গরু-কয়লা পাচারের অভিযোগ তুলে আক্রমণ! বাবুলকে আইনি নোটিশ অভিষেকের

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest

কেন্দ্রীয় মন্ত্রী ও আসানসোলের সাংসদ বাবুল সুপ্রিয়কে আইনি নোটিশ পাঠালেন তৃণমূল সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। অভিযোগ, কয়লা ও গরুপাচার কাণ্ডে অভিষেককে অভিযুক্ত করে মন্তব্য করেছিলেন বাবুল সুপ্রিয়। সেই মন্তব্যের প্রেক্ষিতেই এই আইনি নোটিশ। ৭২ ঘণ্টার মধ্যে ক্ষমা চাইতে বলা হয়েছে বাবুল সুপ্রিয়কে।

অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের(Abhishek Banerjee) তরফে তাঁর আইনজীবী ওই আইনি নোটিসে লিখেছেন,  ২০১৭ সালের ৩০ নভেম্বর আসানসোলে এক সাংবাদিক সম্মেলনে অভিষেক বন্দ্য়োপাধ্যায়কে কয়লা মাফিয়া বলে উল্লেখ করেন বাবুল সুপ্রিয়(Babul Supriyo)। অভিযোগ তোলা হয় রাজ্যের কয়লা বেআইনিভাবে বাইরে বেচে দেন অভিষেক। ওই মন্তব্যের বিরুদ্ধে কলকাতার সিটি সিভিল কোর্টে বাবুলের বিরুদ্ধে মামলা হয়। সেই মামলায় বিচারক বাবুল সুপ্রিয়কে ওই ধরনের মন্তব্য করা থেকে বিরত থাকতে বলেন।

আরও পড়ুন: KIFF 2021: ভার্চুয়াল উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে শামিল হবেন শাহরুখ খান, জানালেন মুখ্যমন্ত্রী

আসানসোলের সাংসদ তথা কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয় জানান, “বিনয় মিশ্র গরুপাচারের মিডলম্যান হিসাবে কাজ করতেন। এই অভিযোগ আমি অনেকদিন আগেই করেছি। অনুপ মাঝি থেকে শুরু করে বাকি পাচারকারীদের কাছ থেকে কত টাকা নেওয়া হবে এসব বিনয় মিশ্রই দেখত। সব রিপোর্ট আমি কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের কাছে জমা দিয়েছিলাম। তার জন্য হুমকিও এসেছিল আমার কাছে। বিনয় মিশ্র রাজ্যে আইপিএস-সহ প্রশাসনিক অফিসারদের বদলির বিষয়েও নাক গলাতেন। সিবিআই এখন এনার বিরুদ্ধে তদন্ত করছে।”

ডায়মন্ডহারবারের একটি সভা থেকে বেশ কয়েকদিন আগেই অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছিলেন, ক্ষমতা থাকলে আমার নাম নিয়ে আক্রমণ করে দেখান। ১ মাস পেরিয়ে গেছে এখনও কেউ নাম নিয়ে আক্রমণ করেনি। আমি তো নাম ধরে বলেছি, দিলীপ ঘোষ গুণ্ড। দিলীপ ঘোষ আমার বিরুদ্ধে মামলা করেছে আদালতে। যে ভেঙে দেব-গুড়িয়ে দেব বলে, সে আবার আমার বিরুদ্ধে মামলা করেছে। আইনত লড়াই হোক না, কত ধানে কত চাল বুঝিয়ে দেব।

আসানসোলের বিজেপি সাংসদ বাবুল সুপ্রিয় বলেন, ‘এনিয়ে কিছু বলতে চাই চাই না। যা বলার তা আমার আইনজীবীই বলবেন। তবে রাজনৈতিকভাবে বলব, উনি বারবার বহু নেতাকে আইনি নোটিস পাঠান। রাজ্যে বিজেপির এমন কোনও নেতা নেই যাঁকে উনি নেটিস পাঠাননি।  কীসব ক্ষমাটমা চাইতে বলেন। ওঁকে বলব গত ১০ বছরে রাজ্যে ওঁরা যা করেছেন তার জন্য রাজ্যের মানুষের কাছে ক্ষমা চান।’

আরও পড়ুন: রাজভবনে ঘণ্টাখানেক মুখ্যমন্ত্রী মমতা, প্রথম টুইট মুছে ফের টুইট করলেন রাজ্যপাল

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest