৬৬ জন মহিলাকে কপালে বন্দুক ঠেকিয়ে ‘ধর্ষণ’, কাঠগড়ায় হুগলির ফ্লিপকার্ট ডেলিভারি বয়

বিশাল পুলিশকে জানিয়েছেন, নকল বন্দুক দেখিয়ে ভয় দেখাত সে। 

প্রথমে বাড়িতে জিনিস ডেলিভারি। তারপর ডেলিভারি দিতে গিয়ে ফোন নম্বর জোগাড় করে আলাপের সূত্রপাত। হাই-হ্যালো থেকে শুরু করে ভিডিয়ো কল। তারপর বাড়িতে ডেকে এনে ব্ল্যাকমেল করে ‘ধর্ষণ’ (Rape)। এক-একজন নয়। ছেষট্টি জন মহিলা একই পদ্ধতিতে নির্যাতনের শিকার।

এমনই অভিযোগ উঠেছে ব্যান্ডেলের ত্রিকোণ পার্কের বাসিন্দা ফ্লিপকার্টের ডেলিভারি বয় বিশাল বর্মার বিরুদ্ধে। এই ঘটনায় শনিবার বিশাল ও তার বন্ধুকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

আরও পড়ুন: পেট্রল, ডিজেলে কর কমাল রাজ্য, নতুন দাম ২২ তারিখ মধ্যরাত থেকেই

জানা গিয়েছে, মূল অভিযুক্তের নাম বিশাল বর্মা। ব্যান্ডেলের ত্রিকোণ পার্ক এলাকার বাসিন্দা ওই যুবক জনপ্রিয় ই-কর্মাস সংস্থায় ডেলিভারি বয় হিসেবে কাজ করত। ফলে নিয়মিত বহু মানুষের বাড়িতে যাতায়াত লেগেই থাকত তার। জানা গিয়েছে, কোনও বাড়িতে সামগ্রী ডেলিভারি দিতে গেলে সেখানে কোনও তরুণী নজরে পড়লেই ফিডব্যাকের অছিলায় তাঁর নম্বর জোগাড় করত বিশাল। এরপর মেসেজ করে মহিলাদের সঙ্গে বন্ধুত্ব করত অভিযুক্ত।

বিশ্বাস অর্জনের পর শুরু হত ভিডিও কল। অভিযোগ, ভিডিও কল চলাকালীন মহিলাদের আপত্তিকর নানা মুহূর্তের ছবি নিজের কাছে রেখে দিত বিশাল। পরে নিজের বাড়িতে তাঁদের ডেকে পাঠাত অভিযুক্ত। সেখানেই ঘনিষ্ঠ হওয়ার চেষ্টা করত।

অভিযোগ, বাধা দিলে মাথায় বন্দুক ঠেকিয়ে ও আপত্তিকর ছবি ভাইরাল করে দেওয়ার হুমকি দিয়ে মহিলাদের ধর্ষণ করত সে।পুলিশ সূত্রে খবর, গোপন জবানবন্দিতে বিশাল জানিয়েছেন, তিনি যে ৬৬ জন মহিলার সঙ্গে এই কাণ্ড ঘটিয়েছেন তাঁরা প্রত্যেকেই ‘কলগার্ল’।

বিশালের ফোন থেকে বেশ কিছু চিপে অসংখ্য ছবি উদ্ধার করেছে পু্লিশ, যেখানে দেখা গিয়েছে, বন্দুক হাতে বিশাল, তাঁর পায়ের কাছে হাতজোড় করে বসে আছেন মহিলারা। ছবি দেখেই বিশালের সঙ্গী সুমন মণ্ডলের কথা জানতে পারে পুলিশ।

বিশাল পুলিশকে জানিয়েছেন, নকল বন্দুক দেখিয়ে ভয় দেখাত সে।  মহিলাদের ছবি তিনি তার বন্ধুকেওে দেখাত। যেখানে একা ‘সুবিধা’ করতে পারত না, সেখানে বন্ধু সুমনকে কাজে লাগাত।

আরও পড়ুন: একই গাছ থেকে ঝুলছে যুগলের দেহ, মৃত্যু ঘিরে চাঞ্চল্য খণ্ডঘোষে