মমতার সভায় তৃণমূলের পতাকা হাতে তুলে নিলেন প্রাক্তন আইপিএস হুমায়ুন কবীর

সূত্রের খবর, আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনে তৃণমূলের টিকিটে প্রার্থী হয়ে লড়বেন হুমায়ুন।

জল্পনা সত্যি করে রাজনীতিতেই এলেন প্রাক্তন আইপিএস অফিসার হুমায়ুন কবীর। মঙ্গলবার পূর্ব বর্ধমানের কালনায় রামকৃষ্ণ বিদ্যাপীঠ ময়দানে তৃণমূলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের জনসভা ছিল। সেখানে মমতার হাত ধরেই হুমায়ুন তৃণমূলে যোগ দেন।

গত ২৯ জানুয়ারি পদত্যাগ করেন চন্দননগর কমিশনারেটের পুলিশ কমিশনার হুমায়ুন কবীর। তখনই জল্পনা রটে যে স্ত্রী অনিন্দিতা দাস কবীরের মতো তিনিও তৃণমূলে যোগ দিতে পারেন। সেই জল্পনা সত্যি করে মঙ্গলবার কালনায় তৃণমূল সুপ্রিমো তথা পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের জনসভায় রাজ্যের শাসকদলে যোগ দিলেন প্রাক্তন আইপিএস হুমায়ুন কবীর।

এদিন তাঁর হাতে দলীয় পতাকা তুলে দেন ‌রাজ্যের মন্ত্রী তথা পূর্ব বর্ধমান জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি স্বপন দেবনাথ। সূত্রের খবর, আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনে তৃণমূলের টিকিটে প্রার্থী হয়ে লড়বেন হুমায়ুন।

আরও পড়ুন: সপ্তাহে মাত্র ৪ দিন কাজ, ৩ দিন ছুটি! শীঘ্রই নয়া শ্রমবিধি আনতে চলেছে কেন্দ্র

সভার শুরুতে মুখ্যমন্ত্রীর আগেই বক্তব্য রাখেন হুমায়ুন কবীর। তিনি মমতার প্রশংসা করে বলেন, ‘মানুষের সুখে–দুঃখে, বন্যায়, আমফান ঝড়ের সময় ‌মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বিভিন্ন প্রকল্প নিয়ে যেভাবে ঝাঁপিয়ে পড়েছেন তা নিজের চোখে দেখেছি। তাঁর সঙ্গে কাজ করার অভিজ্ঞতা অত্যন্ত সুখদায়ক। তাঁর অনুপ্রেরণায় আমি অভিভূত।’‌

তৃণমূলে যোগ দিয়েই এদিন বিরোধী বিজেপি–র বিরুদ্ধে তোপ দাগেন হুমায়ুন কবীর। তিনি বলেন, ‘‌একটা বাইরের দল এসে পশ্চিমবঙ্গের সংস্কৃতিমনস্ক মানুষের মধ্যে বিভেদ সৃষ্টি করতে চাইছে। বিজেপি বিভেদ করে ক্ষমতা দখল করতে চাইছে। পশ্চিমবঙ্গের মানুষ তাদের উত্তর দেবে। আমাদের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ফের ক্ষমতায় আসবেন— এটা আমাদের দৃঢ় বিশ্বাস।’‌

ইস্তফার সময় কর্মজীবনে ৪ মাস বাকি ছিল হুমায়ুন কবীরের। ব্যক্তিগত কারণেই তিনি ইস্তফা দেন বলে জানানো হয় নবান্ন সূত্রে। হুমায়ুনের হঠাৎ ইস্তফায় জল্পনা তৈরি হয়, এ বার তিনিও তৃণমূলে যোগ দেবেন। মঙ্গলবার সেই জল্পনাই সত্যি হল।

আরও পড়ুন: উত্তরাখণ্ড বিপর্যয়: নিখোঁজ মহিষাদলের ৩ যুবক, চরম উদ্বেগে পরিবার