টেলিভিশনের লোকনাথ তিনি। দর্শকদের কাছে ‘পর্দার লোকনাথবাবা’। তবে অভিনয়ের খাতিরে হলেও ভাস্বর চট্টোপাধ্যায় (Bhaswar Chatterjee) কিন্তু পুরোদস্তুর লোকনাথবাবা জ্ঞান অর্জন করেছেন। এমনকী গত মাসে তিনি যে রোজা রেখেছিলেন, সেই অনুপ্রেরণাও নাকি তিনি লোকনাথবাবার কাছ থেকেই পেয়েছেন বলে জানিয়েছিলেন। আজ তাঁর তিরোধান দিবসে এক অভিনব উদ্যোগ নিয়েছেন ভাস্বর চট্টোপাধ্যায়। এলাকার দুঃস্থদের মাঝে খাবার বিতরণ করলেন অভিনেতা। পাশাপাশি শেয়ার করলেন এক অজানা তথ্যও।

আরও পড়ুন : বাবা লোকনাথের এক আশ্চর্য ছবি, যা আজও বহু মানুষকে ভাবিয়ে তোলে

অনেকেই হয়তো ভক্ত হওয়া সত্ত্বেও লোকনাথবাবা সম্পর্কে অনেক কিছু জানেন না। তবে ভাস্বর সেটে গিয়েছিলেন এক্কেবারে পড়াশোনা করে। চরিত্রটাকে আত্মস্থ করতে তাই বেশি সময় লাগেনি। ভাস্বর জানালেন, লোকনাথবাবা নাকি সারা বিশ্ব পায়ে হেঁটে ঘুরেছেন। যেখানে যেতেন সেখানকার ভাষা শিখে আসতেন। শুধু তাই নয়, আফগানিস্তান গিয়েও উনি নাকি কোরান শরিফ শিখেছিলেন আবদুল গফফুর নামে এক ব্যক্তির কাছ থেকে। কোরান পাঠও করেছিলেন। হিন্দু-মুসলমান ভেদাভেদ কোনওদিন করেননি তিনি। কোনও ধর্মকেও ছোট করেননি। লোকনাথবাবার জীবনে পড়ে তাই অনুপ্রাণিত হয়েছেন ভাস্বর চট্টোপাধ্যায়।

লকডাউনের দিনে যখন দুঃস্থদের মুখে খাবার তুলে দিচ্ছেন তিনি। অনেকেই হয়তো অনেকরকম কু-কথা বলেছেন। কেউ বা বলেছেন, “ওঁরা তো বাংলাদেশি, রোহিঙ্গা…, ওদেরকে কেন খাওয়াচ্ছেন?” সেসব প্রশ্নের উত্তরে অভিনেতার একটাই কথা, “ক্ষুধার্তকে খাবার দেওয়ার আগে কি তাঁর জাত-ধর্ম জিজ্ঞেস করব যে তিনি হিন্দু না মুসলিম! সেই শিক্ষা তো আমি বাবার কাছ থেকে পাইনি।” আজ লোকনাথবাবার তিরোধান দিবসেও অভিনব উদ্যোগ নিয়েছেন ভাস্বর। নিজস্ব এলাকার পাশের বস্তিতে খাবার বিতরণ করেছেন। খাবার পেয়ে ওই মানুষগুলোর মুখের হাসিতেই অনাবিল আনন্দ লাভ করেন অভিনেতা।

আরও পড়ুন : মানব জাতির উদ্দেশ্যে উচ্চারিত হরিচাঁদ ঠাকুরের বেশ কিছু অমর বাণী

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *