হাতি হত্যা প্রতিবাদে ক্রীড়া জগৎ, কঠোর শাস্তির দাবি কোহলি-ছেত্রীর

নৃশংস, নির্মম ‘হত্যাকাণ্ড’ মেনে নেওয়া যাচ্ছে না কিছুতেই। যতবারই ঘটনার কথা মনে পড়ছে, ততবারই মন খারাপ হয়ে যাচ্ছে। হচ্ছে রাগও। কিন্তু এমন ঘটনা বন্ধ হওয়া জরুরি। কেরলে হাতি ‘খুনে’র ঘটনার পর তাই সকলের কাছে পশুপ্রেমের আরজি জানিয়েছেন বিরাট কোহলি, সুনীল ছেত্রীরা।

খাবার খেয়ে নিজের এবং তার গর্ভস্থ সন্তানের পেটের জ্বালা মেটাতে চেয়েছিলহাতিটি। বিশ্বাস করেছিল মানুষকে। ভাবতেও পারেনি পেটের জ্বালা মেটাতে গিয়ে প্রাণ পর্যন্ত চলে যেতে পারে। তাই তো বাজি এবং বারুদে ঠাসা আনারস খেয়ে নেয়।

খাওয়ার পর থেকে শরীরের ভিতর অদ্ভুত জ্বালা যন্ত্রণা শুরু হয়। অবলা প্রাণী নিজের কষ্টের কথা কাউকে জানাতে পারেনি। শুধু পথের পর পথ হেঁটে কষ্ট সহ্য করে গিয়েছে। তারপর একটি নদীতে নেমে যায় অন্তঃসত্ত্বা হাতিটি। জলের মধ্যে শুঁড় ডুবিয়ে বসে কষ্ট লাঘব করার চেষ্টা করছিল। কাজের কাজ হয়নি। সেভাবেই কখন যে সে প্রাণ হারিয়েছে জানতে পারেনি কেউই।

গর্ভবতীর হাতির সুবিচার চেয়ে অনলাইন আবেদনেও শামিল হচ্ছেন নেটিজেনরা। ঘটনার প্রতিবাদে সুর চড়িয়েছেন ভারতীয় ফুটবল ও ক্রিকেট দলের অধিনায়ক সুনীল ও কোহলি। এদিন সোশ্যাল মিডিয়ায় কোহলি লেখেন, “কেরলের ঘটনা শুনে মর্মাহত। আসুন পশুদের ভালবাসি আর এই কাপুরুষিত ঘটনার সমাপ্তি ঘটাই।” দুঃখপ্রকাশ করে সুনীল লিখেছেন, “ও একটা নীরিহ অন্তঃসত্ত্বা হাতি ছিল। আশা করি ওই এই ঘটনার জন্য রাক্ষসদের শাস্তি হবে।”