দিনকয়েকের মধ্যেই খুলে যাচ্ছে পেট্রাপোল সীমান্ত বাণিজ্য, ইঙ্গিত দিল নবান্ন

কলকাতা: প্রায় ৯ সপ্তাহ বন্ধ থাকার পর বনগাঁর পেট্রাপোলে ভারত বাংলাদেশ সীমান্ত বাণিজ্য ফের শুরু হতে চলেছে। কোভিড সংক্রমণের আশঙ্কা থেকেই সীমান্ত বাণিজ্য বন্ধ রাখা হয়েছিল।

মে মাসের প্রথম সপ্তাহে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক সীমান্ত বাণিজ্য চালু করার ব্যাপারে সবুজ সঙ্কেত দেওয়ার পরে বন্ধই ছিল পেট্রোপোল দিয়ে আমদানি-রফতানি।নবান্ন সূত্রে খবর, নির্দিষ্ট কিছু নিয়ম মেনে সীমান্ত বাণিজ্যে ছাড় দিতে চলেছে রাজ্য সরকার।

আরও পড়ুন: বিধানসভায় ফ্লপ! দিল্লি বিজেপি সভাপতির পদ খোয়ালেন মনোজ তিওয়ারি

বাংলাদেশে রফতানির ক্ষেত্রে পেট্রাপোল সবচেয়ে বড় স্থলবন্দর। কেন্দ্রীয় বাণিজ্য মন্ত্রকের হিসাব অনুযায়ী, প্রতি বছর ২৪ হাজার কোটি টাকার আমদানি রফতানি হয় এই স্থলবন্দরের মাধ্যমে। সরাসরি প্রায় ২০ হাজার মানুষ এবং পরোক্ষ ভাবে সব মিলিয়ে ৫০ হাজার মানুষ নির্ভরশীল এই স্থলবন্দরের উপর।

নবান্ন সূত্রে খবর, নির্দিষ্ট কিছু নিয়ম মেনে সীমান্ত বাণিজ্যে ছাড় দিতে চলেছে রাজ্য সরকার। বাংলাদেশে রফতানির ক্ষেত্রে পেট্রাপোল সবচেয়ে বড় স্থলবন্দর। কেন্দ্রীয় বাণিজ্য মন্ত্রকের হিসাব অনুযায়ী, প্রতি বছর ২৪ হাজার কোটি টাকার আমদানি রফতানি হয় এই স্থলবন্দরের মাধ্যমে। সরাসরি প্রায় ২০ হাজার মানুষ এবং পরোক্ষ ভাবে সব মিলিয়ে ৫০ হাজার মানুষ নির্ভরশীল এই স্থলবন্দরের উপর।

সূত্রের খবর, রাজ্য প্রশাসন ‘জিরো’ পয়েন্টে কাজ শুরু করার অনুমতি দিতে চলেছে। জিরো পয়েন্ট অর্থাৎ দুই দেশের সীমান্তে ঢোকা-বেরনোর গেটের মাঝখানের জায়গা। সেখানে এ দেশের লরি যাবে। অন্য দিকে থেকে বাংলাদেশের লরি আসবে। ভারতের লরি থেকে মালপত্র নামাবে বাংলাদেশের শ্রমিকরা।

এ পদ্ধতিতে খুশি নন অধিকাংশ ব্যাবসায়ীই। তাঁদের বক্তব্য, ‘‘সীমান্তে ওই পদ্ধতিতে কাজ করলে দিনে সাত-আটটার বেশি লরি পাস করবে না।”

আরও পড়ুন: করোনা চিকিৎসায় ভারতে ব্যবহার হবে Remdesivir, অনুমোদন ওষুধ নিয়ন্ত্রক সংস্থার

Gmail