মুম্বইয়ের অভিজাত হোটেল থেকে উদ্ধার সাতবারের সাংসদের দেহ, দানা বাঁধছে রহস্য

প্রাথমিক ভাবে আত্মহত্যা বলে মনে করছে পুলিশ।

দাদরা ও নাগর হাভেলির সাত বারের সাংসদ মোহন দেলকরের মৃতদেহ সোমবার মুম্বইয়ের একটি হোটেল থেকে উদ্ধার করা হয়েছে। প্রাথমিক ভাবে পুলিশের সন্দেহ, আত্মহত্যা করেছেন এই ৫৮ বছর বয়সী এই নির্দল সাংসদ।

মহারাষ্ট্রের মেরিন ড্রাইভের একটি হোটেল থেকে সাংসদের দেহ উদ্ধার করে পুলিশ। দেহ ময়না তদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে। ইতিমধ্যেই মেরিন ড্রাইভের সি গ্রিন হোটেলে পৌঁছেছে পুলিশ। শুরু হয়েছে তদন্ত। পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, হোটেলের ঘর থেকে পাওয়া গিয়েছে একটি সুইসাইড নোট। ময়না তদন্তের পরই মৃত্যুর আসল কারণ জানা সম্ভব বলে জানিয়েছে মুম্বই পুলিশ। মুম্বইয়ের জেজে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে দেহ।

আদিবাসীদের অধিকারের জন্য আজীবন কাজ করেছেন তিনি। প্রথম দিকে ছিলেন ট্রেড ইউনিয়ন নেতা। ১৯৮৯ সালে প্রথমবার কংগ্রেস টিকিটে লোকসভায় আসেন তিনি। ২০০৪ অবধি টানা পেয়েছেন জনতার আশীর্বাদ। তবে এরপর হেরে যান ২০০৯ ও ২০১৪ সালে। ২০১৯-এ দাদরা ও নগর হাভেলি কেন্দ্র থেকে জয়ী হয়ে সাংসদ হন তিনি। নিজের প্রতিষ্ঠিত ভারতীয় নবশক্তি পার্টিক টিকিটে জয়যুক্ত হন দেলকর। মাঝে তিনবার কংগ্রেস ও তিনবার বিজেপির টিকিটে জিতেছিলেন এই বর্ষীয়ান রাজনীতিবিদ।

আরও পড়ুন: অবশেষে নতিস্বীকার, গালওয়ানে নিহত ৫ সেনার নাম প্রকাশ করল চিন

গত বছর বিহারের মুখ্যমন্ত্রী নীতীশ কুমারের সঙ্গে বৈঠক হয় তাঁর। দাদরা ও নগর হাভেলির স্থানীয় একটি ভোটের জন্য জেডিইউকে সমর্থন করেন তিনি। স্থানীয় বরিষ্ঠ পঞ্চায়েতের প্রাক্তন সভাপতি ফতেনিশ চৌহ্বানের প্রতিক্রিয়া, ”রাজনৈতিক মতাদর্শগত পার্থক্য থাকতে পারে, কিন্তু ওঁর থেকে অনেক কিছু শিখেছি।এভাবে চলে যাবে, ভাবতেও পারছি না।”

মূলত কৃষি বিশারদ ছিলেন তিনি। এছাড়াও লোকসভার পাবলিক গ্রিভান্স, আইন মন্ত্রকের স্ট্যান্ডিং কমিটির সদস্য ছিলেন।দিন কয়েক আগে দক্ষিণ মুম্বইয়ের মেরিন ড্রাইভ হোটেলে তিনি আসেন। এরপর সোমবার দুপুরে এই হোটেল থেকেই তাঁর মৃতদেহ উদ্ধার হয়েছে। পুলিশ সূত্রে খবর, দেহের পাশ থেকে গুজরাটি ভাষায় লেখা একটি সুইসাইড (Suicide) নোট পেয়েছেন তদন্তকারীরা।

আরও পড়ুন: আস্থা ভোটে হার, পুদুচেরিতে সংখ্যাগরিষ্ঠতা হারাল কংগ্রেস সরকার