঁচাও, বেটি পড়াও’ স্লোগান কার্যত তামাশায় পরিণত হয়েছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, মধ্যপ্রদেশের সিদ্ধি (Sidhi) জেলার আমালিয়া এলাকার বাসিন্দা ওই নির্যাতিতা মহিলার স্বামী কয়েক বছর আগে মারা গিয়েছেন। দুই ছেলেকে নিয়ে সংসার চালানোর জন্য তাই স্থানীয় এলাকায় চায়ের দোকান চালাতেন তিনি। আর থাকতেন দোকানের পাশের ঝুপড়িতে। শনিবার রাতে ওই মহিলা যখন দুই ছেলেকে নিয়ে সেখানে ঘুমোচ্ছিলেন আচমকা তিন ব্যক্তি উপস্থিত হয়। তাঁকে ডেকে তুলে খাবার জল চায়।মহিলা জানান, ঘরে দেওয়ার মতো খাবার জল নেই। ওই কথা শুনে তিন যুবক জোর করে ঘরে ঢুকে যায়। ভয় পেয়ে সাহায্যের চি‍ৎকার করতে থাকেন তিনি। কিন্তু সাহায্যের জন্য কেউ এগিয়ে আসেননি। এর পরেই সমস্ত সীমা লঙ্ঘন করে বোনের সামনেই মহিলাকে তিন যুবক ধর্ষণ করে। সবক শেখাতে যৌনাঙ্গে ঢোকানো হয় রড।

আরও পড়ুন:  ‘স্বাস্থ্যসাথী’ করলেন বিজেপি সভাপতির পরিবার, মুখে মুখ্যমন্ত্রীর প্রশংসাও! অস্বস্তিতে বিজেপি

আশঙ্কাজনক অবস্থায় দিদিকে অটোতে চাপিয়ে থানায় পৌঁছয় নির্যাতিতার বোন। মহিলার সারা শরীর তখন রক্তে ভিজে যাচ্ছিল। পুলিশই বেহুঁশ মহিলাকে স্থানীয় এক স্বাস্থ্যকেন্দ্রে চিকি‍ৎসার জন্য নিয়ে যায়। কিন্তু ধর্ষিতার শারীরিক অবস্থা দেখে চিকি‍ৎসকরা সিধি জেলা হাসপাতালে স্থানান্তরিত করেন। সেখানে অবস্থার আরও অবনতি ঘটলে নির্যাতিতাকে রিবায় সঞ্জয় গান্ধি মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।

এদিকে এই নৃশংস ঘটনার খবর ছড়িয়ে পড়তে উত্তেজনা ছড়ায় স্থানীয় এলাকায়। পুলিশও দ্রুত তদন্ত করে সোমবার সকালে তিন অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করে। তাদের বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন মধ্যপ্রদেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী নরোত্তম মিশ্র। অন্যদিকে এই ঘটনাকে উত্তরপ্রদেশের হাথরাস ও বদায়ুন কাণ্ডের সঙ্গে তুলনা করে শিবরাজ সিং চৌহানের তীব্র সমালোচনা করেছে বিরোধীরা। এপ্রসঙ্গে মধ্যপ্রদেশের প্রভাবশালী কংগ্রেস নেতা কেকে মিশ্র বলেন, ‘শিবরাজ সিংজি, হাথরাস ও বদায়ুনের ভূত এবার মধ্যপ্রদেশেও ঢুকে পড়েছে। সিদ্ধি জেলার গণধর্ষণের পর এক মহিলার গোপনাঙ্গে লোহার রড ঢুকিয়ে দিয়েছে দুষ্কৃতীরা। কিন্তু, এখন সমস্ত জাতীয়তাবাদী ও স্বঘোষিত অভিভাবকরা চুপ করে রয়েছেন। আপনি একটা টুইট পর্যন্ত করেননি। একে কি দ্বিচারিতা বলে না?’

আরও পড়ুন: কেবল তিন কোটি ভ্যাকসিনের খরচ কেন্দ্রের!রাজ্যে কাল আসতে পারে টিকা, কথা মোদী-মমতার