রাতভর বৃষ্টিতে ভেঙে পড়ল ১৫০ বছরের পুরনো বাড়ি, মৃত্যু বৃদ্ধার

প্রবল বৃষ্টিতে বেলেঘাটার (Beleghata) পুরনো বাড়ির একাংশ ভেঙে মৃত্যু বৃদ্ধার। দীর্ঘক্ষণ ধ্বংসস্তূপে আটকে ছিলেন পরিবারের আরও কয়েকজন। পুলিশ ও বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনীর সদস্যরা উদ্ধার করে তাঁদের। এখনও চলছে উদ্ধারকাজ।

বৃহস্পতিবার ভোর সাড়ে পাঁচটা নাগাদ ৫৫ নম্বর বেলেঘাটা মেন রোডের ওই একতলার বাড়ির একাংশ ভেঙে পড়ে। ধ্বংসস্তূপে আটকে পড়েন প্রতিমা সাহা নামে এক বৃদ্ধা, তাঁর ছেলে রাজেশ সাহা ও নাতি।

আরও পড়ুন: করোনা পজিটিভ বাড়ির আরও ৪ জন, তবু নিজের করোনা পরীক্ষা করাতে নারাজ দিলীপ ঘোষ

খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছায় পুলিশ ও বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনী। শুরু হয় উদ্ধারকাজ। প্রাথমিকভাবে ছেলে, বৌমাকে ও নাতিকে ধ্বংসস্তূপ থেকে বের করে আনতে সক্ষম হন উদ্ধারকারীরা। কিন্তু প্রায় ঘণ্টাতিনেক আটকে থাকার পর সংজ্ঞাহীন অবস্থায় বৃদ্ধাকে উদ্ধার করা হয়। তাঁকে দ্রুত হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলেও শেষরক্ষা হয়নি। হাসপাতালেই তাঁর মৃত্যু হয়। জানা গিয়েছে, দীর্ঘদিন আগেই বাড়িটিকে বিপজ্জনক হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছিল পুরসভার তরফে। কিন্তু শরিকি বিবাদের কারণে কোনও পদক্ষেপ নেয়নি পরিবারের সদস্যরা।

গত কয়েকদিনের বৃষ্টিতে মধ্য ও উত্তর কলকাতায় বিভিন্ন এলাকায় জল জমে গিয়েছে। বন্দর এলাকার বাসিন্দাদেরও জলযন্ত্রণার শিকার হতে হচ্ছে। তবে বৃহস্পতিবার রাজ্যে সম্পূর্ণ লকডাউন থাকায় রাস্তায় জরুরি প্রয়োজন ছাড়া বেশি সংখ্যক গাড়ি বেরোয়নি। ফলে জল জমার কারণে যে যানজট তৈরি হয়, বৃহস্পতিবার সেই দুর্ভোগ পোহাতে হয়নি।