WB election 2021: মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নিরাপত্তা আধিকারিককে সরাল কমিশন

অপসারিত করা হয়েছে মুখ্যমন্ত্রীর নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা আধিকারিক অশোক চক্রবর্তীকে।
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest

রাত পোহালেই রাজ্যে চতুর্থ দফার ভোট শুরু হবে। তার আগেই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা আধিকারিককে সরিয়ে দিল নির্বাচন কমিশন। অপসারিত করা হয়েছে মুখ্যমন্ত্রীর নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা আধিকারিক অশোক চক্রবর্তীকে। শুক্রবার রাতে রাজ্যের স্বরাষ্ট্র দফতরের তরফে এ বিষয়ে একটি বিজ্ঞপ্তিও জারি করা হয়েছে। তাতে স্পষ্টই জানানো হয়েছে, ‘মুখ্য নির্বাচনী আধিকারিক আরিজ আফতাবের মাধ্যমে নির্বাচন কমিশন যে নির্দেশ পাঠিয়েছিল, সেই নির্দেশ অনুয়ায়ী অশোক চক্রবর্তীকে মুখ্যমন্ত্রীর নিরাপত্তার দল থেকে অপসারিত করা হয়েছে।’

তবে কী কারণে এসপি পদমর্যাদার ওই আধিকারিককে সরিয়ে দেওয়া হল, তা নিয়ে অবশ্য কোনও ব্যাখা দেয়নি নির্বাচন কমিশন। রেলমন্ত্রী থাকার সময় থেকেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নিরাপত্তার দায়িত্ব পালন করে আসছিলেন অশোকবাবু। রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর দায়িত্ব নেওয়ার পরেও রেলওয়ে প্রোটেকশন ফোর্সের (আরপিএফ) প্রাক্তন কমান্ড্যান্ট ও বিশ্বস্ত আধিকারিককে নিজের নিরাপত্তায় বহাল রাখেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। দিল্লি থেকে এ রাজ্যে নিয়ে আসেন তাঁকে। এমনকী আরপিএফ থেকে অবসর নেওয়ার পরে অশোকবাবুকে এসপি পদমর্যাদা দিয়ে বিশেষভাবে নিয়োগ করা হয়। মূলত মুখ্যমন্ত্রীর নিরাপত্তা রক্ষীদের মধ্যে সমন্বয় গড়ে তোলার কাজ করতেন অশোকবাবু। মুখ্যমন্ত্রীর ২৪ ঘণ্টার সঙ্গী ছিলেন তিনি।

সূত্রের খবর, মুখ্যমন্ত্রীর নিরাপত্তা আধিকারিক অশোক চক্রবর্তীর বিরুদ্ধে অভিযোগ করেছিলেন শুভেন্দু অধিকারীর নির্বাচনী এজেন্ট মেঘনাদ পাল।

আরও পড়ুন: নীল ছবিতে অভিনয়, শিখ সমাজের প্রবল বিক্ষোভে সাসপেন্ড দুর্গাপুরের বিজেপি নেতা

নন্দীগ্রাম নির্বাচন পর্বের দিন কয়েক আগেই কমিশনের বিশেষ পুলিশ পর্যবেক্ষক বিবেক দুবেকে চিঠি লিখে শুভেন্দুর প্রধান নির্বাচনী এজেন্ট মেঘনাদ পাল অভিযোগ করেন, মমতার নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা এই আধিকারিক নিজের ক্ষমতার অপব্যবহার করেছে। তিনি অভিযোগ করেন, সাধারণ মানুষকে ভোটদানে বাধা দিচ্ছেন। স্বচ্ছ অবাধ নির্বাচনের জন্যেই তাঁর অপসারণ প্রয়োজন। এই অভিযোগের ভিত্তিতেই কমিশনের পদক্ষেপ। উল্লেখ্য, অশোক চক্রবর্তী এই মুহূর্তে ডিরেক্টরেট অব সিকিওরিটিতে বিশেষ দায়িত্বে (অফিসার অন স্পেশাল ডিউটি) রয়েছেন। এসপি পদে বহাল রয়েছেন।

প্রসঙ্গত, দিন কয়েক ধরেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সরব সিআরপিএফ এবং উচ্চপদস্থ পুলিশ আধিকারিকদের ক্ষমতার অপব্যবহার প্রসঙ্গে। তাঁর নিশানা সরাসরি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহকে। সিআরপিএফ-কে ব্যাবহারের পাল্টা দাওয়াই হিসেবে ঘেরাও তত্ত্বকে সামনে আনার জন্য আজই( শুক্রবার) কমিশন তাঁর কাছে ব্যাখ্যা চায়। মমতা জনসমাবেশ থেকে বলেন, ‌আমি সিআরপিএফ, সিআইএসএফ নিয়ে ততক্ষণ বলব যতক্ষণ বিজেপি করবে। দেশের সেনাবাহিনীকে আমি সম্মান করি। এই মন্তব্যের কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই এই ধাক্কা। তাও আবার ‌চতুর্থ দফার ভোট শুরু হওয়ার ঠিক আগেই। এখন দেখার মমতা বন্দ্যোপাধ্য়ায় এই পরিস্থিতি কী ভাবে সামাল দেন, কী বার্তা দেন নিরাপত্তা আধিকারিক বদল নিয়ে।

আরও পড়ুন: পার্থ, মনোজ, রাজীব, লকেট, সুজন, দীপ্সিতা, শ্রাবন্তী, লাভলি – দেখুন চতুর্থ দফার তারকা প্রার্থীদের

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest