#KarwaChauth2020: জেনে নিন করবা চৌথের অজানা নিয়ম কানুন…

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest

স্বামীর দীর্ঘায়ু কামনায় ভারতীয় হিন্দু সধবা মহিলারা করভা চৌথ করেন। উত্তর ও উত্তর পশ্চিম ভারতে এর প্রচলন বেশী হলেও বর্তমানে অন্যান্য স্থানেও নিষ্ঠা করে পালন করা হয় এই উৎসব। বলা চলে হিন্দি সিনেমা ও সিরিয়ালের জন্যে এই উৎসব আরও বেশি জনপ্রিয়তা পেয়েছে সারা দেশে। কার্তিক মাসের কৃষ্ণপক্ষের চতুর্দশীতে করবা চৌথ পালন করা হয়।

চলতি বছরের ৪ নভেম্বর পালন করা হবে এই উৎসব। ‘করবা’ অর্থাৎ মাটির পাত্র এবং ‘চৌথ’ অর্থাৎ চতুর্থী, এই দুই মিলিয়েই এই উৎসবের নামকরণ। করবা চৌথে মহিলারা তাঁদের স্বামীর দীর্ঘমেয়াদি জীবনের জন্যে নির্জলা উপবাস করে।সারাদিন উপবাস করে সন্ধ্যা বেলা চালুনিতে চাঁদ ও স্বামীর মুখ দেখে উপবাস ভাঙ্গাই মুল প্রথা। সূর্যোদয়ের আগে থেকে শুরু হয় উপবাস এবং সেটি চাঁদ না দেখা যাওয়া পর্যন্ত ভাঙা যায় না। তবে বলা হয় এই উপবাসের নিয়মগুলি বেশ কঠিন। আসুন জেনে নেওয়া যাক করভা চৌথের বিশেষ কিছু নিয়ম।

আরও পড়ুন: Durga Puja 2020: দশমীতে নীলকণ্ঠ পাখি দর্শনের পিছনে রয়েছে পৌরাণিক উপাখ্যান, আপনার জানা আছে কী?

নির্ঘন্ট

এই বছর করভা চৌথ পুজোর সময় হল সন্ধ্যা ৫.৩৪ থেকে ৬.৫২ পর্যন্ত। উপবাস করার সময় সকাল ৬.৩৫ থেকে রাত ৮.১২ পর্যন্ত। রাত ৮.১২ নাগাদ আকাশ মেঘলা না থাকলে চাঁদ দেখতে পাওয়ার যাবে। চতুর্থী তিথি শুরু হবে ৪ নভেম্বর ভোর ৩.২৪ টায় ও থাকবে ৫ নভেম্বর ভোর ৫.১৪ পর্যন্ত।

নিয়ম 

করবা চৌথের নিষ্ঠা করে পালন করার জন্য বেশ কিছু নিয়ম রয়েছে।

  • করভা চৌথের পুজোয় চন্দ্রদেবতার কাছে স্বামীর মঙ্গল কামনায় প্রার্থনা করেন স্ত্রী-রা। চালুনি দিয়ে পুজোর থালায় রাখা প্রদীপের আলোয় স্বামীর মুখ দেখে তাঁকে বরণ করে নেন।
  • এরপর  মাটির পাত্র থেকে স্ত্রীকে জল খাইয়ে দেন তাঁর স্বামী এবং ওই জল পান করেই তাঁরা উপবাস ভঙ্গ করেন।
  • করবা চৌথের  উপবাস শুরু হওয়ার আগে শাশুড়ি তাঁর পুত্রবধূকে মিষ্টি, জামাকাপড়, সাজসজ্জা প্রদান করেন যেটিকে ‘সারগি’ বলে এবং তারপর থেকে শুরু হয় এই ব্রত।
  • এদিন ভুল করেও আপনার বৈবাহিক জীবনের কোন জিনিস অন্য কোন মহিলাকে দেবেন না। প্রয়োজনে নতুন কোন জিনিস কিনে দিতে পারেন।
  • এই দিন বাদামি এবং কালো রঙের কোনো পোশাক পরা খুব অশুভ। লাল রঙের পোশাকেই সবচেয়ে শুভ হিসাবে মানা হয়। প্রয়োজনে হলুদ  রঙের পোশাকও পরতে পারেন।
  • শাস্ত্র অনুযায়ী এদিন বাড়িতে কোনো রকম অশান্তি না করাই মঙ্গল। স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে এই দিন কোন রকম ঝগড়া হওয়া অশুভ।
  • যে সমস্ত মহিলারা করবা চৌথ পালন করবেন তাঁদের কোনো ধারালো জিনিস এদিন না ব্যবহার করাই ভালো।
  • এই ব্রত শুধুমাত্র বিবাহিতরা মহিলাতাই পালন করেন না। যে সমস্ত মেয়েদের বিয়ে ঠিক হয়ে গেছে তাঁরাও তাঁদের বিশেষ মানুষটির জন্য উপবাস রাখতে পারেন।

করভা চৌথের ১৬ টি শুভ সাজ সজ্জা

১. টিপ
২. সিঁদুর
৩. কাজল
৪. মেহেন্দি
৫. বিয়ের লাল পোশাক
৬. খোঁপার মালা
৭. টিকলি
৮. নথ
৯. কানের দুল
১০. মঙ্গল সূত্র বা গলার হার
১১.আলতা
১২. চুড়ি
১৩. আংটি
১৪. কোমরবন্ধ

১৫. আঙ্গোট

১৬. নুপুর

আরও পড়ুন: #SharadPurnima2020: এভাবেই খুশি করুন মা লক্ষ্মীকে, টাকা আসবে চুম্বকের মতো

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest