পুলিস কর্মীর সন্তানদের পরিযায়ী শ্রমিক করে ছাড়বো, হুঁশিয়ারি দিয়ে বিতর্কে দিলীপ

ক্ষমতায় এলে বৌ-বাচ্চার মুখ দেখতে দেবো না। পুলিসকে কড়া ভাষায় হুশিয়ারি বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের। রবিবার খড়দহে এক চা-চক্রে অংশগ্রহণ করে তৃণমূলকে কার্যত তুলোধনা করলেন দিলীপ ঘোষ। শুধু তৃণমূলের নেতা-মন্ত্রীকে নয়, তাঁর নিশানায় ছিলেন রাজ্যের পুলিসকর্মীরাও।

এ দিন কার্যত হুঁশিয়ারি সুরে দিলীপ ঘোষ বলেন, “সব ডায়েরিতে লিখে রাখুন। আমিও লিখে রাখছি। কড়া-গন্ডায় হিসাবে নেবো। সুদ বাড়ছে। সে সব পুলিস নেতাদের চামচাগিরি করছে, পকেট ভরছে, আনন্দে আছে, এ আনন্দ বেশি দিন টিকবে না। ক্ষমতায় এলে বৌ-বাচ্চার মুখ দেখতে দেবো না।” তাঁর আরও হুঁশিয়ারি, এখানে গরিবের পয়সা খেয়ে ছেলেকে ২৫ লক্ষ টাকা খরচ করে বেঙ্গালুরুতে ভর্তি করেছেন, ওর পড়াশুনা শেষ হবে না। ডাক্তার-ইঞ্জিনিয়ার হবে না, তাকে পরিযায়ী শ্রমিক করে ছাড়বো।

আরও পড়ুন: ‘ময়ূরের সঙ্গে ভিডিও পোস্ট না করে বেকারদের কাজ দিন’, ফের মোদিকে বিঁধলেন নুসরত

দিলীপের আরও হুঁশিয়ারি, যে অফিসাররা বেশি তড়পাচ্ছেন তাদের জীবনের শান্তি শেষ করে দেব। আমার হারাবার কিছু নেই। যে পুলিশ অফিসার ও তৃণমূল নেতা মানুষের জীবনের শান্তি নষ্ট করছেন তার হিসেব কড়ায়-গন্ডায় নেব। আজ বা কাল চাকা ঘুরবেই। একইসঙ্গে মুখ্যমন্ত্রী ও তৃণমূল সরকারের উদ্দেশ্যে দিলীপবাবুর মন্তব্য, “অনেক ভাঙাভাঙি করেছেন। এবার গড়ার কথা ভাবুন। যেদিন সরকারেটা ভেঙে দেব অনাথ হয়ে যাবেন।” বিজেপির রাজ্য সভাপতির এই সরকার ভেঙে দেওয়ার হুমকি নিয়েও রাজনৈতিক মহলে জল্পনা শুরু হয়েছে।

আইনশৃঙ্খলা থেকে দুর্নীতি বিভিন্ন ইস্যুতে এদিন রাজ্য সরকারের সমালোচনা করেন তিনি। বলেন, “বিশ্বভারতীর ঘটনা তালিবানি রাজকে মনে করিয়েছে। আবার বলেছেন প্রোমোশনের জন্য উপাচার্যরা শিক্ষামন্ত্রীর সঙ্গে রাস্তায় ধরনাও দিচ্ছেন। উন্নয়ন নিয়ে তাঁর কটাক্ষ, বৃষ্টি হলেই দেখা যায় কলকাতা লন্ডন নয়, ভেনিস হয়ে গিয়েছে।”

এই সমালোচনার উত্তরে রাজ্যের সমবায় মন্ত্রী অরূপ রায় পাল্টা বলেন, দিলীপ ঘোষ পাগলের প্রলাপ বকছেন। আগামী বিধানসভা নির্বাচনে তার উত্তর পেয়ে যাবেন দিলীপ ঘোষ। অরূপের পাল্টা হুঁশিয়ারি, যেভাবে তারা প্রলাপ বকছেন মানুষই তাদের পাগলা গারদে ঢুকিয়ে দেবে।

আরও পড়ুন: এবার করোনা আক্রান্ত রাজ্যের খাদ্যমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক