প্রত্যাশা মতোই ফরাসি ওপেনের সেমিফাইনালে উঠে গেলেন রাফায়েল নাদাল। তবে অন্যান্য ম্যাচের তুলনায় কোয়ার্টার ফাইনালে তাঁকে একটু বেশি ঘাম ঝরাতে হল। বিপক্ষ দিয়েগো শোয়ার্ৎজম্যান একটি সেট কেড়ে নিলেন স্প্যানিশ টেনিস খেলোয়াড়ের থেকে। তবে শেষ পর্যন্ত ৬-৩, ৪-৬, ৬-৪, ৬-০ জিতে শেষ হাসি হাসলেন নাদালই। যদিও প্যারিসে সুরকির কোর্টে টানা ৩৬টি সেট জেতার দৌড় থামল নাদালের।

এই নিয়ে ১৪ বার ফরাসি ওপেনের সেমিফাইনালে উঠলেন নাদাল, যে রেকর্ড আর কারওর নেই। এর আগে যত বার সেমিফাইনালে উঠেছেন ততবারই ট্রফি জিতেছেন তিনি। তাঁর ছন্দ দেখে এবারও টেনিস বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন, ট্রফি তাঁর হাতেই উঠবে। তবে ১৪তম ফরাসি ওপেন জয়ের পথে বাধা হয়ে দাঁড়াতে পারেন একজনই। তিনি নোভাক জোকোভিচ।
দিনের অপর কোয়ার্টার ফাইনালে মাতেও বেরেত্তিনিকে হারালেই নাদালের সামনে পড়বেন জোকোভিচ। ফলে সেমিফাইনালেই ধুন্ধুমার লড়াই দেখা যাবে।ম্যাচের পর নাদাল বললেন, “অবিশ্বাস্য একটা অনুভূতি হচ্ছে। আরও একবার সেমিফাইনালে খেলতে নামব। দিয়েগো দারুণ খেলেছে আজ। অসাধারণ প্রতিভা। আজ কঠিন লড়াই করতে হয়েছে আমাকে।”
গ্যালারি থেকে নাদালের এই দুর্দান্ত জয়ের স্বাক্ষী ছিলেন তার বাবা ও বোন। ম্যাচ শেষে তাদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, ‘আমি সবসময় আমার পরিবারের কাছ থেকে সমর্থন পেয়েছি। সত্যিকারের সমর্থন, কোনও চাপ ছাড়াই। তাদের ধন্যবাদ দেওয়া যথেষ্ট নয়। আমার ভক্তরাও খারাপ সময়েও সমর্থন দিয়েছে। ৩৫ বছর বয়সে এসে এখানে থাকা সহজ নয়।’
মহিলাদের বিভাগের কোয়ার্টার ফাইনালে আমেরিকার কোকো গ্রাউফকে হারিয়ে দিয়েছেন চেকের বারবোরা ক্রেজসিকোভা। ম্যাচের প্রথম সেট টাইব্রেকারে গড়ায়। ৭-৬(৮-৬) ফলাফলে মোকাবিলা জেতেন বারবোরা। দ্বিতীয় সেটে লড়াই করার সুযোগ পাননি মার্কিনি। ৬-৩ গেমে ওই সেটও জিতে যান চেকের তারকা। অন্য কোয়ার্টার ফাইনালে পোল্যান্ডের ইগা সুইয়াটেককে ৬-৪, ৬-৪ গেমে হারিয়ে ফরাসি ওপেনের সেমিফাইনালে পৌঁছে গিয়েছেন গ্রিসের মারিয়া সাকারি।