আসছে ইদ, করোনা আবহে বাড়িতেই বিশেষ দিনের জন্য বানিয়ে ফেলুন স্পেশাল কয়েকটি পদ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest

আগামী সপ্তাহে খুশির ইদ। যদিও এ বছর করোনা আবহে ইদ কতটা খুশির হয়ে উঠবে, সে সম্পর্কে সংশয় রয়েছে বিস্তর। তবু এই কঠিন সময় দ্রুত পেরিয়ে যাওয়ার প্রার্থনাই তো সম্বল। তাই মনের আঁধার দূর করে আনন্দের প্রহর গুনছেন সকলে। আর উৎসবের অন্যতম অনুসঙ্গ একটু ভিন স্বাদের খাওয়াদাওয়া। এবছর তো সেভাবে বাইরে বেরিয়ে বন্ধুবান্ধবদের নিয়ে রেস্তরাঁয় খাওয়া তো বন্ধ। তা’বলে কি আনন্দে ভাঁটা পড়বে? মোটেই নয়। বাড়িতেই বানিয়ে নিন না রেস্তরাঁর মতো সুস্বাদু কিছু পদ। রইল কয়েকটি রেসিপি –

শাহি দুধসেমাই

উপকরণ: সেমাই ১০০ গ্রাম (ভেঙে ছোট করে নেওয়া), তরল দুধ ১ লিটার, ক্রিম ১৫০ গ্রাম, কনডেন্সড মিল্ক ২৫০ গ্রাম (মিষ্টি বেশি পছন্দ করলে একটু বাড়িয়ে দেওয়া যেতে পারে), পেস্তাকুচি ২ টেবিল চামচ, কাঠবাদামকুচি ২ টেবিল চামচ, খেজুরকুচি ৩ টেবিল চামচ, কিশমিশ ৩ টেবিল চামচ, গোলাপজল দেড় চা-চামচ, এলাচগুঁড়া তিন ভাগের এক চা-চামচ, ঘি ২ টেবিল চামচ, পেস্তা, কাঠবাদাম, খেজুরকুচি সাজানোর জন্য।

 

প্রণালি: প্যানে ঘি গরম করে তাতে পেস্তা, কাঠবাদাম, খেজুরকুচি আর কিশমিশ দিয়ে মিনিট দুয়েক কম আঁচে ভেজে তুলে নিতে হবে। একই প্যানে সেমাই ৪-৫ মিনিট ভেজে লালচে হলে নামিয়ে নিন। তারপর সেই একই প্যানে তরল দুধ, কনডেন্সড মিল্ক আর ক্রিম ভালো করে মিশিয়ে একবার ফুটে উঠলে তাতে ভেজে রাখা সেমাই, বাদাম, কিশমিশ দিয়ে দিতে হবে। ভালো করে মিশিয়ে কম আঁচে ৮-১০ মিনিট রান্না করুন। মাঝেমধ্যে অবশ্যই নেড়ে দিতে হবে, নয়তো নিচে লেগে যেতে পারে। এরপর এতে গোলাপজল আর এলাচগুঁড়া মিশিয়ে আরও ২-৩ মিনিট রেখে নামিয়ে নিন। দুধসেমাই ঠান্ডা হলে অনেকখানি দুধ টেনে নেয়। তাই একটু পাতলা অবস্থায় নামিয়ে নিয়ে পরিবেশন পাত্রে ঢেলে ওপরে পেস্তা, কাঠবাদাম, খেজুরকুচি ছড়িয়ে দিয়ে ঠান্ডা করে পরিবেশন করতে হবে। চাইলে গরম-গরমও খেতে পারেন।

আরও পড়ুন: তেল ছাড়াই রান্না করুন সুস্বাদু ও স্বাস্থ্যকর মাছ ও মুরগির নানা পদ, রইল রেসিপি

লাচ্ছা পরোটা

উপকরণ: ময়দা ২ কাপ, ডিম ১টা, নুন ১ চিমটি, চিনি ১ চা-চামচ, তরল দুধ এক কাপের তিন ভাগের এক ভাগ, তেল প্রয়োজনমতো (রুটির ভেতরে দেওয়ার জন্য) ও ঘি প্রয়োজনমতো (ময়ান ও ভাজার জন্য)।

প্রণালি: ময়দা, নুন, চিনি একসঙ্গে মিশিয়ে নিতে হবে। আলাদা একটা বাটিতে ডিম আর তরল দুধ ভালোমতো ফেটিয়ে নিতে হবে। এরপর এই দুধ-ডিমের মিশ্রণ ময়দায় একটু একটু করে মিশিয়ে মণ্ড তৈরি করে নিতে হবে। তারপর এতে প্রয়োজনমতো ঘি মিশিয়ে ভালো করে ময়ান দিয়ে নিতে হবে।

মাখানো হয়ে গেলে ভেজা কাপড় বা প্লাস্টিক র‍্যাপ দিয়ে ঢেকে রেখে দিন আধা ঘণটা। এরপর মণ্ড থেকে লেচি কেটে নিন। তেল মাখিয়ে পাতলা করে রুটি বেলে নিতে হবে। তারপর রুটির ওপরে গলানো ঘি মাখিয়ে ওপরে অল্প করে শুকনা ময়দা ছড়িয়ে দিন। ধারালো ছুরি দিয়ে চিকন করে কেটে নিন। এক পাশ থেকে ধীরে ধীরে বটে দড়ির মতো লম্বা করে পাকিয়ে নিন। আবারও একটু তেল মাখিয়ে গোল করে পেঁচিয়ে নিতে হবে। অল্প তেল মেখে রেখে দিন। এভাবে সব পরোটার লেচি তৈরি হয়ে গেলে ঢেকে আধা ঘণ্টা রেখে দিতে হবে। তারপর আবারও হাতে তেল মেখে হাত দিয়ে চেপে চেপে পরোটা তৈরি করে নিতে হবে। বেলন দিয়ে বেলেও পরোটা বানানো যায়, কিন্তু সে ক্ষেত্রে পরোটার পরত অত ভালোভাবে বোঝা যাবে না। একটা একটা পরোটা বানিয়ে ভেজে নিন। চুলায় তাওয়া গরম করে আগে ঘি ছাড়া হালকা ভেজে নিতে হবে। তারপর ঘি দিয়ে লালচে করে ভেজে নিন। সব পরোটা বানানো হয়ে গেলে একসঙ্গে রেখে হাত দিয়ে চারপাশ থেকে হালকা করে চাপ দিতে হবে। তাতে পরতগুলো স্তরে স্তরে খুলে আসবে। দেখতে ভালো লাগবে। গরম-গরম লাচ্ছা পরোটা গরু বা মুরগির ভুনার সঙ্গে ভালো লাগবে খেতে।

গরুর মাংসের ভুনা

উপকরণ: গরুর মাংস ১ কেজি, পেঁয়াজকুচি ১ কাপ, আদাবাটা ১ টেবিল চামচ, রসুনবাটা দেড় চা-চামচ, মরিচগুঁড়া স্বাদমতো, হলুদগুঁড়া ১ চা-চামচ, কাশ্মীরি মরিচগুঁড়া ১ চা-চামচ, আস্ত গরমমসলা এলাচ/লবঙ্গ/দারুচিনি প্রতিটি ২টা করে, তেজপাতা ২টি, গরমমসলার গুঁড়া আধা চা-চামচ, নুন স্বাদমতো, তেল আধা কাপ।

প্রণালি: গরুর মাংস ছোট করে কেটে আদা-রসুনবাটা, হলুদ-মরিচগুঁড়া, আস্ত গরমমসলা, তেজপাতা, স্বাদমতো লবণ দিয়ে ১ টেবিল চামচ তেলে ভালো করে কষিয়ে গরম পানি দিয়ে মাংস সেদ্ধ হওয়া পর্যন্ত রান্না করে ঝোল শুকিয়ে ফেলতে হবে। তারপর অন্য একটা প্যানে বা কড়াইয়ে বাকি তেল দিয়ে গরম করে নিন। তাতে পেঁয়াজকুচি দিয়ে বেরেস্তা করে কাশ্মীরি মরিচগুঁড়া, গরমমসলার গুঁড়া আর অল্প জলের ছিটা দিয়ে মাংস শুকনা করে রান্না করতে হবে। পরোটা বা পোলাওয়ের সঙ্গে পরিবেশন করুন।

আরও পড়ুন: নিরামিষ ভালোবাসেন? রাতের মেনুতে বানিয়ে নিন সয়াবিন মোগলাই কারি

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest