নিষিদ্ধ PUBG, মানসিক অবসাদে আত্মঘাতী আইটিআই ছাত্র !

পাবজি (PUBG) গেমের নেশায় মত্ত থাকত ছাত্রটি। বন্ধ হয়েছে সেই খেলা। তারপর গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করল নদিয়ার কল্যাণীর আইটিআইয়ের ওই ছাত্র। তবে এই মৃত্যুর নেপথ্যে অন্য কোনও কারণ রয়েছে কিনা, তা খতিয়ে দেখছে পুলিশ।

চীন ভারতের ম্যাপে হামলা করেছে। বদলে ভারত হামলা করেছে চীনা APP-এ। সোশ্যাল সাইটে লোকজন এমনটাই বলছে। অর্থনৈতিক দিক থেকে চীনকে বিপাকে ফেলে দিয়েছে ভারত। অন্তত তেমনটা মনে করছেন মোদী ভক্তরা। বিপুল জনপ্রিয় গেম পাবজি–কে (‌PUBG) ‌নিষিদ্ধ করা হয়েছে ভারতে । অনেকে বলছে, এতে এক ঢিলে দুই পাখি মারা গেল। কারণ, পাবজি–র নেশায় বুঁদ ছেলেমেয়ে এবার ইরাঙ্গেল, পোচিঙ্কি (‌পাবজি গেমের বিভিন্ন এলাকা)‌ ছেড়ে মন দেবে লেখাপড়ার রাস্তায়। কিন্তু এত কিছুর মধ্যে যে পাবজি বন্ধ হওয়ায় হিতে বিপরীত হতে পারে তা বোঝা গেল চাকদার এক ঘটনায়।

আরও পড়ুন : জাপানি সংস্থাগুলি আগ্রহ হারাচ্ছে, বাড়ছে খরচ! বুলেট ট্রেন প্রকল্প পিছোতে পারে আরও ৫ বছর

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, মৃত ওই ছাত্রের নাম প্রীতম হালদার। বয়স একুশের আশেপাশে। তাঁর বাড়ি চাকদহ থানার পূর্ব লালপুর এলাকায়। শুক্রবার দুপুরে ওই যুবকের মা দেখেন ঘরের মধ্যে সিলিং ফ্যান থেকে ঝুলছে ছেলেটি। মায়ের একটি শাড়ি দিয়ে গলায় ফাঁস লাগান প্রীতম। ওই দৃশ্য দেখেই চিৎকার করতে শুরু করেন প্রীতমের মা। তাঁর চিৎকারে প্রতিবেশীরা জড়ো হয়ে যান।

প্রিয় গেম নিষিদ্ধ হওয়ার পর থেকে মনমরা হয়ে থাকতেন তিনি। এর পর শুক্রবার দুপুরে ঘরে সিলিং ফ্যানে ঝুলন্ত অবস্থায় প্রীতমের দেহ উদ্ধার করেন তাঁর মা। তাঁর চিৎকারে প্রতিবেশীরা ছুটে আসেন। পুলিশ এসে দেহ উদ্ধার করে নিয়ে যায়।আত্মঘাতী প্রীতমের মা বলেন, “ছেলে কেন আত্মহত্যা করল, তা আমি জানি না। তবে ও পাবজি গেম খেলত। গেম বন্ধ হওয়ার পর ছেলের মন খারাপ ছিল। সেই কারণে হয়তো আত্মহত্যা করেছে।”

আরও পড়ুন : দেশের অর্থনীতির ব্যর্থতার দায় ঈশ্বরের ! নির্মলাকে কটাক্ষ করলেন তাঁরই স্বামী